২২ জুন ২০২১
`
বৈঠকে বসছে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদ

মসজিদুল আকসায় ইসরাইলি পুলিশের হামলা, আহত ৩০০

-

অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড পূর্ব জেরুসালেমের মসজিদুল আকসায় নতুন করে তাণ্ডব চালিয়েছে ইসরাইলি পুলিশ। ইসরাইলের জেরুসালেম দিবস উদযাপনের মুহূর্তে সোমবার সকালে মসজিদে অবস্থানকারী ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলা চালায় তারা। ফিলিস্তিনি রেড ক্রিসেন্ট জানিয়েছে, ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় অন্তত ২৯৫ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে ১৫৩ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে অন্তত চারজনের অবস্থা গুরুতর। এ দিকে জেরুসালেমে চলমান সহিংসতার বিষয়ে আলোচনার জন্য সোমবার বৈঠকে বসছে জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ। পরিষদের ১৫ সদস্যের দুই-তৃতীয়াংশের অনুরোধে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
ফিলিস্তিনি রেড ক্রিসেন্ট জানিয়েছে, তাদের কর্মীদের মসজিদুল আকসায় প্রবেশে বাধা দেয়া হয়েছে। ফিলিস্তিনি অধ্যুষিত পূর্ব জেরুসালেমের শেখ জাররাহ মহল্লায় ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদে ইসরাইলি আদালতের আদেশের জেরে গত এক সপ্তাহ পুরো ফিলিস্তিন ভূখণ্ডে উত্তেজনা চলে আসছে। ফিলিস্তিনিরা ওই আদেশে প্রতিবাদে জেরুসালেমসহ পশ্চিম তীর, গাজা ও ইসরাইলে বিক্ষোভ অনুষ্ঠান করে আসছে। আলজাজিরা ও আনাদোলু
ইসরাইল ১৯৬৭ সালে ছয় দিনের যুদ্ধে পুরো জেরুসালেম দখলের স্মরণে সোমবার জেরুসালেম দিবস পালন করার পরিকল্পনা নেয়। ওই দিবস উদযাপন করা উগ্র ইহুদিদের মসজিদুল আকসায় তাণ্ডব চালানোর আশঙ্কায় ফজরের পরপরই বিপুল ফিলিস্তিনি মসজিদে অবস্থান নেন। মসজিদের প্রবেশ পথে ব্যারিকেড দিয়ে তারা সেøাগান দিতে থাকেন এবং মসজিদ ছেড়ে না যাওয়ার ঘোষণা দেন।
বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ রাবার বুলেট, টিয়ার গ্যাস ও স্টান গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। জবাবে বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছুড়তে থাকেন। মসজিদুল আকসায় ইসরাইলি বাহিনীর হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস ইসরাইলকে ‘ফিলিস্তিনি মুসল্লিদের বিরুদ্ধে ধর্মীয় যুদ্ধ’ চালানোর অভিযোগে অভিযুক্ত করেছে। জেরুসালেমে সংগঠনটির মুখপাত্র মুহাম্মদ হামাদা বলেন, ‘মসজিদুল আকসায় তাণ্ডব ও মুসল্লিদের বিরুদ্ধে হামলায় যা হয়েছে তা জায়নবাদী দখলদারিত্বের নিষ্ঠুরতার প্রমাণ।’
তিনি ফিলিস্তিনিদের মসজিদুল আকসায় ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের প্রবেশ প্রতিহত করতে স্থির থাকার আহ্বান জানান। হামাস মুখপাত্র আরো বলেন, মসজিদুল আকসায় আক্রমণের জন্য ইসরাইল দায়ী থাকবে। এর জন্য তাদের ‘উচ্চমূল্য পরিশোধ’ করতে হবে বলে জানান তিনি। জেরুসালেমে অব্যাহত সংঘর্ষের পরিপ্রেক্ষিতে নিউইয়র্কের স্থানীয় সময় সোমবার জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের এক বৈঠক আহ্বান করা