৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

সিরিজ জয়ে স্বস্তি সোহান বাহিনীর

বাংলাদেশ : ১৬৯/৫; আমিরাত : ১৩৭/৫
-

কোনো ব্যাটারই বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। তারপরও সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-২০তে সম্মানজনক সংগ্রহ বাংলাদেশের। প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬৯ রান করেছে টাইগাররা। দলের পক্ষে ক্যারিয়ার সেরা সর্বোচ্চ ৪৬ রানের ইনিংস খেলেন ওপেনার মেহেদি হাসান মিরাজ। এটি মিরাজের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৭ রান আসে মোসাদ্দেক হোসেনের ব্যাট থেকে। জবাবে রিজওয়ানের হাফ সেঞ্চুরির সুবাদে ৫ উইকেটে ১৩৭ রানই করতে পারে আমিরাত সেনারা। ফলে ৩২ রানের জয়ে ২-০তে সিরিজ জেতায় স্বস্তির পরশ টাইগার শিবিরে। নিউজিল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে যাওয়ার আগে আত্মবিশ্বাসের পুঁজি পেয়ে গেছে বাংলাদেশ।
দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এ ম্যাচেও টস হেরে ওপেন করতে নামেন মিরাজ ও সাব্বির। চতুর্থ ওভারের চতুর্থ বলে আমিরাতের বাঁহাতি স্পিনার আরইয়ান লাকরা ৯ বলে ১২ রান করা সাব্বিরকে আউট করলে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওপেনিংয়ে নেমে তিন ম্যাচেই ব্যর্থ সাব্বির। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৫, আমিরাতের বিপক্ষে দুই ম্যাচে আউট হন ০ ও ১২ রানে। দারুণ ছন্দ ছিল ইনজুরি থেকে ফেরা লিটন কুমার দাসের ব্যাটে। মেহেদীকে নিয়ে গড়েন ৪১ (২৮ বলে) রানের জুটি। ব্যক্তিগত ২৫ রানে আয়ান খানের শিকার হন লিটন। অর্ধশতক থেকে মাত্র চার রান দূরে থাকাবস্থায় সাবির আলীর এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন মিরাজ (৩৫ বলে ৪৬ রান)। ৭৪ বলে ১০০ পার করে বাংলাদেশ।
এরপর মোসাদ্দেক হোসেন (২৭) ও আফিফ হোসেনের (১৮) বিদায়ে বড় সংগ্রহের পথ থেকে ছিটকে যায়। শেষতক ৫ উইকেটে ১৬৯ রান করে টাইগাররা। ইয়াসির আলী ২১ ও নুরুল হাসান সোহান ১৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। আমিরাতের আয়ান খান দু’টি, সাবির, লাকরা ও কার্তিক একটি করে উইকেট নেন।
রান তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশের বোলিং তোপের মুখে পড়ে আমিরাত। তৃতীয় ওভারের পঞ্চম বলে চিরাগ সুরি (৫), ষষ্ঠ ওভারের তৃতীয় বলে ওয়াসিম (১৮), সপ্তম ওভারের তৃতীয় বলে লাকরা (৪) ও চতুর্থ বলে অরবিন্দ (২) সাজঘরে ফিরেন। বিপর্যয় সামলে ঘুরে দাঁড়ায় আমিরাত। হামিদ-রিজওয়ান ফিফটির জুটিতে শাসন করে বাংলাদেশী বোলারদের। একপর্যায়ে হামিদ ৪০ বলে ৪ চারে ৪২ রানে এবাদতের বলে আফিফকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেও রিজওয়ান তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। ৩৬ বলে সমান দু’টি করে চার-ছক্কায় অপরাজিত থাকেন ৫১ রানে। জাওয়ার অপরাজিত থাকেন ৮ রানে। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ওভার শেষে ৫ উইকেটে ১৩৭ রানে থামে আমিরাত। মোসাদ্দেক দু’টি, নাসুম, তাসকিন, এবাদত একটি করে উইকেট নেন।


আরো সংবাদ


premium cement
অঘটন ঘটিয়ে শেষ ষোলতে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে দিল তিউনিসিয়া ফেসবুকে প্রেমের পর গণধর্ষণ, আটক ৫ বিএনপির আমলের চেয়ে ছয় গুণ বেশি রিজার্ভ আমাদের রয়েছে : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মরা-বাঁচা লড়াইয়ে প্রথমার্ধ শেষে গোলশূন্য ডেনমার্ক-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান কেনো বিএনপির অপছন্দ : ওবায়দুল কাদের ফ্রান্স-তিউনিসিয়া ম্যাচ গোলশূন্য ড্তে শেষ প্রথমার্ধ গণসমাবেশের লিফলেট বিতরণকালে গাজীপুরে বিএনপির নেতাকর্মী গ্রেফতার ১০ দফা দাবিতে জয়দেবপুর রেল স্টেশনে বিক্ষোভ দুর্নীতির অভিযোগ, বেনাপোল সোনালী ব্যাংকের ৩ কর্মকর্তা বরখাস্ত মির্জাপুরে ইটভাটা মালিককে কোটি টাকা জরিমানান

সকল