১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১, ৫ মহররম ১৪৪৬
`

এইচএসসি পরীক্ষা শুরু ১৭ আগস্ট

অংশ নেবে ১২ লাখের বেশি শিক্ষার্থী
-


চলতি বছরের উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী ১৭ আগস্ট বাংলা প্রথম পত্রের মধ্য দিয়ে পরীক্ষা শুরু হবে। চলবে আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। গতকাল বৃহস্পতিবার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মো: আবুল বাশারের স্বাক্ষরে নয়টি সাধারণ বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে। অন্যবারের মতো এবারো পরীক্ষার শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের হলে ঢুকতে হবে। প্রথমে বহুনির্বাচনী ও পরে সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়) পরীক্ষা নেয়া হবে। প্রকাশিত রুটিন অনুযায়ী, ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে ৪ অক্টোবর পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এবারের পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ১২ লাখের বেশি শিক্ষার্থী।
শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিস সূত্রে জানা গেছে, পাবলিক পরীক্ষাগুলো সাধারণত রোববার বা বৃহস্পতিবার শুরু হয়। দীর্ঘ অনেক বছর ধরে এ প্র্যাকটিস হয়ে আসছে। সে হিসাবে ১৭ আগস্ট বৃহস্পতিবার এইচএসসি পরীক্ষা শুরু করার প্রস্তাব করা হয়েছে। একই তারিখে সাধারণ ৯টি শিক্ষা বোর্ডের পাশাপাশি মাদরাসা ও কারিগরি বোর্ডের পরীক্ষাও শুরু হবে বলে জানা গেছে।
বোর্ডের কর্মকর্তারা জানান, ২০১০ সাল থেকে ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে এসএসসি, এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হতো। এ সময়সূচিতে বাধা আসে ২০২০ সালে করোনাভাইরাসের কারণে। করোনার কারণে আগের পরীক্ষাসূচি এলোমেলো হয়ে যায়। ২০২১ সালে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয় ডিসেম্বর মাসের ২ তারিখ এবং ২০২২ সালের পরীক্ষা শুরু হয় ৬ নভেম্বর। পিছিয়ে যাওয়া এই পরীক্ষা ধীরে ধীরে এগিয়ে আনার পরিকল্পনা হাতে নেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সিদ্ধান্ত হয় ২০২৩ সালের পরীক্ষা জুলাই মাসের মাঝামাঝি সময় নেয়া হবে; কিন্তু কলেজগুলো সিলেবাস শেষ করতে না পারায় এই পরীক্ষা এক মাস পিছিয়ে এখন আগস্টের মাঝামাঝি নেয়া হবে বলে জানান বোর্ড কর্মকর্তারা। ২০২৩ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) ২০২২ সালের পুনর্বিন্যাস করা পাঠ্যসূচি অনুযায়ী সব বিষয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ১২ লাখের বেশি শিক্ষার্থী : এ দিকে এবারের উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় ৯টি সাধারণ ও কারিগরি-মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এবার ১২ লাখের বেশি শিক্ষার্থী অংশ নেবে। পরীক্ষায় অংশ নেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছে ১২ লাখের অধিক শিক্ষার্থী।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, সারা দেশে ১৪ লাখের বেশি ফরম পূরণ করলেও পরীক্ষায় অংশ নিতে রেজিস্ট্রেশন করেছে ১২ লাখের অধিক শিক্ষার্থী। এর মধ্যে শুধু ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে রেজিস্ট্রেশন করেছে তিন লাখ ৩৭ হাজারের বেশি। একাদশ থেকে দ্বাদশ শ্রেণীতে উঠতে ঝরে পড়েছে দুই লাখের অধিক শিক্ষার্থী। ২০২২ সালে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে চার লাখের বেশি ভর্তি হলেও তিন লাখ ৩৭ হাজার পরীক্ষার্থী রয়েছে। এভাবে প্রতিটি শিক্ষা বোর্ড থেকে শিক্ষার্থী ঝরেছে।
পরীক্ষার প্রথম ধাপে থাকবে বহুনির্বাচনী ও পরের ধাপে সৃজনশীল বা রচনামূলক প্রশ্ন দেয়া হবে। ৩০ নম্বরের বহুনির্বাচনী বা এমসিকিউ পরীক্ষার ক্ষেত্রে ৩০ ও সৃজনশীলের জন্য ৭০ নম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। ব্যবহারিক বিষয় সংবলিত পরীক্ষার ক্ষেত্রে ২৫ নম্বরের বহুনির্বাচনী পরীক্ষার জন্য ২৫ মিনিট এবং ৫০ নম্বরের সৃজনশীলের জন্য সময় দেয়া হবে ২ ঘণ্টা ২৩ মিনিট। প্রতিটি তত্ত্বীয় পরীক্ষার জন্য তিন ঘণ্টা করে সময় থাকবে।
পরীক্ষার্থীরা তাদের প্রবেশপত্র নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছ থেকে সংগ্রহ করবে। তত্ত্বীয় ও বহুনির্বাচনী এবং ব্যবহারিক অংশের পরীক্ষায় আলাদাভাবে পাস করতে হবে। পরীক্ষা কেন্দ্র সচিব ছাড়া অন্য কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবে না বলেও এইচএসসি পরীক্ষার রুটিনে উল্লেখ করা হয়েছে।


আরো সংবাদ



premium cement
শাহবাগে কোটা আন্দোলনকারীরা, যান চলাচল বন্ধ মালয়েশিয়ায় আন্তর্জাতিক মেশিনারী মেলায় বাংলাদেশের অংশগ্রহণ ইংল্যান্ডের বড় জয়, থেমে গেলেন এন্ডারসন ঢাবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের মিছিল শুরু রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে ইতিবাচক মিয়ানমার : পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুনামগঞ্জে বন্যার পানি এই বাড়ে এই কমে, পানিবন্দী লাখো মানুষ লর্ডস টেস্টের দ্বিতীয় দিন এন্ডারসন-স্টোকসের দুর্দান্ত রেকর্ড নোয়াখালীতে ছোট ভাইয়ের লাশ আনতে গিয়ে বড় ভাইয়ের মৃত্যু কোটা বিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিচ্ছে কারা? কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রেতাত্মারা : আইনমন্ত্রী গাজা শহরে ইসরাইলি অভিযানের পর ৬০টি লাশ উদ্ধার

সকল