২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`
সিএনজি চালক কামালের জবানবন্দী

‘ওসি প্রদীপ এসেই সিনহার মৃত্যু নিশ্চিত করেন’

-

পুলিশের গুলিতে নিহত মেজর (অব:) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের দ্বিতীয় দিনে গতকাল সোমবার অপর প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী সিএনজি চালক কামাল হোসেনের জবানবন্দী ও জেরা সম্পন্ন হয়েছে। আদালতে তিনি তার চোখে দেখা সিনহা হত্যাকাণ্ডের বিবরণ দেন। জবানবন্দীতে তিনি বলেন, ‘ওসি প্রদীপের গাড়ির পেছনেই আমার সিএনজি চালিত অটো রিকশাটি ছিল। এ কারণেই আমি হত্যার পুরো দৃশ্য দেখেছি। তিনি আরো বলেন, গুলিবিদ্ধ হয়ে সিনহা মো: রাশেদ খান মাটিতে (রাস্তায়) পড়ে ছিলেন। তখনও তিনি জীবিত ছিলেন। টেকনাফের দিক থেকে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ঘটনাস্থলে এসে সিনহার মৃত্যু নিশ্চিত করেন। ওসি প্রদীপের হাতেই সিনহার মৃত্যু ঘটেছে।’ কামাল হোসেনের জবানবন্দী ও জেরার মধ্য দিয়েই গতকাল সোমবার দ্বিতীয় দিনের কার্যক্রম শুরু হয়। কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম জানান, সকাল পৌনে ১০টার দিকে মামলার আসামি ওসি প্রদীপ, পরিদর্শক লিয়াকতসহ ১৫ আসামিকে কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়। দ্বিতীয় দফার দ্বিতীয় দিনের জন্য তিনজন সাক্ষীর হাজিরা দেয়া হয়েছে। কিন্তু কামাল হোসেনের জবানবন্দী ও তাকে আসামি পক্ষের আইনজীবীদের দীর্ঘ জেরার মধ্য দিয়ে দিনের কার্যক্রম শেষ হয়। তবে অন্য সাক্ষী শওকত আলী ও হাফেজ মোহাম্মদ আমিনও জবানবন্দী দেয়ার জন্য প্রস্তুত ছিলেন। আজ মঙ্গলবার তাদের জবানবন্দী নেয়া হবে। তিনি আরো জানান, সাক্ষ্যগ্রহণ দ্রুতই শেষ হবে এমন ধারণা করে গত রোববার ছয়জনের হাজিরা দেয়া হলেও প্রথম দিনে মাত্র একজনের সাক্ষ্য ও জেরা সম্পন্ন করা সম্ভব হয়। এ কারণে দ্বিতীয় দিনে তিনজনের হাজিরা দেয়া হয়েছে। এখন প্রথমে সমন পাওয়া অপেক্ষমাণ সাক্ষীরা হলেন, শামলাপুর এলাকার ফিরোজ, মুহিবুল্লাহ ইউনুস, মোহাম্মদ আবদুল হালিম, রামু সেনা নিবাসের সার্জেন্ট মোহাম্মদ আইয়ুব আলী, সিনহার সফরসঙ্গী শিপ্রা দেবনাথ, কক্সবাজার সদর হাসপাতালের চিকিৎসক যথাক্রমে শাহীন আবদুর রহমান চৌধুরী ও রনধীর দেবনাথ এবং টেকনাফের বাহারছড়ার মারিশবনিয়ার হাফেজ জহিরুল ইসলাম।
উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব:) সিনহা মো: রাশেদ খান। এ ঘটনায় মোট চারটি মামলা হয়। এর মধ্যে টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া পুলিশ কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস।v


আরো সংবাদ


premium cement