১৩ আগস্ট ২০২২
`

অবশেষে স্কুল ফুটবলের শিরোপা ছমিরউদ্দিন স্কুলের

অবশেষে স্কুল ফুটবলের শিরোপা ছমিরউদ্দিন স্কুলের - ছবি : নয়া দিগন্ত

খেলা শেষে কান্না আর থামছিল না সাইদুর রহমান রাহুলের। ফাইনালে তার দল বেনাপোল মাধ্যমিক স্কুলই ছিল ফেবারিট। গ্রুপ পর্বে তাদের কাছে ০-৪ গোলে হেরেছিল নীলফামারীর ছমিরউদ্দিন স্কুল। অথচ সেই ছমিরউদ্দিন স্কুলই বুধবার স্কুল ফুটবল শিরোপার ফাইনালে ১-০ গোলে হারিয়ে দেয় বেনাপোল স্কুলকে।

বিপক্ষ দলের অধিনায়ক রাহুলের এই অঝোরে কান্না দেখে শিরোপার উৎসব বাদ দিয়ে দলবল নিয়ে ছুটে আসেন ছমিরউদ্দিন স্কুলের ক্যাপ্টেন নাঈম ইসলাম। সান্ত্বনা দিতে থাকেন রাহুলকে।

এটি ছিল বুধবার পল্টন ময়দান খ্যাত আউটার স্টেডিয়ামে জাতীয় স্কুল ফুটবলের ফাইনালের পরবর্তী দৃশ্য। এতে প্রতিশোধ মিশ্রিত জয়ে আসরের নতুন চ্যাম্পিয়ন হলো দেশের উত্তরাঞ্চলীয় জেলার স্কুলটি। সাথে অবসান দীর্ঘ অপেক্ষার। বিভিন্ন স্কুল ফুটবলে তারা আগের তিন সেমিফাইনালে হারলেও এবার সেমির পর ফাইনালেও জয়।

অন্য দিকে প্রথম বারের মতো ফাইনালে এসে রানার্সআপেই সন্তুষ্ট থাকতে হলো বেনাপোল স্কুলকে।

আগের ম্যাচগুলোতে ৭ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় ছিলেন নাঈম ইসলাম। কাল ১০ মিনিটে তার দূর পাল্লার শটের গোলেই শিরোপা নির্ধারণী জয়।

ম্যাচ শেষে নাঈম জানান, ‘আমাদের লক্ষ্যই ছিল আগের হারের প্রতিশোধ নেয়ার সাথে তাদের ৫ গোলে হারানো। শেষ পর্যন্ত তাদের হারাতে পেরেছি।’

ছমিরউদ্দিন স্কুলের কোচ আবদুল ওয়াহাব জানান, ‘আমরা গ্রুপ ম্যাচে বুঝতে পারিনি বেনাপোল স্কুলের খেলা। ওই ম্যাচে আমরা ৪-৩-৩ ফরমেশনে খেললেও ফাইনাল পরিবর্তন করেছি ফরমেশনে। ৪-৪-২ তে খেলে আমরা জয় তুলে নিয়েছি।

কোচ আরো জানান, ‘প্রথম ম্যাচে আমাদের কোনো ধারণাই ছিল না, বেনাপোলের মূল খেলোয়াড় রাহুল সম্পর্কে। তবে ফাইনালে তাকে ব্লক করে দিয়ে সফল।’

১৯৯৭ সালের সাফে বাংলাদেশ দলে থাকা বেনাপোল স্কুলের কোচ সাব্বির আহমেদ পলাশ জানান, ‘আসলে আমাদের ফুটবলাররা আগের ম্যাচগুলো খেলে ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। তাই এ হার। তবে আমি খুশী, দল আমার শেখানো ছকেই খেলেছে।’

অধিনায়ক রাহুল অবশ্য হারের জন্য গোল মিসকে দায়ী করার সাথে দুই গুরুত্বপূর্ন খেলোয়াড় ডিফেন্ডার ওয়ালিদ ও স্ট্রাইকার আকাশের লাল কার্ড জনিত অনুপস্থিতিকেই দায়ী করেন।

শিরোপা জয়ী ছমির উদ্দিন পেয়েছে এক লাখ টাকা। আর রানার্সআপ দল ৫০ হাজার টাকা।

এছাড়া ৮ গোল দিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন ছমিরউদ্দিনের নাঈম ইসলাম। ফাইনাল সেরা তাদের স্কুলের ডিফেন্ডার জিলকত হোসেন। সেরা গোলরক্ষক হয়েছেন নোয়াখালীর অরুনচন্দ্র স্কুলের সৌরভ সরকার। আর টুর্নামেন্ট সেরা হয়েছেন বেনাপোলের সাইদুর রহমান রাহুল। পুরস্কার দেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালায়ের সচীব।


আরো সংবাদ


premium cement