২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ১ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`
উত্তরায় কারের ওপর বিআরটির গার্ডার

নবদম্পতির ৫ স্বজন নিহত

উত্তরায় গার্ডার পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ি : নয়া দিগন্ত -

রাজধানীর উত্তরায় জসিমউদদীন মোড়ে বাস র্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) স্থাপনা প্রকল্পের একটি গার্ডার প্রাইভেট কারের উপর পড়ে শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচজনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেলে সোয়া ৪টার দিকে জসিমউদদীন রোডের আড়ংয়ের পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে গাড়িটি (ঢাকা মেট্রো-গ-২২-৬০০৮) দুমড়েমুচড়ে যায়। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা প্রায় ৩ ঘণ্টা চেষ্টা করে গাড়ির ভেতর থেকে পাঁচটি লাশ উদ্ধার করে। নবদম্পতি হৃদয় (২৫) ও রিয়া মনি (২১) কে নিয়ে পরিবারের সদস্যরা কনের বাবার বাড়ির উদ্দেশে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন হৃদয়ের বাবা রুবেল (৬০), শাশুড়ি ফাহিমা (৪০), খালা শাশুড়ি ঝরনা (২৮) এবং এ ঘটনায় অল্পের জন্য রক্ষা পায় তাদের সাথে থাকা আরেকটি মাইক্রোবাস। ঝরনার দুই সন্তান জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)। এতে আহত হয়ে বেঁচে আছেন নব-দম্পতি হৃদয় ও রিয়া মনি।
ঘটনার পর নিহতদের স্বজনদের আহাজারিতে গোটা এলাকার বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। তাদের অভিযোগ, দীর্ঘসময় পার হলেও গার্ডার সরিয়ে গাড়ির ভেতরে থাকা যাত্রীদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এতে যদি কেউ বেঁচেও থাকতেন তারা আটকে থেকে হয়তো মারা গেছেন। তারা আরো অভিযোগ করছেন, কম ক্ষমতাসম্পন্ন ক্রেন দিয়ে অধিক ওজনের গার্ডার তুলতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। তারা প্রশ্ন তোলেন, ব্যস্ততম রাস্তায় কোনো নিরাপত্তা ব্যবস্থা না নিয়ে এমন ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করা কতটা যুক্তিসঙ্গত।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, একটি ক্রেন দিয়ে গার্ডারটি উপরে উঠানো হচ্ছিল। ক্রেনটি তখন বাম্পিং করছিল। গাডারের ওজন বেশি হওয়ায় একপর্যায়ে ক্রেনটি কাত হয়ে পড়ে। এতে গার্ডারটি রাস্তায় চলমান প্রাইভেট কারের উপর পড়লে সেটি দুমড়ে-মুচড়ে ভেতরে থাকা যাত্রীরা মারা যায়।


উত্তরা (পূর্ব) থানার ওসি মো: জহিরুল ইসলাম জানান, ক্রেন দিয়ে গার্ডার তোলা হচ্ছিল। এ সময় গার্ডারসহ ক্রেনটি কাত হয়ে যায়। আর রাস্তার ওপর গার্ডারের নিচে চাপা পড়ে চলন্ত প্রাইভেট কার। প্রাইভেটকারটিতে শিশুসহ সাতজন আরোহী ছিলেন। এর মধ্যে পাঁচজন ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। দুজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।
উদ্ধারকারীরা বলেন, গাড়ির ভেতর থেকে দু-একজনের চিৎকার শোনা গেলে তাৎক্ষণিক তাদের বের করা সম্ভব হয়নি। প্রচণ্ড ভারী গার্ডারটি এমনভাবে পড়েছিল যে গাড়িটি কেটেও দ্রুত তাদের বের করা সম্ভব হয়নি। প্রাইভেটকারটি দুমড়ে মুচড়ে যাওয়ায় লাশগুলো বের করা কঠিন হয়ে পড়ে। এদিকে দুর্ঘটনার পর থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
জানা গেছে, গত শুক্রবার বিয়ে হয়েছে হৃদয় ও রিয়া মনির। গতকাল সোমবার স্বজনরা নবদম্পতিকে নিয়ে কনের বাবার বাড়ি যাচ্ছিলেন। প্রাইভেটকারে আরোহী ছিলেন সাত জন। যার মধ্যে শুধু বেঁচে গেছেন হৃদয় ও রিয়া। তাদের গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। হৃদয়ের পরিবার দক্ষিণখান এলাকায় বসবাস করেন। রিয়া মনির বাড়ি আশুলিয়ার খেজুরবাগানে আসরাফউদ্দিন চেয়ারম্যান বাড়ি এলাকায়।
হৃদয়ের চাচাতো ভাই রাকিব বলেন, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে দুর্ঘটনাটি ঘটে। কিন্তু দীর্ঘসময় পার হওয়ার পরও গাড়ি থেকে লাশগুলো বের করতে পারেননি উদ্ধারকারীরা। ভেতরে কেউ বেঁচে থাকলেও এ সময় তারা মারা গেছেন। রাকিব ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘সরকার কিভাবে এমন অব্যবস্থাপনার মধ্যে কাজ করছে? আমরা কার কাছে বিচার দেব!
এদিকে খবর পেয়ে দুর্ঘটনাস্থলে ছুটে আসতে থাকেন নিহতদের স্বজনরা। তাদের আহাজারিতে গোটা এলাকার বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। ফায়ারসার্ভিস কর্মীরা লিভার দিয়ে গার্ডার উঁচু করে তুলে গাড়ি বের করার চেষ্টা করেন। তবে দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চেষ্টায়ও ১২০ টন ওজনের গার্ডার সরেনি।
দুর্ঘটনায় প্রায় ৩ ঘণ্টা পর সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে আরো শক্তিশালী ক্রেন এনে গার্ডারটি সরানোর পর গাড়ি থেকে লাশগুলো উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। সোমবার সন্ধ্যা ৭টার পর দুটি অ্যাম্বুলেন্সে করে লাশগুলো নিয়ে যাওয়া হয়।


প্রধানমন্ত্রীর শোক : গার্ডার পড়ে পাঁচজন নিহত ও দুজন আহত হওয়ার ঘটনায় শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি নিহতদের রূহের মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। পাশাপাশি আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেন।
বিআরটি প্রকল্প পরিচালক (আইএইচডি) ইলিয়াস শাহ গণমাধ্যমকে বলেন, এ ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। কী কারণে ঘটেছে তা বের করার চেষ্টা করছি, এটি করতে কিছুটা সময় লাগবে। এর আগে ২০২১ সালের ১৪ মার্চ উত্তরার আবদুল্লাহপুরে বিআরটি স্থাপনা প্রকল্পের কাজের সময় লঞ্চিং গার্ডার ধসে পড়ে তিন চীনা শ্রমিকসহ ছয়জন আহত হয়েছিলেন।

 


আরো সংবাদ


premium cement