২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ১ সফর ১৪৩৯

সবজিতেই নাকাল

বাজার দর
-

সবজিতেই নাকাল মানুষ। সবজি কিনতেই দিশেহারা সবাই। ৫০ টাকার নিচে কোনো সবজিই নেই। প্রায় এক মাস ধরেই এই অবস্থা। এ দিকে, পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল। চালের দামও স্থিতিশীল। যতটুকু বেড়েছে সে পর্যন্তই আছে। বাড়তি দাম আর কমেনি। মাছ-গোশতের দাম বাজারভেদে হয়তো কিছুটা কম-বেশি। সবজি কিনতেই মানুষ এখন দিশেহারা। গত এক মাস ধরেই এই অবস্থা। সবজির দাম কমছেই না। বাজারে সব সবজিই আছে, কিন্তু দাম সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে। রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে সবজির কোনো ঘাটতি নেই। অভিজাত এলাকাতেই নয়; নি¤œ আয়ের মানুষ যেখানে বসবাস করছেন সেখানেও সবজির দাম চড়া। ৫০ টাকার নিচে কোনো সবজিতেই হাত দেয়া যায় না।
গতকাল রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, বাজারভেদে কেজিতে হয়তো ৫-৬ টাকা কমবেশি। শীতের সব সবজিই বাজারে ঠাসা। দামও বেশ চড়া। গতকাল দেখা গেছে, বাজারে শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকা। ছোট আকারের ফুলকপি, বাঁধাকপির পিস বিক্রি হচ্ছে ৩০-৫০ টাকা। পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকা। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকা কেজি। করলা কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭০-১০০ টাকায়। বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০ টাকা কেজি। পটোল, ঝিঙা, কাঁকরোল, চিচিঙ্গা, বেগুন ৫০-৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কাঁচামরিচের দাম ১২০ থেকে ১৬০ টাকা। ছোট আকৃতির একটি কচু বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। লাউ একটি ছোট আকৃতির ৬০ টাকা, কচুরছরা প্রতি কেজি ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ২০ টাকার নিচে কোনো শাক পাওয়া যায় না। আবার লাউশাকের আটি ৩০-৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
পেঁয়াজের দাম একই আছে। ৮০ টাকা থেকে শুরু হয়েছে ১২০ টাকা পর্যন্ত কেজি বিক্রি হচ্ছে। এর মধ্যে মানের তারতম্য রয়েছে। সর্বোচ্চ ভালো মানের পেঁয়াজটা বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। যদিও এই পেঁয়াজই ১৪ সেপ্টেম্বরের আগে বিক্রি হয়েছে ৪৫-৫০ টাকায়। তবে পেঁয়াজের দাম বাড়–ক আর কমুক সে দিকে কোনো আগ্রহ নেই ক্রেতাদের। গত বছর পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধিতে মানুষের মধ্যে হুলস্থুল লেগে গিয়েছিল। এবার আর সেই পরিস্থিতি নেই বাজারে। মানুষ বাড়তি পেঁয়াজ কিনছেন না। আদার দামও বেশ চড়া। প্রতি কেজি আদা বিক্রি হচ্ছে ২৪০ থেকে ২৮০ টাকায়। এখানেও মানের তারতম্য রয়েছে। রসুন বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকায়।
ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিতে ১০ টাকা কমে এখন ১২০-১২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আবার ফার্মের মুরগির ডিম খুচরা বাজারে ১০ টাকা বেড়ে ডজন এখন ১১০ টাকা। কোনো কোনো দোকানে এক শ’ ১৫-২০ টাকায়ও বিক্রি হচ্ছে।
চালের দাম সেই যে বেড়েছে আর কমেনি। প্রায় সব রকমের প্রতি কেজি চালে ৪-৫ টাকা বেড়েছে গত সপ্তাহে। এ সপ্তাহেও সেই দামেই বিক্রি হচ্ছে।
এ দিকে, রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেটে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এই অভিযান চালিয়ে আসছে। এই অভিযানে ইতোমধ্যে পাইকারি বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে বেশকিছু প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে। ক্রেতারা বলেছেন, শুধু পেঁয়াজের বাজারেই নয়; অন্যান্য পণ্যের বাজারেও অভিযান জরুরি হয়ে পড়েছে।


আরো সংবাদ

‘রোহিঙ্গাদের দুর্দশায় রেখে দূরে সরে না যেতে’ যুক্তরাজ্যের আহ্বান লিবিয়া উপকূলে অভিবাসন প্রত্যাশীদের নৌকা ডুবে ১৫ জনের মৃত্যু আলুর মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব গরীবের ভাত-সিঙ্গাড়ায়, চাহিদা বেড়েছে রুটি-কলায় প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ : যুবলীগ নেতার বাড়ি থেকে অস্ত্র উদ্ধার স্পেনে করোনা আক্রান্ত ১০ লাখ ছাড়াল ট্রাম্প নিজেকে অযোগ্য প্রমাণ করেছেন : ওবামা করোনায় বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৪ কোটি ১১ লাখ অক্সফোর্ডের টিকা নিয়ে স্বেচ্ছাসেবকের মৃত্যু রোহিঙ্গা সঙ্কটে আসিয়ানের দুর্বলতা প্রকাশ বাইডেনের পক্ষে প্রচারে নামলেন ওবামা লাদাখ থেকে কাশ্মির পর্যন্ত টানেল বানাচ্ছে ভারত

সকল