০৮ মার্চ ২০২১
`

স্থগিত অ্যাকাউন্টে কড়া তদারকি

-

দুর্নীতির অভিযোগে বিচারাধীন ব্যক্তির স্থগিত হওয়া ব্যাংক হিসাবে (অ্যাকাউন্ট) বাড়তি তদারকি করা হচ্ছে। এসব ব্যক্তির হিসাবে যাতে কোনো লেনদেন না হয় সেজন্য ব্যাংকগুলো থেকেও সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। নতুন প্রজন্মের একটি ব্যাংকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠায় এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কোনো ব্যক্তির হিসাবে অস্বাভাবিক লেনদেন হলে, বা সন্দেহজনক কোনো লেনদেনের অভিযোগ পাওয়া গেলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ব্যাংক হিসাবে লেনদেনের ওপর প্রথমে এক মাসের জন্য স্থগিতাদেশ দিতে পারে। এভাবে তদন্ত সাপেক্ষে পর পর সাত মাস পর্যন্ত কেন্দ্রীয় ব্যাংক সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ব্যাংক হিসাবের লেনদেন স্থগিতাদেশ রাখতে পারে। তদন্তে সন্দেহজনক বা অস্বাভাবিক লেনদেনের অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হলে অধিকতর তদন্তের জন্য তা দুদকে পাঠানো হয়। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তা উচ্চ আদালতে পাঠানো হয়। অভিযোগ নিষ্পত্তি হওয়ার আগ পর্যন্ত আদালত থেকে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ব্যাংক হিসাবের লেনদেন অনির্দিষ্টকাল স্থগিত করে থাকে। লেনদেন স্থগিত থাকা অবস্থায় এসব ব্যাংক হিসাবে কোনোভাবেই লেনদেন করার সুযোগ থাকে না।
সাম্প্রতিকালে পি কে হালদারের ব্যাংক কেলেঙ্কারির তথ্য উঠে আসায় উচ্চ আদালত থেকে পি কে হালদারসহ তার সহযোগী সন্দেহভাজনদের ব্যাংক হিসাবের লেনদেনের ওপর স্থগিতাদেশ দেয়া হয়েছে। সর্বশেষ এক সাথে পি কে হালদারের সহযোগী সন্দেহজনক ৮৩ জনের ব্যাংক হিসাবে লেনদেনের ওপর স্থগিতাদেশ দেয়া হয়।
আদালতে সম্প্রতি দাখিল করা বাংলাদেশ আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিটের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পি কে হালদার ও তার ৮৩ সহযোগী এবং ৪৩টি নামসর্বস্ব প্রতিষ্ঠানের নামে ঋণ দিয়ে একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচার করা হয়েছে। এসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব এরই মধ্যে ফ্রিজ অবস্থায় রয়েছে। এতে বলা হয়, ২০১৫ সালে নামসর্বস্ব ও কাগুজে প্রতিষ্ঠানের নামে লেয়ারিংয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও ক্যাপিটাল মার্কেট থেকে ২ হাজার ৪৬৭ কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়। প্রতিষ্ঠানটির বিতরণ করা ঋণের পরিমাণ ৩ হাজার ৬৩৪ কোটি টাকা। আত্মসাৎ করা অর্থ বিতরণ করা ঋণের ৬৭ দশমিক ৯১ শতাংশ। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, সার্বিক পর্যালোচনায় ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের পরিচালনা পর্ষদ, শীর্ষ ব্যবস্থাপনা, অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা বিভাগ, চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার, ক্রেডিট ডিভিশন কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় পি কে হালদার ও তার সহযোগীরা ৮৩ ব্যক্তির ঋণের আড়ালে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও জালিয়াতির মাধ্যমে আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির দুই-তৃতীয়াংশের বেশি অর্থ আত্মসাৎ করেছেন।
এ দুর্নীতি ও জালিয়াতি মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে অপরাধ। চারটি নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে পি কে হালদার ও তার সহযোগীদের আত্মসাৎ করা অর্থের পরিমাণ কয়েক হাজার কোটি টাকা। প্রতিষ্ঠানগুলো হলোÑ ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড, ফাস্ট ফাইন্যান্স, পিপলস লিজিং ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স। নামসর্বস্ব প্রতিষ্ঠান তৈরি করে নিজ আত্মীয়-স্বজন ও সহযোগীদের মাধ্যমে তিনি এ অর্থ আত্মসাৎ করে কানাডায় পালিয়ে যান। কানাডা, সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশে পাচার করেন কয়েক হাজার কোটি টাকা। এসব প্রতিষ্ঠানের অর্থ পাচার নিয়েও তদন্ত অব্যাহত রেখেছে দুদক ও বিএফআইইউ।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পি কে হালদার ও তার সহযোগী সন্দেহজনক ৮৩ জন ছাড়াও বিভিন্ন সময়ে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে বিচারাধীন মামলাগুলো এখনো নিষ্পত্তি হয়নি। আর যতক্ষণ পর্যন্ত মামলা নিষ্পত্তি না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত স্থগিত থাকা ব্যাংক হিসাবে কোনো লেনদেন করা যাবে না। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে দুর্নীতির অভিযোগে সন্দেহজনক এক ব্যক্তির স্থগিত করা ব্যাংক হিসাবে লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। এমন অভিযোগের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ নির্দেশ সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কার্যকর করেছে। এরপর থেকেই ব্যাংকগুলো স্থগিত থাকা ব্যাংক অ্যাকাউন্টের ওপর বাড়তি সতর্ক দৃষ্টি রাখা হয়েছে। স্থগিত থাকা ব্যাংক হিসাবগুলোতে কোনোভাবেই যাতে লেনদেন না হয় সেজন্য কয়েকটি ব্যাংক তাদের শাখা ব্যবস্থাপকদের নির্দেশ দিয়েছে।
সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, স্থগিত থাকা ব্যাংক হিসাবে কোনো লেনদেন হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়। একই সাথে আদালতের নির্দেশ অমান্যের দায়েও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ কারণে এসব অ্যাকাউন্টে কোনোভাবে লেনদেন যাতে না হয় সেজন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকেও সতর্ক দৃষ্টি রাখা হয়েছে বলে ওই সূত্র জানায়।

 



আরো সংবাদ


সাতক্ষীরায় ২ মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৩ হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত ফরাসি বিলিয়নিয়ার এমপি পরমাণু সমঝোতা পুনর্বহাল করতে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আলোচনায় প্রস্তুত রাশিয়া তেজস্বিনী কাদম্বিনী রুহিয়ায় বাঁশঝাড় থেকে লাশ উদ্ধার তুরস্কে তৈরি সৌদি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল হাউছি বিদ্রোহীরা ইকুয়াটোরিয়াল গিনিতে বিস্ফোরণে নিহত ২০, আহত ৬ শতাধিক ১৫০ রোহিঙ্গা মুসলমানকে আটক করেছে ভারত, ফেরত পাঠানোর আশঙ্কা সাতক্ষীরায় জমিজমা বিরোধে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন করোনাভাইরাস : প্রথম রোগী শনাক্তের ১ বছর পর পরিস্থিতি এখন কেমন? সমস্ত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত কোনো আলোচনা হবে না : ইরান

সকল