২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

রোহিঙ্গা সঙ্কট এভাবে চলতে পারে না - জাতিসঙ্ঘের সভাপতি

-

রোহিঙ্গা সঙ্কট কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসঙ্ঘ সাধারণ পরিষদের সভাপতি সাবা কোরোসি।
গতকাল জাতিসঙ্ঘ সদর দফতরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আবদুল মোমেনের সাথে এক দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন। রোহিঙ্গা শিশুদের নিজ ভাষায় শিক্ষাদান, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনা ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকারের নেয়া পদক্ষেপগুলো তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। প্রত্যাবাসন চুক্তির পরও এখন পর্যন্ত কোনো রোহিঙ্গা নিজ ভূমি মিয়ানমারে ফেরত যায়নি বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেন ড. মোমেন। রোহিঙ্গাদের আশ্রয় ও মানবিক সহায়তা দেয়ার জন্য বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করেন সাবা কোরোসি। তিনি বলেন, এ সঙ্কট কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।
বৈঠকের শুরুতে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) বাস্তবায়ন পর্যালোচনা’ বিষয়ক উচ্চপর্যায়ের ইভেন্ট আয়োজন এবং সাউথ-সাউথ কো-অপারেশনের আওতাধীন উন্নয়নশীল দেশগুলোর অর্থ, পররাষ্ট্র ও উন্নয়ন মন্ত্রীদের সমন্বয়ে একটি ফোরাম প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব সাধারণ পরিষদের সভাপতির কাছে উত্থাপন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এসময় এসডিজির বাস্তবায়ন, বিশেষ করে করোনা মহামারীর মধ্যে এসডিজি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে তহবিল ঘাটতিতে শঙ্কা প্রকাশ করেন ড. মোমেন। প্রস্তাবিত উচ্চপর্যায়ের ইভেন্টটির আয়োজন করা হলে তা এসডিজির বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা করা এবং তহবিল ঘাটতি মোকাবেলায় ফলপ্রসূ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ ছাড়া সাউথ-সাউথ কো-অপারেশনের আওতায় মন্ত্রী পর্যায়ের ফোরাম প্রস্তাবগুলো বিষয়ভিত্তিক আলোচনাকে আরো এগিয়ে নিতে একটি চমৎকার প্লাটফর্ম হিসাবে কাজ করবে বলে মন্তব্য করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সাধারণ পরিষদের সভাপতি প্রস্তাব দু’টিকে স্বাগত জানান।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলা অর্থাৎ এর প্রশমন ও অভিযোজনের জন্য আরো তহবিল জোগানোর গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন। এ ক্ষেত্রে প্রতি বছর ১০০ বিলিয়ন ডলারের তহবিল প্রদানের শিল্পোন্নত দেশগুলোর প্রতিশ্রুতি শিগগির বাস্তবায়নের ওপর জোর দেন ড. মোমেন। সাধারণ পরিষদের সভাপতি বিষয়টির প্রতি তার সমর্থন ব্যক্ত করেন।
সুবিধাজনক সময়ে সাধারণ পরিষদের সভাপতিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।


আরো সংবাদ


premium cement