১৯ জানুয়ারি ২০২২
`

অধরা জয়ের লক্ষ্যে দ্বিতীয় টেস্টে মাঠে নামছে বাংলাদেশ

-

অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের প্রত্যাবর্তনে উজ্জীবিত হয়ে আজ সকাল ১০টায় মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে পাকিস্তানের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। এ ম্যাচে পাকিস্তান জয় পেলে ঘরের মাঠে হোয়াইটওয়াশ হবে বাংলাদেশ। আর মুমিনুল বাহিনী জয়ী হলে দুই ম্যাচের টেস্টটি হবে ড্র। তাতে টি-২০ তে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার লজ্জা কিছুটা হলেও লাঘব হবে।
পাকিস্তানের বিপক্ষে ১০টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। ৯টিতেই জিতেছে পাকিস্তান। বাকি ১টি টেস্ট ড্র হয়। সর্বশেষ ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সফরে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে ওই একটি টেস্ট ড্র হয়েছিল। বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত ১২২টি টেস্ট খেলেছে, জিতেছে ১৪টিতে, হেরেছে ৯২টিতে। এর মধ্যে ৪৩টি ম্যাচে ইনিংস ব্যবধানে হারে। বাকি ১৬ টেস্ট ড্র করেছে।
হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ ও প্রথম টেস্টে খেলতে পারেননি সাকিব। সাকিবের অনুপস্থিতিতে সব ম্যাচই হারে বাংলাদেশ। প্রথম টেস্টে ৪৪ রানের লিড পেয়েও ৮ উইকেটে ম্যাচ হারতে হয় বাংলাদেশকে। চট্টগ্রামে ম্যাচের প্রথম ইনিংস টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পান লিটন দাস। মুশফিকুর রহীম করেন ৯১ রান। দু’জনের ব্যাটিংয়ের সাথে বাঁ হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম ১১৬ রানের বিনিময়ে ৭ উইকেট শিকার করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটাররা ব্যর্থ হওয়ায় সহজ জয় পায় পাকিস্তান।
প্রথম ইনিংসে লিড পেলেও ম্যাচ জয়ের আত্মবিশ্বাসে ঘাটতি ছিল বাংলাদেশের। সাকিবের অনুপস্থিতি ব্যাপকভাবে ফুটে ওঠে। সাকিব থাকলে দলের খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাস ও ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের উন্নতি ঘটে বলে সবার বিশ্বাস। অবশ্য টপ অর্ডার ব্যাটারদের ব্যর্থতা বড় ক্ষতি করে বাংলাদেশের। প্রথম ইনিংসে ৪৯ রানে এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৯ রানে ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। মুমিনুল জানান, বাংলাদেশ যদি সব কিছু ঠিকঠাক করতে না পারে, তা হলে টেস্ট সিরিজে তাদের কামব্যাক করার কোনো উপায় নেই।
দ্বিতীয় টেস্টে ভালো পারফরম্যান্সের জন্য প্রথম ম্যাচের ভুলগুলো সংশোধন করতে আগ্রহী দল। শাহিন শাহ আফ্রিদির বাউন্সারে মাথায় আঘাত পাওয়া ইয়াসির বলেন, ‘আমরা জানি না দ্বিতীয় টেস্টে উইকেট কেমন হবে। আমাদের উইকেটের আচরণ দেখে খেলতে হবে এবং মূল বিষয় হলো আমাদের যে পরিকল্পনা আছে তা ধরে রাখতে হবে। আপনাকে সব কিছু স্বাভাবিক রাখতে হবে এবং উইকেটের চাহিদামতো ব্যাট করতে হবে।’
সাকিব ছাড়াও এ ম্যাচে পেসার তাসকিন আহমেদের সার্ভিস পাচ্ছে বাংলাদেশ। চট্টগ্রাম টেস্টে তাসকিনের পেসকে মিস করেছিল দল। পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজে ডান হাতের ইনজুরিতে পড়ায় শেষ মুহূর্তে টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েন তাসকিন। সাকিব ও তাসকিনের দলে ফেরার অর্থ হলো, একাদশে বেশ কিছু পরিবর্তন হবে। দুই ইনিংসে ব্যর্থ ওপেনার সাইফ হাসান অসুস্থতার কারণে দল থেকে বাদ পড়েছেন। বাংলাদেশ এরই মধ্যে টি-২০ স্পেশালিস্ট নাঈম শেখকে দলে ডেকেছে। আছে নতুন মুখ মাহমুদুল হাসান জয়ও। ইনিংস শুরু করার সামর্থ্য তার আছে। তাই দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে মূলত তিনটি পরিবর্তন আনতে হবে বাংলাদেশকে। একমাত্র লক্ষ্য পাকিস্তানের বিপক্ষে অধরা জয়ের স্বাদ নেয়া।
চট্টগ্রাম টেস্টে দুই ইনিংসেই বাংলাদেশের উদ্বোধনী জুটি ছিল ব্যর্থ। সাদমান ইসলাম আর সাইফ হাসান নতুন বলে পাকিস্তানি বোলারদের সাথে লড়াইয়ের ধারে কাছেও ছিলেন না। নড়বড়ে ব্যাটিংয়ে দলের বিপদ বাড়িয়েছেন। দুই ইনিংসেই তাদের আউট হওয়ার ধরনে শঙ্কা জাগিয়েছে। আজ শুরু হতে যাওয়া দ্বিতীয় টেস্টের আগে উদ্বোধনী জুটিই সবচেয়ে বড় চিন্তার কারণ। সাদমানের সাথে নাজমুলকেই ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি।
নাজমুলের জন্যও বড় পরীক্ষা। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে হঠাৎই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চে অভিষেক হওয়ার পর কখনোই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেননি নাজমুল। এখন পর্যন্ত ১০ টেস্টে ৩১.২৭ গড়ে ৫৬৩ রান করা নাজমুলের যা কিছু অর্জন, সেটি তিন নম্বরে ব্যাটিং করেই। পাল্লেকেল্লেতে এ বছরের এপ্রিলে তার ব্যাট থেকে ১৬৩ রানের একটি ইনিংস এসেছিল। জুলাইতে হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে করেছেন আরো একটি শতরান। সবই ৩ নম্বরে ব্যাটিং করে। এখন দলের প্রয়োজনে ওপেনিং করতে গেলে মানিয়ে নেয়ার একটি বিষয় থাকে।
৭৬ রানের ইনিংস দিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ার শুরু করা সাদমান এত দিন তামিম ইকবালের ছায়ায় বেড়ে উঠেছেন। কিন্তু কয়েক মাস ধরেই তামিমের অনুপস্থিতি সাদমানকে সেই ছায়া থেকে বের হতে বাধ্য করেছে। চট্টগ্রাম টেস্টে করেছেন ১৪ ও ১। যদিও জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারে টেস্টে পেয়েছিলেন প্রথম টেস্টে শতক। ছোট্ট ক্যারিয়ারে ঢাকা টেস্ট তার জন্য ঘুরে দাঁড়ানোর চ্যালেঞ্জ।
বাংলাদেশ দল : মুমিনুল হক (অধিনায়ক), সাদমান ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, ইয়াসির আলী রাব্বি, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, এবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহি, নাঈম হাসান, মাহমুদুল হাসান জয়, রেজাউর রহমান রাজা, খালেদ আহমেদ, শহিদুল ইসলাম ও নাঈম শেখ।


আরো সংবাদ


premium cement