০২ ডিসেম্বর ২০২০

ওয়াকিটকির ব্যবহারকারীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে

ওয়াসিফের মামলার তদন্ত ডিবিতে; অস্ত্র ও মাদক মামলায় সেলিমপুত্র এরফানের ১৪ দিনের রিমান্ড আবেদন
-

সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের বাড়ি থেকে ওয়াকিটকি উদ্ধার হলেও তার ব্যবহারকারীরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে। স্থানীয় সূত্র বলেছে, সেলিমপুত্র এরফানের বাহিনীর সদস্যরাই এই ওয়াকিটকি ব্যবহার করতেন। এলাকা নিয়ন্ত্রণের জন্যই তাদের হাতে এই ওয়াকিটকি দেয়া হতো। স্থানীয় সূত্র জানায়, সেলিমের বাসা থেকে যে পরিমাণ ওয়াকিটকি উদ্ধার হয়েছে তার চেয়ে আরো বেশি বাইরে রয়েছে, যা এরফান বাহিনীর হাতে হাতে আছে। এ দিকে সেলিমপুত্র এরফানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলার তদন্ত গতকাল মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল তাকে ১৪ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে মহানগর ডিবি পুলিশ।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয় সূত্র বলেছে, সেলিমপুত্র এরফানের সাথে যারা আসামি এবং গ্রেফতার হয়েছেন তারা আসলে হাজী সেলিমের নিরাপত্তারক্ষী। দীর্ঘ দিন ধরেই তারা হাজী সেলিমের সাথে আছেন। হাজী সেলিম বাড়িতে থাকলে এরফান ওই রক্ষীদের সাথে নিয়ে বের হতেন। উদ্ধার হওয়া ৩৮টি ওয়াকিটকি হাজী সেলিম, তার বড় ছেলে সোলায়মান সেলিম এরফান ও এরফানের স্টাফরা ব্যবহার করতেন। হাজী সেলিমের ব্যক্তিগত পিএস হিসেবে পরিচিত সোহেল, পোস্তার মদিনা টাওয়ারের দফতর সম্পাদক এমরান চৌধুরী। হাজী সেলিমের স্টাফদের মধ্যে সবচেয়ে দাপটে চলা এই এমরান এখন গা ঢাকা দিয়ে আছেন। সোলায়মান সেলিমের পিএস মোহাম্মদ হাসান ও এরফানের পিএস নাসির ও গা ঢাকা দিয়ে আছেন।
এ দিকে হাজী সেলিমের ছেলে এরফান সেলিম ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধরের মামলাটি তদন্তের ভার গোয়েন্দা পুলিশকে (ডিবি) দেয়া হয়েছে।
ধানমন্ডি থানার ওই মামলায় বুধবার এরফান, তার দেহরক্ষী জাহিদুল মোল্লার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। এ মামলায় গ্রেফতার আরেক আসামি হাজী সেলিমের প্রটোকল কর্মকর্তা এ বি সিদ্দিক দিপুরও আগের দিন তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয়েছিল।
পুলিশের ধানমন্ডি জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার আবদুল্লাহিল কাফি সাংবাদিকদের বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে তিন আসামিসহ মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
এ দিকে র্যাবের দায়ের করা অস্ত্র ও মাদক আইনের মামলায়ও এরফান ও জাহিদুলকে সাত দিন করে মোট ১৪ দিন রিমান্ডে চেয়ে আবেদন করা হয়েছে বলে চকবাজার থানার ওসি মওদুত হাওলাদার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদেরকে এসব মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ১৪ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আবেদন আদালতে পাঠানো হয়েছে।
গত রোববার রাতে ল্যাবএইডের সামনে নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট মো: ওয়াসিফ আহমেদ খানকে মারধরের ঘটনায় সোমবার ধানমন্ডি থানায় এরফান ও তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে মামলা করেন ওয়াসিফ। তাকে মারধর ছাড়াও তার স্ত্রীর গায়ে হাত তোলার অভিযোগ করেন তিনি। এরফানের সঙ্গীরা ওয়াসিফের স্ত্রীকে তুলে নেয়ারও হুমকি দেন।

 

 


আরো সংবাদ