৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

শেষ পর্যন্ত করোনা পজিটিভ ৭ ফুটবলারের

শেষ পর্যন্ত করোনা পজিটিভ ৭ ফুটবলারের - প্রতীকী


১৮ থেকে নেমে এল ৭ এ। আর তিন ফুটবলারের দুই ধরনের রিপোর্ট। এক হাসপাতাল দিয়েছে করোনা পজিটিভ রেজাল্ট। অন্য হাসপাতালের টেস্টে তাদের রিপোর্ট নেগেটিভ। এই তিন ঝুলে থাকা ফুটবলার হলেন ডিফেন্ডার রিয়াদুল হাসান রাফি, রায়হান হাসান এবং রাকিব হোসেন। এই তিন ফুটবলারকে গভীর পর্যবেক্ষনে রাখা হবে। আর আইসিডিডিআরবি এবং প্রভা হেলথ হাসপাতালের করোনা টেস্টে দুই প্রতিষ্ঠান থেকেই সাত ফুটবলারের পজিটিভ রিপোর্ট আসা মানে আসলেই তারা করোনা আক্রান্ত।

ফুটবলাররা হলেন বিশ্বনাথ ঘোষ, টুটুল হোসেন বাদশা, এম এস বাবলু, রবিউল হাসান, ফয়সাল আহমেদ ফাহিম, শহীদুল আলম সোহেল এবং আনিসুর রহমান জিকো। জাতীয় দল সূত্রে জানা গেছে, আইসিডিডিআরবি হাসপাতালে এই ১০ ফুটবলারেরই টেস্টের রেজাল্ট পজিটিভ আসে। আর প্রভা হাসপাতালে একমাত্র রবিউল ছাড়া বাকী নয় ফুটবলারের রিপোর্টই আসে নেগেটিভ।

অথচ বাফুফের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে করা করোনা টেস্টে পজিটিভ রেজাল্ট আসে ১৭ ফুটবলার এবং সহকারী কোচ মাসুদ পারভেজ কায়সারের। ১৭ ফুটবলার হলেন, এম এস বাবলু, সুমন রেজা, নাজমুল ইসলাম রাসেল, ফয়সাল আহমেদ ফাহিম, মানিক হোসেন মোল্লা, মনজুরুর রহমান মানিক, মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, ইয়াসিন আরাফাত, বিপলু আহমেদ, মাহাবুবুর রহমান সুফিল, আনিসুর রহমান জিকো, সোহেল রানা, শহীদুল আলম সোহেল, রবিউল হাসান, সুশান্ত ত্রিপুরা, মোহাম্মদ ইব্রাহিম ও টুটুল হোসেন বাদশা। বিশ্বনাথ ঘোষ অ্যাপালো হাসপাতালে কারোনা টেস্ট করিয়ে পজিটিভ প্রমানিত হওয়ার পর আনোয়ান খান মর্ডান হাসপাতালে তার রিপোর্ট আসে নেগেটিভ। বাদশা, রবিউল সহ পাঁচ ফুটবলার নিজ উদ্যোগে করোনা টেস্ট করাতে পারেননি হাসপাতালে সিডিউল না পাওয়ায়। বাকীদের নিজ উদ্যোগে করা টেস্টের রেজাল্ট আসে নেগেটিভ। এমনকি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছিল রাফি, রায়হান এবং রাকিবের। আর এখন ভিন্ন চিত্র।
তাই বাফুফে পুরোপুরি নিশ্চিত হতেই ক্যাম্পের সব ফুটবলার সহ কোচিং স্টাফদের একই দিন ভিন্ন ভিন্ন হাসপাতালে করোনা টেষ্ট করায়। সেই রেজাল্টের আলোকে এখন ১৮ ফুটলারের মধ্যে ১১ ফুটবলার এখন করোনা মুক্ত। সাত ফুটবলার আসলেই করোনা রোগী। আর দুই ধরনের রিপোর্টে দ্বিধা দ্বন্দ্বে রাফি, রায়হান এবং রাকিব। এতে আসলেই রিপোর্টের নির্ভর যোগ্যতা নিয়ে সন্দেহ জাগছে।


আরো সংবাদ

সৈয়দপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টাকালে যুবক আটক প্রবাসীদের সমস্যা সহানুভূতির সাথে বিবেচনার অনুরোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ও লেভেল-এ লেভেল পরীক্ষা স্থগিতে রিট খারিজ খুলনায় স্কুলছাত্র বাপ্পী হত্যা মামলায় ১ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৫ জনের যাবজ্জীবন শ্বাসকষ্ট নিয়ে এমপি আবুল হাসানাত হাসপাতালে ভর্তি, আইসিইউতে স্থানান্তর কুয়েতের আমীরের ইন্তেকালে শোক প্রকাশ ও নতুন আমীরকে অভিনন্দন জামায়াত আমীরের স্বাধীনতার ৫০ বছর পর বাংলাদেশে কোনো স্বাধীনতাবিরোধী নেই : ভিপি নুর ব্যাংক লুটে নৈশপ্রহরী হত্যায় ৪ জন গ্রেফতার চুয়াডাঙ্গায় আরো ৪ জন করোনায় আক্রান্ত যমুনা নদীতে ১০০ নৌকায় ভাসমান মানববন্ধন করোনায় দেশে আরো ৩২ মৃত্যু, শনাক্ত ১৪৩৬

সকল

সুবিধাজনক অবস্থায় আজারবাইজান, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির শিকার আর্মেনিয়রা (১৯২৯১)আর্মেনিয়ান রেজিমেন্ট ধ্বংস করলো আজারবাইজান, শীর্ষ কমান্ডারের মৃত্যু (১৪১০৪)আর্মেনিয়া-আজারবাইজান তুমুল যুদ্ধ, নিহত বেড়ে ৯৫ (১৩০২৮)আজারবাইজানের সাথে যুদ্ধ : ইরান দিয়ে আর্মেনিয়ার অস্ত্র বহনের অভিযোগ সম্পর্কে যা বলছে তেহরান (৭৪২৯)স্বামীকে খুঁজতে এসে সন্তানের সামনে ধর্ষণের শিকার মা (৭২৯২)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার যুদ্ধের মর্টার এসে পড়লো ইরানে (৭২১৭)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : স্বামীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে ধর্ষকরা (৬৪১৯)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৫৯৮৯)‘তুরস্ককে আবার আর্মেনীয়দের ওপর গণহত্যা চালাতে দেয়া হবে না’ (৫৬২১)আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজান দ্বন্দ্ব: কোন দেশের সামরিক শক্তি কেমন? (৫৪৩৫)