১২ এপ্রিল ২০২১
`

সঙ্কট থেকে উত্তরণের একমাত্র পথ জনগণের ঐক্য : ড. কামাল

-

গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, দেশে আজ গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের পরিবর্তে দুর্নীতি-দুঃশাসনের স্বর্গরাজ্য গড়ে উঠেছে। জনগণের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। সামনে অগ্রসর হওয়া ছাড়া জনগণের আর কোনো বিকল্প নেই। বর্তমান সংকট থেকে উত্তরণের একমাত্র পথ জনগণের ঐক্য।
গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন হলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ সব কালো আইন বাতিল এবং গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও ভোটাধিকার আদায়ে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার দাবিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে ড. কামাল হোসেনের লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান গণফোরামের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মোকাব্বির খান এমপি। আরো উপস্থিত ছিলেন- আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আওম শফিকউল্ল্যা, মোস্তাক আহমেদ, অ্যাডভোকেট সুরাইয়া বেগম, অ্যাডভোকেট জানে আলম, সেলিম আকবর প্রমুখ। লিখিত বক্তব্যে ড. কামাল হোসেন বলেন, আজ যারা নিজেদের নির্বাচিত দাবি করে দেশ শাসন করছে, তাদের প্রতি জনগণের আস্থা, বিশ্বাস ও সমর্থন নেই। জনবিচ্ছিন্ন এ সরকার জনগণকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করার অপকৌশল হিসেবে কালাকানুন জারি করেছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন তারই অংশ বিশেষ। এ আইনের কথা বলে মানুষের বাকস্বাধীনতা ও চিন্তা স্বাধীনতার ওপর আঘাত করা হচ্ছে। এ অবস্থা থেকে আমাদের সমাজকে পুরোপুরিভাবে মুক্ত করতে হবে। তিনি বলেন, দেশের দুর্নীতিবাজ রাজনীতিবিদ, আমলা ও ব্যবসায়ীদের সমন্বয়ে গড়ে উঠা অশুভ সিন্ডিকেটের কারণে চাল, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে এবং মুক্ত চিন্তার উপর আঘাত করা হচ্ছে।
ড. কামাল আরো বলা হয়, একটি চক্রের মাধ্যমে ব্যাংক লুটপাট, শেয়ারবাজার ধ্বংস এবং বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ করে এবং জনগণকে বঞ্চিত করে লাখ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করা হয়েছে। যখন আইন প্রণয়নে ও আইনের নিরপেক্ষ প্রয়োগে জনগণের কার্যকর অংশগ্রহণ অনুপস্থিত থাকে তখনই রাষ্ট্রের মালিক জনগণ অসহায় হয়ে পড়ে। তাই নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে পছন্দের সৎ প্রতিনিধি নির্বাচিত করতে পারলেই আইন প্রণয়নে ও আইনের নিরপেক্ষ প্রয়োগে জনগণের ভূমিকা নিশ্চিত করা সম্ভব।
আগামী রমজানের আগেই গণফোরাম দেশব্যাপী গণসংযোগ শুরু করবে জানিয়ে রাজনৈতিক অব্যবস্থাপনা ও অর্থনৈতিক লুটপাটের বিরুদ্ধে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান এ প্রবীণ নেতা। এক প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল বলেন, গণফোরাম নামে দুটো দল আছে, তা বলার সুযোগ নেই। কিছু লোক বেরিয়ে গেছে। তারা বেরোতেই পারে। কাউকে তো বাধ্য করে রাখা যায় না। আমরা যারা গণফোরাম করেছি এবং এখনো করে যাচ্ছি, তারা জনগণের ঐক্যের ওপর ভরসা করেই মাঠে আছি।



আরো সংবাদ