২৮ অক্টোবর ২০২০
আক্রান্ত : ৩৩,৩৬৮,৪২৪ মৃত্যু : ১,০০৩,২৮১; ১০০ ভাগ কার্যকর হবে না ভ্যাকসিন

১০ লাখ ছাড়াল মৃতের সংখ্যা

মহামারীতে তরুণদের ক্ষতি নিয়ে উদ্বেগ; ভারতে সংক্রমণ ৬০ লাখ ছাড়াল; জি-২০ সম্মেলন হবে ভার্চুয়ালি
-

দেশ আক্রান্ত মৃত্যু
যুক্তরাষ্ট্র ৭,৩২৩,৬৫৫ ২,০৯,৪৮৮
ভারত ৬,০৮৭,৪৫৪ ৯৫,৬৭৮
ব্রাজিল ৪,৭৩২,৩০৯ ১,৪১,৭৭৬
রাশিয়া ১,১৫৯,৫৭৩ ২০,৩৮৫
কলম্বিয়া ৮,১৩,০৫৬ ২৫,৪৮৮
পেরু ৮,০৫,৩০২ ৩২,২৬২
স্পেন ৭,৩৫,১৯৮ ৩১,২৩২
মেক্সিকো ৭৩০,৩১৭ ৭৬,৪৩০
আর্জেন্টিনা ৭,১১,৩২৫ ১৫,৭৪৯
দ. আফ্রিকা ৬,৭০,৭৬৬ ১৬,৩৯৮
গত ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম শনাক্ত হওয়ার ৯ মাস পর বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে প্রাণহানির সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। রোববার তিন হাজার ৮০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা ১০ লাখ ২ হাজার ৯৮৫ জন।
বিশ্বের ২১৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি ৩৩ লাখ ৪২ হাজার ৯৮৫ জন। এক দিনে সারা বিশ্বে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় দুই লাখ ৫২ হাজার মানুষ। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে দুই কোটি ৪৬ লাখ ৫৬ হাজার ১৫৩ জন।
এখনো সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত শনাক্তের ঘটনা যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দুই লাখ ৯ হাজার ৪৫৩ আর আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৭৩ লাখ ২১ হাজার ৩৪৩। ব্রাজিলে মৃতের সংখ্যা এক লাখ ৪১ হাজার ৭৭৬ জন। ব্রাজিলে এই ভাইরাসে আক্রান্ত ৪৭ লাখ ৩২ হাজার ৩০৯ জন। মেক্সিকোতে মৃতের সংখ্যা ৭৬ হাজার ৪৩০ জন ও ব্রিটেনে ৪৬ হাজার ৭০৬ জন।
খবর সিনহুয়া, বিবিসি, রয়টার্স, আনন্দবাজার পত্রিকা, ইন্ডিয়া টুডে, ওয়াশিংটন পোস্ট, এএফপি, ডয়চে ভেলে, ওয়ার্ল্ডোমিটার ও এএফপির।
করোনা প্রকৃতি থেকেই সৃষ্টি দাবি ডব্লিউএইচওর : করোনাভাইরাস ল্যাবে তৈরি হয়নি। এটি প্রকৃতি থেকেই সৃষ্টি হয়েছে। বললেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মহাপরিচালক টেড্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস। তিনি বলেছেন, ডব্লিউএইচও বিজ্ঞান এবং প্রমাণে বিশ্বাস করে। সে কারণেই আমরা বলে থাকিÑ বিজ্ঞান, সমাধান এবং সংহতি। কোভিড-১৯ বা সার্স-কোভ-২ কোনো ল্যাব থেকে নয়; বরং প্রাকৃতিকভাবেই উদ্ভূত হয়েছিল, এটা নিয়ে বহু গবেষণা হয়ে গেছে। প্রমাণিতও হয়েছে।
মহামারীতে তরুণদের ক্ষতি নিয়ে উদ্বেগ : মহামারীর মধ্যে তরুণরা কঠিন সময় পার করছে। এ সময়ে যুক্তরাজ্যে অন্তত ১০ লাখ তরুণের জরুরি সাহায্যের প্রয়োজন পড়বে বলে মনে করেন যুবরাজ প্রিন্স চার্লস। দ্য টেলিগ্রাফে লেখা এক আর্টিকেলে মহামারীর মধ্যে তরুণদের নিয়ে এভাবেই নিজের উদ্বেগ প্রকাশ করেন ব্রিটিশ যুবরাজ। প্রিন্স চার্লস লেখেন, ‘সবাই বর্তমানে কঠিন সময় পার করছে। তবে বিশেষ করে তরুণদের জন্য এটা খুবই কঠিন সময়।’ তিনি বর্তমান পরিস্থিতিকে ‘ওই সময়ের সাথে তুলনা করেছেন যখন কোথাও আশার আলো দেখতে পাওয়া যায় না’। মহামারীর কারণে সারা বিশ্বের বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন, বেড়েছে বেকারত্ব। এ অবস্থাকে তিনি সত্তরের দশকের সাথে তুলনা করেছেন। যখন যুক্তরাজ্যে বেকারত্বের হার অনেক বেড়ে গিয়েছিল।