হয়েছে। পরিষদের ১৫ সদস্যের দুই-তৃতীয়াংশের অনুরোধে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। জাতিসঙ্ঘের মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস জেরুসালেমে সহিংসতায় ইসরাইলের প্রতি ‘শান্তিপূর্ণ সমাবেশের স্বাধীনতার অধিকারের প্রতি সর্বোচ্চ সংযম ও শ্রদ্ধা প্রদর্শনের’ আহ্বান জানিয়েছেন। সোমবার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এই আহ্বান জানান তিনি।
১৯৬৭ সালে ছয় দিনের আরব-ইসরাইল যুদ্ধের পর মসজিদুল আকসাসহ পূর্ব জেরুসালেম ইসরাইল দখল করে নেয়। আন্তর্জাতিক আইনে অধিকৃত ভূমি হিসেবে বিবেচিত হলেও ইসরাইল শহরটিকে একীভূত করে নেয় এবং অখণ্ড জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করে। বিভিন্ন সময় শহরটিতে থাকা ফিলিস্তিনি বাসিন্দাদের উচ্ছেদ করে ইসরাইলি ইহুদিদের শহরে আবাসনের প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ।
ফিলিস্তিনি অধ্যুষিত পূর্ব জেরুসালেমের এক মহল্লা থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের উচ্ছেদ করে ইসরাইলি বসতি স্থাপনে জেরুসালেমের ডিস্ট্রিক্ট কোর্টের গত ২৫ এপ্রিল দেয়া আদেশের পর থেকেই জেরুসালেমসহ পুরো ফিলিস্তিন ভূখণ্ডেই অস্থিরতা চলছে। অধিকৃত পশ্চিম তীর ও গাজা উপত্যকাসহ ইসরাইল ভূখণ্ডের অভ্যন্তরের ফিলিস্তিনি বাসিন্দারাও এর প্রতিবাদ করে আসছেন।
ফিলিস্তিনিদের প্রতিবাদের জেরে ইসরাইলি বাহিনী শুক্রবার ও শনিবার, পরপর দুই রাতে মসজিদুল আকসাসহ জেরুসালেমের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভকারী ফিলিস্তিনিদের ওপর আক্রমণ চালায়। ইসরাইলি হামলায় দুই দিনে ৩০০ কাছাকাছি বিক্ষোভকারী আহত হয়েছেন। একই সাথে ইসরাইলি বাহিনী বিপুল ফিলিস্তিনি বাসিন্দাকে গ্রেফতার করে।
আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে হামলার নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ
কূটনৈতিক প্রতিবেদক জানান, আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে ফিলিস্তিনিদের ওপর দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা, শেখ জারাহ এলাকা থেকে ফিলিস্তিন পরিবারগুলোকে জোরপূর্বক উচ্ছেদ এবং দখলকৃত জায়গায় ইসরাইলের বেসামরিক মানুষকে বসতি স্থাপনের জন্য পাঠানোর তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ।
গতকাল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ মনে করে ইসরাইলি বাহিনীর এসব ঘটনা মানবাধিকার এবং আন্তর্জাতিক আইন ও চুক্তির চরম লঙ্ঘন। এটি বিশ্বব্যাপী নিপীড়িত মানুষের অনুভূতিতে আঘাত করেছে। এ ধরনের সন্ত্রাসী হামলা ঠেকানো, দখলকৃত এলাকায় ব্যক্তিগত সম্পত্তি জোরপূর্বক জব্দ করা এবং যুদ্ধাপরাধ হতে পারে- এমন কর্মকাণ্ড থেকে ইসরাইলকে বিরত রাখার কার্যকর পদক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি বাংলাদেশ আহ্বান জানাচ্ছে। পূর্ব জেরুসালেমকে রাজধানী করে ১৯৬৭ সালের আগের সীমান্ত অনুযায়ী দুই রাষ্ট্র সমাধানের ভিত্তিতে ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের প্রতি বাংলাদেশ দৃঢ় অবস্থান ব্যক্ত করছে।



আরো সংবাদ