২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ১ সফর ১৪৩৯

সংক্রমণ ছড়ানোর গতি উদ্বেগজনক

-

করোনাভাইরাসের হাত থেকে খুব সহজে রেহাই নেই। আপাতত এই ভাইরাস যাচ্ছে না। এই ভাইরাসের বিপদ আরো বেশ কিছু দিন থাকবে। করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর গতি এখনো রীতিমতো উদ্বেগজনক। এই আশঙ্কার কথা শুনিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইমার্জেন্সি বিষয়ের পরিচালক ডা: মাইক রায়ান।
তার দাবি, ‘সপ্তাহে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ গোটা বিশ্বে এখনো প্রাণ হারাচ্ছেন করোনা সংক্রমণের কারণে।’ যত দিন না হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হচ্ছে, তত দিন করোনা মৌসুমি রোগ হিসেবে থেকে যাবে বলে সতর্ক করে দিচ্ছেন আর একদল গবেষক। হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হওয়ার আগে করোনা সংক্রমণের আরো কয়েকটি ঢেউ আসতে পারে।
খবর এনডিটিভি, রয়টার্স, বিবিসি, সৌদি গ্যাজেট, বিজনেস লাইন, আরব নিউজ, পার্সটুডে, সিনহুয়া ও ইউএনবি, এই সময়, বাসস, এবিপি আনন্দ, আনন্দবাজার, ওয়ার্ল্ডোমিটারস ও এএফপির।
আক্রান্ত ৩ কোটি ১০ লাখ ছাড়াল : করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীতে এ পর্যন্ত বিশ্বের ২১৫টি দেশ ও অঞ্চল আক্রান্ত হয়েছে। বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা তিন কোটি ১০ লাখ ২৪ হাজার ২৮৩। এর মধ্যে ৯ লাখ ৬২ হাজার ৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে দুই কোটি ২৬ লাখ ২২ হাজার ৪৬১ জন। যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯ লাখ ৬৮ হাজার ৯১৮। মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৩ হাজার ৮৪৪ জনের। ব্রাজিলে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৫ লাখ ২৮ হাজার ৩৪৭। এর মধ্যে এক লাখ ৩৬ হাজার ৫৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫ হাজার ২৭৯। এর মধ্যে চার হাজার ৬৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।
ভারতে সংক্রমণ ছাড়াল ৫৪ লাখ : ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৯২ হাজার ৬০৫ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৪ লাখ ৬১৯। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছে ৯৪ হাজার ৬১২ জন। দেশটিতে সুস্থতার হার ৭৯ দশমিক ৬৭ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে মারা গেছে এক হাজার ১৩৩ জন। ফলে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৮৬ হাজার ৭৭৪ জন। মোট সংক্রমণের ৬০ ভাগই মহারাষ্ট্র, অন্ধ্র প্রদেশ, তামিলনাড়ু, কর্নাটক ও উত্তরপ্রদেশের। সেপ্টেম্বরের শুরু থেকেই দৈনিক সংক্রমণ প্রায় লাখের কাছাকাছি। এখন পর্যন্ত দেশে সব মিলিয়ে ৪৩ লাখ ৩ হাজার ৪৩ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন, অর্থাৎ মোট আক্রান্তের ৭৯.৬৮ শতাংশই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।