ভারতে সংক্রমণ ৬০ লাখ ছাড়াল : ভারতে শনাক্ত করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যা ৬০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে আর মৃত্যু হয়েছে ৯৫ হাজারেরও বেশি লোকের। শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৮২ হাজার ১৭০ জনের দেহে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব শনাক্ত হয়েছে। এতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬০ লাখ ৭৪ হাজার ৭০২ জনে। কোভিড-১৯-এ শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে আরো ১০৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। মহামারীটিতে মৃত্যুর সংখ্যা ৯৫ হাজার ৫৭৪-এ দাঁড়িয়েছে। দেশটিতে করোনায় মৃত্যুর হার প্রায় ১ দশমিক ৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত ৫০ লাখ ১৬ হাজার ৫২০ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। দেশটিতে মোট আক্রান্তের ৮২ শতাংশই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। দেশটিতে চলতি মাসে দৈনিক সংক্রমণ প্রতিদিনই প্রায় ৯০ হাজার, যা অন্য দেশগুলোর তুলনায় অনেক বেশি।
ভারতে যেভাবে এলো করোনা : ভারতে কিভাবে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ল তা নিয়ে অনেক দিন ধরেই কাজ করছেন গবেষকরা। বিভিন্ন দেশ থেকে ভারতে ফেরা প্রবাসীরাই করোনা ছড়িয়েছে। সম্প্রতি এমন তথ্যই জানিয়েছে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (আইআইটি)। গবেষকরা বলছেন, মূলত দুবাই ও ব্রিটেন থেকে আগত ভারতীয়রাই দেশে করোনা ছড়িয়েছে। এই প্রবাসী ভারতীয়রাই দেশে করোনা ছড়ানোর মূল উৎস হিসেবে কাজ করেছেন। জার্নাল অব ট্রাভেল মেডিসিনে এই তথ্য দিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। সমীক্ষাটি জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক ফ্লাইট সময় মতো বন্ধ করে দিলে ভারতে এত বেশি আকারে করোনা ছড়িয়ে পড়ত না। তামিলনাড়–, দিল্লি ও অন্ধ্রপ্রদেশ, মূলত এই তিন রাজ্য থেকেই পুরো দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা। স্থানীয়ভাবে করোনা ছড়িয়েছে গুজরাট, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, কেরালা, জম্মু-কাশ্মির ও কর্ণাটকে।
কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে অনুদান বৃদ্ধি ব্রিটেনের : করোনা মহামারী প্রতিরোধে টিকা সরবরাহ নিশ্চিতে ‘কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে’ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে দেয়া অনুদান ৩০ শতাংশ বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তিনি বলেছেন, যুক্তরাজ্য আগামী চার বছরে ডব্লিউএইচও’কে ৪৩৩ মিলিয়ন ডলার অনুদান দেবে। দরিদ্র দেশগুলো করোনা প্রতিরোধে পাবে কোভ্যাক্স কর্মসূচির বড় অঙ্কের অনুদান। ভবিষ্যতে মহামারী রুখতে পাঁচ দফা প্রস্তাবনার পাশাপাশি সমন্বিত গবেষণার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন আরো বলেন, বিশ্বজুড়ে রোগ-ব্যাধির বিরুদ্ধে ডব্লিউএইচও’র ভূমিকা এখনো গুরুত্বপূর্ণ। সে জন্যই আগামী চার বছরের জন্য অনুদান ৩০ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কোভ্যাক্স কর্মসূচিতেও ৫৭১ মিলিয়ন পাউন্ড বরাদ্দ করেছি। এর মধ্যে ভ্যাকসিনের সুষম বণ্টন নিশ্চিতে ৫০০ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যবহার হবে।
বিমানবন্দরে কোভিড শনাক্ত করছে কুকুর : ফিনল্যান্ডের হেলসিংকি বিমানবন্দরে কোভিড-১৯ রোগী শনাক্তে স্নিœফার ডগ (কুকুর) ব্যবহার করছে দেশটির সরকার। যাত্রীদের গন্ধ শুঁকে করোনাভাইরাস শনাক্তের কাজে পরীক্ষামূলকভাবে এসব কুকুর ব্যবহার করা হচ্ছে। ফিনিশ গবেষকরা ধারণা করছেন, স্নিফার ডগের ঘ্রাণশক্তি বেশ কার্যকর। করোনাভাইরাস শনাক্তে এ ধরনের পরীক্ষা বেশ দ্রুত ও কার্যকর বিকল্প ব্যবস্থা হতে পারে। এতে ব্যয়ও কম হবে। স্নিফার ডগ দিয়ে করোনা শনাক্তের প্রকল্পটি দেখাশোনা করছেন হেলসিংকি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আন্না হিলম-জার্কম্যান। তার মতে, এটি খুব আশাব্যঞ্জক। একটি কুকুর ১০ সেকেন্ডের মধ্যে করোনভাইরাস শনাক্ত করতে সক্ষম এবং পুরো প্রক্রিয়াটি শেষ হতে এক মিনিটেরও কম সময় নেবে।
