০২ জুলাই ২০২২
`

মিয়ানমার ইস্যুতে একমত হতে ব্যর্থ নিরাপত্তা পরিষদ

-

জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদের শুক্রবারের বৈঠকে মিয়ানমারের জান্তা সরকারকে চলমান সঙ্কটের শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণে একটি বিবৃতিতে একমত হতে সদস্যরা ব্যর্থ হয়েছেন। কূটনৈতিক সূত্রে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ বিবৃতিটির খসড়া তৈরি করেছিল চীন ও যুক্তরাজ্য। শুক্রবার সকালে মিয়ানমার নিয়ে পরিষদের রুদ্ধদ্ধার বৈঠকের পর ব্যর্থতার জন্য দুই দেশই দুই দেশকে দোষারোপ করতে থাকে। বাস্তবতা হচ্ছে দুই দেশের জন্যই আলোচনা ব্যর্থ হয়েছে। ইরাবতি।
চীনের জাতিসঙ্ঘ প্রতিনিধিদলের মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, সমঝোতায় পৌঁছানোর জন্য যৎসামান্য পার্থক্য ছিল এবং সেটি অতিক্রম করা যেত। মূল বিবৃতিতে প্রস্তাব করা হয়েছে, আসিয়ানের দেয়া পাঁচ দফা পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ‘সামান্য অগ্রগতি’ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে নিরাপত্তা পরিষদ। পাঁচ দফা পরিকল্পনার প্রস্তাবটি দেয়া হয়েছিল এক বছর আগে। পরিকল্পনাটি বাস্তবায়নে তাগিদ দিয়েছে নিরাপত্তা পরিষদ। এ ছাড়া দেশটিতে চলমান সহিংসতা ও মানবিক বিপর্যয় নিয়েও উদ্বেগ করা হয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে।
পরিষদের বৈঠকে মিয়ানমারের জন্য আসিয়ান দূত, কম্বোডিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী সোখোন প্রাক এবং জাতিসঙ্ঘের দূত নোলিন হেইজার দেশটির সর্বশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরেন। কূটনীতিকদের মতে, ২০২১ সালে হাইজার মিয়ানমারে প্রথম ভ্রমণের জন্য সবুজ সঙ্কেত পেলেও তার থাকার ও তিনি যাদের সাথে কথা বলতে চান তাদের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় অনুমোদন পাননি। জাতিসঙ্ঘ জোর দিয়ে বলেছে, তিনি শুধু ক্ষমতাসীন জান্তা নয়, বিভিন্ন বার্মিজ দলের সাথেও দেখা করতে পারবেন।
মিয়ানমারে মুদ্রার মান কমছে : মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান হয় গত বছরের ১ ফেব্রুয়ারি। এর মাত্র এক বছরের মাথায় দেশটির ভেতরে পাঁচ লক্ষাধিক মানুষ স্থানচ্যুত হয়েছে। লাখ লাখ মানুষ তাদের খাদ্য ও চিকিৎসা খরচ বহনের সক্ষমতা হারিয়েছে। পরিস্থিতি এতটাই নাজুক যে, নারীরা তাদের মাসিক ঋতুকালের জন্য দরকারি স্যানিটারি প্যাড জোগাড় করতে পারছে না। এতে চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়েছে তারা।
গতকাল আলজাজিরার খবরে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের মুদ্রার মান কমছে। বাজার সরবরাহ ব্যবস্থা ভেঙে গেছে। এক দিকে তেলের দাম বাড়ছে, অন্য দিকে বেড়েই চলেছে নিত্যপণ্যের দাম। এ দিকে সঙ্ঘাতপূর্ণ এলাকায় স্থানীয় বাজার বন্ধ হয়ে গেছে। দোকানে পণ্য সরবরাহ করাও কঠিন হয়ে পড়েছে। জরুরি পণ্য পরিবহনও বন্ধ করে দিয়েছে সেনাবাহিনী। তারা এটি করছে যাতে সশস্ত্র প্রতিরোধ দলের সদস্যরা খাবার না পেয়ে আস্তানা থেকে বেরিয়ে আসে।
মিয়ানমারে ১৬ লাখ মানুষ ২০২১ সালে করোনা মহামারী ও সেনা অভ্যুত্থানের কারণে কাজ হারিয়েছে। সশস্ত্র সঙ্ঘাতে অনেক কৃষক ও শ্রমিক কাজ করতে পারছে না। গত ডিসেম্বরে জাতিসঙ্ঘ অনুমান করেছিল, এ বছরের শুরুর দিকেই মিয়ানমারের প্রায় অর্ধেক মানুষের দৈনিক আয় মাত্র এক ডলারেরও নিচে নেমে যাবে। মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের পর অং সান সু চিসহ দেশটির অনেক রাজনৈতিক নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। অনেকে আত্মগোপনে চলে যান। দেশটিতে সেনাশাসনের বিরুদ্ধে এক বছরের বেশি ধরে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ চলছে। এ বিক্ষোভ-প্রতিবাদে জান্তার হাতে দেড় হাজারের বেশি বেসামরিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। গ্রেফতার হয়েছে কয়েক হাজার।


আরো সংবাদ


premium cement
সৌদি আরবে আরো ৩ বাংলাদেশী হজযাত্রীর মৃত্যু চট্টগ্রামে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে জামায়াতের গৃহ ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ তাহিরপুরে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও বন্যার্তদের মধ্যে ভারতীয় হাইকমিশনের ত্রাণ বিতরণ কওমি মাদরাসা নিয়ে ফখরুল ইমাম এমপির বক্তব্যের প্রতিবাদ শিবিরের ফুলগাজীতে বিএনপির ত্রাণ বিতরণের প্রস্তুতি সভায় আ’লীগের হামলায় আহত ৩০ চট্টগ্রামে ৫০ চোরাই মোবাইলসহ পাকড়াও ৪ চোর হামলার ভয়ে বড়থলির ২৩টি পরিবার বান্দরবানে আশ্রয় নিয়েছে হবিগঞ্জে মোবাইল কেনাবেচা নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১ চট্টগ্রামে গরুর বাজার দখলের চেষ্টা অস্ত্রসহ ৩ ছাত্রলীগ ক্যাডার গ্রেফতার বগুড়ায় আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কাজ বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন ডিএসসিসি পশুর হাটে থাকবে ১১ ভেটেরিনারি মেডিক্যাল টিম

সকল