ভ্যাকসিনের তথ্য চুরি করেছে দাবি স্পেনের : একটি ল্যাবে সাইবার হামলা চালিয়ে চীনা হ্যাকাররা করোনা ভ্যাকসিনের গবেষণাসংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য চুরি করেছে বলে দাবি জানিয়েছে স্পেন। স্পেনের গুপ্তচর সংস্থার প্রধান পাজ এস্তাবান বলেন, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই সাইবার হামলা চালানো হয়েছে। ভ্যাকসিন-সংক্রান্ত তথ্যের হদিস পেয়েই হামলা চালিয়েছে চীনা হ্যাকাররা। লকডাউন চলাকালীন হ্যাকিংয়ের পরিমাণ বেড়েছে। নির্দিষ্টভাবে যে স্পেনকেই টার্গেট করা হচ্ছ, তা নয়। যেসব দেশ বিশেষভাবে করোনার ভ্যাকসিন বের আনার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে ও প্রায় সফল হয়েছে, সেসব দেশের ভ্যাকসিন-সংক্রান্ত তথ্য জানতেই হ্যাকিং করা হচ্ছে। মূলত চীনা হ্যাকাররাই এ ধরনের সাইবার হামলা চালাচ্ছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তবে এর পাশে রাশিয়াও রয়েছে।
‘কোভিড-১৯ গুজব’ বলা নিয়ে সংঘর্ষ : করোনাভাইরাস মহামারী নিয়ন্ত্রণে জারি করা লকডাউনের বিরোধিতায় শনিবার লন্ডনের বিখ্যাত ট্রাফালগার স্কয়ারে জড়ো হয়েছিলেন হাজারখানেক বিক্ষোভকারী। কোভিড-১৯কে গুজব দাবি করা এসব বিক্ষোভকারীর সাথে সংঘর্ষ হয়েছে পুলিশের। এ সময় গ্রেফতার করা হয়েছে কমপক্ষে ৩২ জনকে। ‘কোভিড হচ্ছে গুজব’, ‘আমার শরীর, আমার পছন্দ : বাধ্যতামূলক মাস্ক মানি না’ প্রভৃতি লেখা ব্যানার নিয়ে ট্রাফালগার স্কয়ারে বিক্ষোভ করছিলেন লকডাউনবিরোধীরা। এ সময় তারা পুলিশকে নিজেদের পক্ষ নির্ধারণ করারও আহ্বান জানান। বিক্ষোভকারীরা নিজেরাসহ অন্য সাধারণ মানুষদের করোনার ঝুঁকিতে ফেলায় তাদের ট্রাফালগার স্কয়ার ত্যাগ করতে বলা হয়। এতে বেশ কিছু সহিংসতার ঘটনা ছড়িয়ে পড়ে। সে সময় তাদের ছত্রভঙ্গ করতে কার্যকর ব্যবস্থা নেয় পুলিশ।
আইসোলেশনে না থাকলে জরিমানা ১০ হাজার পাউন্ড : ইংল্যান্ডে যারা সেল্ফ-আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ মানতে অস্বীকার করবে তাদের ১০ হাজার পাউন্ড (১৩ হাজার ডলার, ১১ হাজার ইউরো) পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে বলে জানিয়েছে সরকার। করোনাভাইরাস পজিটিভ বা কেউ কোনো রোগীর ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শে এসেছিলেন বলে শনাক্ত হয়েছেন তাকে আইসোলেশনে থাকতে হবে, না মানলে জরিমানা গুনতে হবে- ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে ইংল্যান্ডে এ আইনটি কার্যকর হচ্ছে। প্রথমবার আইন ভাঙার জন্য ১০০০ পাউন্ড জরিমানা দিতে হবে, অপরাধের পুনরাবৃত্তি করলে অথবা কাজে যোগ না দিয়ে সেল্ফ-আইসোলেশনে থাকার জন্য তার কর্মীকে চাকরিচ্যুত করার হুমকি দেবেন যে চাকরিদাতা তাকে ১০ হাজার পাউন্ড জরিমানা করা হবে। ইংল্যান্ডের জন্য নতুন এ আইন ঘোষণা করে জনসন বলেছেন, প্রত্যেকের জন্য করোনাভাইরাসের সাথে লড়াই করার সেরা রাস্তা হচ্ছে আইনগুলো অনুসরণ করা।
টিকা নিলেন আমিরাতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী : জরুরি মুহূর্তে ব্যবহারের জন্য করোনার টিকার অনুমোদন দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রশাসন। জরুরি ভিত্তিতে দেয়া ওই টিকার প্রথম ডোজ সবার আগে গ্রহণ করেছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী আবদুল রাহমান আল ওয়াইস। মূলত সম্মুখ সারির কর্মীদের জন্য জরুরি ভিত্তিতে বেশ কিছু দিন আগেই ওই টিকার অনুমোদন দেয়া হয়। আল ওয়াইস এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, সম্মুখ সারিতে কাজ করা ‘হিরো’দের নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং করোনাভাইরাসের যেকোনো ঝুঁকি থেকে তাদের রক্ষা করতে সব ধরনের পদক্ষেপ নিশ্চিত করা হবে। তারা জীবন বাজি রেখে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। আমিরাতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৮৪ হাজার ২৪২ জন। মারা গেছে ৪০৪ জন। এরই মধ্যে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছে ৭৩ হাজার ৫১২ জন। বর্তমানে আমিরাতে করোনার অ্যাকটিভ কেস ১০ হাজার ৩২৬।