মৃতদের স্মরণে দৌড়ে ইতালির প্রথম করোনা রোগী : ইতালিতে করোনায় প্রাণ হারানো ব্যক্তিদের স্মরণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘রিলে রেস’। কদোগনো শহরে ১৮০ কিলোমিটার রিলে রেসে অংশ নিলেন ইতালির প্রথম করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তি মাতিয়া মায়েস্ত্রি (৩৮)। রোববার ভোইউগানোতে এ দৌড় শেষ হবে। দেশটির একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ব্যবস্থাপক পদে কাজ করা মায়েস্ত্রির শরীরে গত ২১ ফেব্রুয়ারি করোনা শনাক্ত হয়। মাতিয়া মায়েস্ত্রি প্রায় এক সপ্তাহের বেশি সময় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ছিলেন। পরে তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেন। ফলে তার রিলে রেসে দৌড়ানোর বিষয়টিকে আশাবাদের প্রতীক হিসেবে দেখা হচ্ছে। ইতালিতে এখন পর্যন্ত সংক্রমিতের সংখ্যা ৩ লাখ ৮ হাজার ১০৪। দেশটিতে মারা গেছেন ৩৫ হাজার ৮০৮ জন।
করোনা ওয়ার্ডের ভেতরেই বিয়ের উৎসব : নিজের বিয়ের অনুষ্ঠানেই অংশ নেয়া হয়ে ওঠেনি তার। বিয়ের মাত্র এক দিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হন ১৯ বছর বয়সী ফাজিয়া। ভীষণ মন খারাপের দিনগুলোকে একটু রঙিন করে তুলতে হাসপাতালেই আয়োজন করা হলো বিয়ে অনুষ্ঠানের। হবু বউ জ্বর নিয়ে কেরালার হাসপাতালে ভর্তি হলে তার শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়। পরে মাটনচেরি টাউন হলের সেই কোভিড সেন্টারে ঘটে এমন ঘটনা। বুধবার হাসপাতালে ভর্তি হন ফাজিয়া। তার পরের দিন নিয়াজের সাথে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল তার। ফাজিয়া বলেন, বিয়ের জন্য পোশাক-আশাক নিতেই বাড়ির বাইরে যাচ্ছিলাম আমি, তখনই জানতে পারলাম আমি করোনা পজিটিভ। ফাজিয়া যখন বিয়ের পোশাক পরে কোভিড সেন্টারের ভেতরেই বসেছিলেন তখন পাশেই এক মসজিদে তার বিয়ে পড়ানো হচ্ছিল। হবু বউয়ের বিশেষ এই দিনটিকে করোনা হাসপাতালের ভেতরেই বিশেষ করে তোলেন হাসপাতালের অন্যান্য বসবাসকারী। আয়োজন করেন সারপ্রাইজ পার্টির।
জি-২০ সম্মেলনের আয়োজন হবে ভার্চুয়ালি : সৌদি আরবে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল জি-২০ সম্মেলন; কিন্তু নভেল করোনাভাইরাসজনিত বৈশ্বিক মহামারীর জন্য সিদ্ধান্ত হয়েছে, দু’দিনের বৈঠক ভার্চুয়ালি হবে। রিয়াদে বৈঠকে বসার কথা ছিল জি-২০ নেতাদের; কিন্তু কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে গতকাল রোববার স্থির হয়েছে, সৌদি আরবই জি-২০ বৈঠকের আয়োজন করবে, তবে ভার্চুয়ালি। আগামী ২১ ও ২২ নভেম্বর জি-২০ সম্মেলন হবে বলে সরকারিভাবে ঘোষণা করা হয়েছে। ভার্চুয়াল সেই সভার চেয়ারপারসন হবেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ। মহামারীকালীন সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য এবং দেশগুলোর অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা হবে সম্মেলনে। রেজ্যুলেশন বা প্রস্তাবও নেয়া হবে ওই দু’টি বিষয় মাথায় রেখেই।
ভ্যাকসিন ১০০ ভাগ কার্যকর হবে না : যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসের প্রধান ড. অ্যান্থনি ফসি বলেন, ভ্যাকসিন ১০০ ভাগ কার্যকর হবে না; আর পৃথিবীর ১০০ ভাগ মানুষের কাছে ভ্যাকসিন পৌঁছানো সম্ভব হবে না। তার মানে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণও একেবারে বন্ধ হয়ে যাবে না। ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ মানুষকেও যদি ভ্যাকসিন দেয়া সম্ভব হয়, তবে তা গুরুত্বপূর্ণ অর্জন হিসেবে বিবেচনা করা যাবে। তবে ভ্যাকসিন এলেও জনস্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে। নভেল করোনাভাইরাসজনিত কোভিড-১৯ রোগের ভ্যাকসিন আসার পরও জনস্বাস্থ্যের সুরক্ষায় মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও হাত ধোয়ার মতো কাজগুলোর প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়ে যাবে না।


আরো সংবাদ