২৭ জানুয়ারি ২০২১
`

শাহজাহানপুরে পিটিয়ে হত্যা যুবককে

-

রাজধানীর শাহজাহানপুরে পূর্বশত্রুতার জের ধরে মোহাম্মদ সুজন (২২) নামে এক দোকান কর্মচারীকে দুর্বৃত্তরা পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার পর পুলিশ দু’জনকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার শাহজাহানপুর থানার উপপরিদর্শক আবুল আনছার বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, নিহত সুজনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
তিনি জানান, গত বুধবার সকালে সুজন তার বন্ধু মাসুমের সাথে শাহজাহানপুর রেল কলোনিতে ঘুরতে বের হয়। সেখানেই এরশাদ ও তার ভাইসহ একদল দুর্বৃত্ত কাঠ, বাঁশ দিয়ে তাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্বজনরা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান। সেখানে পরিস্থিতির উন্নতি না হলে স্বজনরা তাকে পান্থপথের বেসরকারি একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে সেখান থেকে সুজনের লাশ খিলগাঁওয়ের তারাবাগের বাসায় নিয়ে যান স্বজনরা। খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ থানায় নিয়ে আসে।
এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সুজনের পিঠে-কপালে ও কানের নিচে কাটা চিহ্ন রয়েছে। থুঁতনি ও গলায় নীলা ফোলা চিহ্নও রয়েছে। সুজনের হত্যার কারণ সম্পর্কে সাব-ইন্সপেক্টর আবুল আনছার বলেন, সুজনের পরিবারের কাছ থেকে জানতে পেরেছি পূর্ব-শত্রুতার জের ধরে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় তার পরিবার থানায় মামলা করেছে। অভিযুক্ত এরশাদের মা ও বোনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কী নিয়ে তাদের মধ্যে শত্রুতা ছিল তা জানার চেষ্টা করছি।
নিহতের মামাতো ভাই মো: কালু মিয়া জানান, সুজন খিলগাঁওয়ের তারাবাগের দুই নম্বর রোড এলাকায় পরিবারের সাথে থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁওয়ে উপজেলার চৌরাপাড়ার। চার ভাই তিন বোনের মধ্যে সুজন ছিল দ্বিতীয়। সে শাহজাহানপুর এলাকায় ফার্নিচারের দোকানে কাজ করত। পুলিশের ধারণা মাদক সেবন নিয়ে সুজন ও এরশাদের মধ্যে দ্বন্দ্বের জের ধরে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।



আরো সংবাদ