করোনায় কমবে গড় আয়ু : পিএলওএস ওয়ান জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় বিজ্ঞানীরা এই দাবি করেছেন। করোনা বিশ্বব্যাপী মানুষের আয়ুতে প্রভাব ফেলতে চলেছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে অনেক অঞ্চলের মানুষের গড় বয়স হ্রাস পাবে। ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকার দেশগুলোতে করোনা সংক্রমণের প্রভাবে গড় বয়স ১০ শতাংশ কমে যেতে পারে। করোনায় মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলগুলোতে মানুষের আয়ুতে আরো বেশি প্রভাব ফেলবে। এই গবেষণায় এক প্রকার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে যে, যদি স্বাস্থ্যসেবা, আর্থসামাজিক পরিস্থিতি এবং শিক্ষার ক্ষেত্রে বিশ্বব্যাপী সংস্কার না করা হয় তবে ভবিষ্যতে পরিস্থিতি অত্যন্ত মারাত্মক হবে।
ভেষজ ওষুধের পরীক্ষায় ডব্লিউএইচওর অনুমোদন : করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য চিকিৎসায় আফ্রিকান ভেষজ ওষুধ পরীক্ষার প্রোটোকল অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কিছু দিন আগে মাদাগাস্কারের প্রেসিডেন্ট আর্টেমিসিয়া নামক একটি ভেষজ উদ্ভিদ থেকে তৈরি পানীয় করোনা সারাতে সক্ষম দাবি করেছিলেন। সেই প্রেক্ষাপটে গত শনিবার ডব্লিউএইচও এ অনুমোদন দেয়। আর্টেমিসিয়া থেকে তৈরি ওষুধ ম্যালেরিয়া চিকিৎসায় কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ এবং আরো দু’টি সংস্থার সহকর্মীরা কোভিড-১৯ চিকিৎসায় ভেষজ ওষুধের তৃতীয় ধাপের ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা এবং এর পাশাপাশি পরীক্ষার জন্য তথ্য ও সুরক্ষা নিরীক্ষণ বোর্ড প্রতিষ্ঠায় চার্টার এবং রেফারেন্সের শর্তগুলোর অনুমোদন দেয়।
টিকা পেতে গরিব দেশের পাশে ইউরোপিয়ান কমিশন : সবার জন্য টিকা নিশ্চিতকরণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) নেতৃত্বে গৃহীত ‘কোভ্যাক্স’ উদ্যোগে সহযোগিতা করছে ইউরোপিয়ান কমিশন। দরিদ্র দেশগুলোতে করোনার টিকা সাহায্য হিসেবে ৪০ কোটি ইউরো বা ৮ কোটি ৮০ লাখ ডোজ টিকার সমান অবদান রাখবে সংস্থাটি। কোভ্যাক্সে যে অবদান রাখা হবে, তার মধ্যে ২৩ কোটি ইউরো ঋণ হিসেবে দেবে ইউরোপিয়ান ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক। ‘টিম ইউরোপ’ ব্যানারে এই ঋণ দেয়া হবে। টিকার বৈশ্বিক ন্যায্য বিতরণ নিশ্চিত করতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রচেষ্টার অংশ হবে এটি। এই অর্থ যোগ্য নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশে স্থানান্তরিত হবে। বাকি ১৭ কোটি ইউরো যাবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাজেট থেকে নিশ্চয়তা হিসেবে।
ডব্লিউএইচওকে ১০০ বিলিয়ন ডলার দেবে সৌদি : করোনা মহামারী রোধে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থাকে এক শ’ বিলিয়ন ডলার অনুদান দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব। করোনা মহামারী রোধে জাতিসঙ্ঘের গৃহীত প্রকল্প বাস্তবায়নের আন্তর্জাতিক সহায়তা কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা ও জাতিসঙ্ঘের অন্যান্য সংস্থার জন্য এ অনুদান দেবে সৌদি আরব। গত শুক্রবার জাতিসঙ্ঘে মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের সাথে ভার্চুয়াল সভায় এ ঘোষণা দেন সৌদি আরবের স্থায়ী প্রতিনিধি আবদুল্লাহ আল মুআল্লিমি।
