০৪ মার্চ ২০২১
`

যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সরাসরি সম্পর্ক চায় বাংলাদেশ

অন্য দেশ কিভাবে দেখতে চায় তা বিবেচ্য নয়; ওয়েবিনারে পররাষ্ট্র সচিব
-

বাংলাদেশের সাথে সরাসরি সম্পর্ক রাখতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের কৌশলগত অংশীদার হচ্ছে ভারত। এই অঞ্চলের অন্য দেশগুলোর সাথে ওয়াশিংটন কী ধরনের সম্পর্ক রাখবে, সেটি অনেকাংশে নির্ভর করে দিল্লির ওপর। কিন্তু আমরা চাই যুক্তরাষ্ট্র যেন সরাসরি বাংলাদেশের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে। অন্য কোনো দেশ ঢাকা-ওয়াশিংটন সম্পর্ক কিভাবে দেখতে চায়, সেটি যেন বিবেচনা না করে।
গতকাল মঙ্গলবার ‘বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক : সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ’ বিষয়ক এক ওয়েবিনারে পররাষ্ট্র সচিব এসব কথা বলেন। ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রীংলার সাথে বৈঠকের মাত্র কয়েক দিন আগে মাসুদ বিন মোমেন এই মন্তব্য করলেন। আগামী শুক্রবার দিল্লিতে বাংলাদেশ-ভারত পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। এই বৈঠকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আসন্ন ঢাকা সফর নিয়েও আলোচনা হবে।
বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউট (বিইআই) আয়োজিত ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন। এতে আরো অংশ নেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান ও যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার। অনুষ্ঠানে ধারণাপত্র উত্থাপন করেন রাষ্ট্রদূত ফারুক সোবহান। সঞ্চালনা করেন বিইআই প্রেসিডেন্ট রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন কবির।
যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে সাংঘর্ষিক সম্পর্ক বাংলাদেশের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে উল্লেখ করে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও চীন যদি একে অপরের প্রতি বৈরী মনোভাব পোষণ করে, তবে এই দুই শক্তির মধ্যে ভারসাম্য রক্ষা করতে বাংলাদেশকে কঠিন অবস্থায় পড়তে হতে পারে। তিনি বলেন, বাইডেন প্রশাসন ইন্দো-প্যাসিফিক স্ট্র্যাটেজির অগ্রাধিকারের ক্ষেত্রে বড় ধরনের পরিবর্তন আনতে পারে। ইন্দো-প্যাসিফিক স্ট্র্যাটেজি এবং চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোডÑ দুই উদ্যোগের সাথেই বাংলাদেশ জড়িত। আমরা বিশ্বাস করি, কানেক্টিভিটি ও পরিবহন অবকাঠামো সম্প্রসারণের মাধ্যমে উভয় উদ্যোগ বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের সুযোগ সৃষ্টি করবে।
মোমেন বলেন, বাংলাদেশ বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের আরো সহযোগিতা প্রত্যাশা করে। জিএসপি সুবিধা পুনর্বহাল, বাণিজ্য বহুমুখীকরণ ও মার্কিন বিনিয়োগ চায় বাংলাদেশ। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আবারো বহুপক্ষীয় ব্যবস্থায় ফিরে এসেছে। এটা বাংলাদেশের জন্য বেশ ভালো খবর। বিশেষ করে জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত প্যারিস চুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের ফিরে আসাটি বাংলাদেশের জন্য খুবই ইতিবাচক।
এ দিকে বাংলাদেশের সাথে সম্পর্কের উন্নতি করতে চাইলে যুক্তরাষ্ট্রকে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক উপদেষ্টা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির সাথে গতকাল রাতে তার টেলিফোনে আলাপ হওয়ার কথা রয়েছে বলে জানান ড. মোমেন।



আরো সংবাদ


রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা বর্তমান সরকারের মুক্তিযুদ্ধের সংজ্ঞা আংশিকভাবে বিতর্কিত ও অগ্রহণযোগ্য : ইব্রাহিম জিডিপি বাড়লেও নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক আছে : তাজুল ইসলাম আওয়ামী লীগের কর্মসূচিতে বাধা, দুই এসআই প্রত্যাহার প্রথম দিন চলল স্পিনারদের দাপট ‘এইচ টি ইমামের মতো কর্মনিষ্ঠ মানুষ সমাজে বিরল’ বাংলা একাডেমিতে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ নিয়ে একক বক্তৃতানুষ্ঠান জমি নিয়ে বিরোধের জেরে হত্যা : ৮ জনের যাবজ্জীবন করোনার নতুন রূপ মোকাবিলায় টিকার দ্রুত অনুমোদনে চুক্তি স্বাধীন প্রতিরক্ষা শিল্প গড়তে কাজ করছে তুরস্ক বনানীতে এইচ টি ইমামের দাফন সম্পন্ন

সকল