করোনায় মৃত্যুর দায়ে ট্রাম্পের পদত্যাগ দাবি : আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রার্থী জো বাইডেন এবার সরাসরি ব্যর্থতার দায়ভার কাঁধে নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতা ছেড়ে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসকে সামাল দিতে ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে ট্রাম্পের উচিত পদত্যাগ করা। বাইডেন গত শনিবার পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে এক নির্বাচনী জনসভায় বলেন, আমেরিকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিটি মৃত্যুর জন্য ট্রাম্প দায়ী। প্রেসিডেন্ট যদি শুরু থেকে তার দায়িত্ব পালন করতেন তা হলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী সব মানুষ এখন জীবিত থাকত। শেয়ারবাজার ও নির্বাচন ছাড়া ট্রাম্পের আর কোনো কিছু নিয়ে মাথাব্যথা নেই। কাজেই এমন এক ব্যক্তির প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনের যোগ্যতা নেই।
করোনাভাইরাস ধ্বংস করে আয়োডিন : নতুন গবেষণায় বলা হচ্ছে আয়োডিন দ্রবণ করোনাভাইরাসকে ধ্বংস করতে পারে। তিন ধরনের পভিডোন-আয়োডিন দ্রবণকে (০.৫ শতাশ, ১.২৫ শতাংশ ও ২.৫ শতাংশ) করোনাভাইরাসের সংস্পর্শে নিয়ে আসা হলে ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে ভাইরাস নিষ্ক্রিয় হয়ে গেছে। কানেকটিকাট স্কুল অব মেডিসিন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের দাবি ০.৫ শতাংশের দুর্বল আয়োডিন দ্রবণের সামনেও যেভাবে করোনাভাইরাস বেকায়দায় পড়েছে তা দেখে বিস্মিত তারা। ‘জামা ওটোল্যারিঙ্গোলজি-হেড অ্যান্ড নেক সার্জারি’ পত্রিকায় ওই গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে।
যুক্তরাজ্যে করোনা আক্রান্তের নতুন রেকর্ড : যুক্তরাজ্যে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা আবারো বেড়েছে। দেশটিতে গত ৮ মের পর এক দিনে নতুন করে সর্বোচ্চ চার হাজার ৪২২ জন শনাক্তের মাধ্যমে আক্রন্তের সংখ্যা বেড়ে তিন লাখ ৯০ হাজার ৩৫৮ জনে দাঁড়িয়েছে। যুক্তরাজ্যে মোট ৪১ হাজার ৭৫৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। শনিবার দেশটিতে আরো ২৭ জন মারা গেছেন। এ দিকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সতর্ক করেছেন যে, ব্রিটেনে দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণ আসছে।
কানাডা-যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত বন্ধ আরো এক মাস : কানাডা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত বন্ধ রাখার মেয়াদ আরো এক মাস বাড়ানো হয়েছে। করোনাভাইরাস মহামারী চলাকালে এ পরিস্থিতিতে ২১ অক্টোবর পর্যন্ত এ সীমান্তে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কানাডা। কানাডার জননিরাপত্তা মন্ত্রী বিল ব্লেয়ার বলেছেন, কানাডার নাগরিকদের নিরাপদ রাখতে জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। শুক্রবার কানাডার বৃহত্তম প্রদেশ অন্টারিওতে ৪০১ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত কানাডায় এক লাখ ৪২ হাজার ৭৭৪ জন কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত হয়েছে এবং ৯ হাজার ২১১ জন মারা গেছে এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ২৪ হাজার ১৮৭ জন।
যুক্তরাষ্ট্রে ২ লাখ ১৮ হাজার মৃত্যুর শঙ্কা : যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার্স ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশান (সিডিসি) আগাম এক ঘোষণায় বলেছে, দেশটিতে ১০ অক্টোবর নাগাদ কোভিড-১৯-এ ২ লাখ ১৮ হাজার পর্যন্ত লোক মারা যেতে পারে। ১০ অক্টোবরের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত নতুন করে ৩ হাজার থেকে ৭ হাজার ১০০ লোক করোনায় মারা যেতে পারে। এতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াতে পারে ২ লাখ ৭ হাজার থেকে ২ লাখ ১৮ হাজার পর্যন্ত। বৃহস্পতিবার সিডিসির ওয়েবসাইটের এই পূর্বাভাসে আরো বলা হয়, রাজ্য এবং আঞ্চলিক স্তরে আগামী চার সপ্তাহের প্রতি সপ্তাহে নতুন মৃত্যুর হার ৬-এর মতো কমতে পারে।
দিল্লিতে এক মাসে আক্রান্ত ১৯০ শতাংশ বেড়েছে : দিল্লিতে এক মাসে অ্যাকটিভ করোনা রোগী বেড়েছে ১৯০ শতাংশ। এক মাসে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৮৪ হাজার ৮৭ জন। ৪ আগস্ট প্রথমবার দিল্লিতে অ্যাকটিভ আক্রান্ত ১০ হাজারের নিচে নেমে আসে। ১৮ আগস্ট অ্যাকটিভ আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১১ হাজার ৬৮। ১৮ সেপ্টেম্বর অ্যাকটিভ আক্রান্ত বেড়ে হয় ৩২ হাজার ২৫০। হাসপাতালগুলোতে কোভিড বেডের চাহিদা বেড়েছে ৩৫ শতাংশ। ১৮ আগস্ট থেকে জাতীয় রাজধানীতে দৈনিক গড় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৭১২। ১ সেপ্টেম্বর থেকে দৈনিক গড় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয় ৩ হাজার ৪৩১।
ইরানে মৃতের সংখ্যা প্রায় ২৫ হাজার : ইরানে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২৫ হাজারের কাছাকাছি। দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৪ হাজার ১১৮ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৬৬ জন। এ সময়ে দেশটিতে ২ হাজার ৮৪৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ১৯ হাজার ৪৩ জনে। শুক্রবার থেকে ১ হাজার ১৪৯ জন ইরানি করোনা সংশ্লিষ্ট জটিলতা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৬৩২ জন। আইসিইউতে ভর্তি আছেন ৩ হাজার ৮৩৯ জন।

 


আরো সংবাদ

২০২০ সালের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-৯৫ বাংলা নাটক : অবাক জলপান অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : বিজ্ঞান ষষ্ঠ অধ্যায় : পরমাণুর গঠন অষ্টম শ্রেণীর প্রস্তুতি : বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অধ্যায়-৫ : সামাজিকীকরণ ও উন্নয়ন নবম-দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া : বাংলা দ্বিতীয়পত্র অস্ত্র মামলায় গজারিয়ার আ’লীগ নেতা ও তার ভাই তিন দিনের রিমান্ডে বহিষ্কৃত আ’লীগ নেতা এনু-রুপনের জামিন আবেদন খারিজ ঢাবির উন্নয়ন ফি প্রত্যাহার চেয়ে ভিসিকে ছাত্রলীগের স্মারকলিপি কবি ফররুখ আহমদের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত বাংলাদেশ লেবার পার্টির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ আলুর দাম নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা ভুল সিদ্ধান্ত : জি এম কাদের

সকল