২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধে ফের ভাঙন

চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধে ভাঙনের দৃশ্য : নয়া দিগন্ত -

চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধে ফের ভাঙন দেখা দিয়েছে। বুধবার রাতে শহরের পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় হঠাৎ কিছু এলাকা নদীতে তলিয়ে যায়। ফাটল দেখা দেয় ২৫ মিটার এলাকায়। এতে মেঘনার ভাঙনের মুখে রয়েছে পুরো এলাকা। আতঙ্কে স্থানীয় বাসিন্দারা মালামাল সরিয়ে নেয়া শুরু করেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ১০টায় পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় বিরাট ফাটল দেখা যায়। এ সময় শহর রক্ষা বাঁধের বেশ কিছু ব্লক নদীতে বিলীন হয়ে যায়। বিরাট এলাকাজুড়ে ফাটল দেখা দেয়ায় স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. বাবুল আখতার জানান, ভাঙন রোধে জিইও টেক্সটাইল ব্যাগ ফেলা শুরু হয়েছে। মেঘনার পানি প্রবল বেগে প্রবাহিত হওয়ার পাশাপাশি সৃষ্ট ঘূর্ণিপাকে হরিসভাসহ পুরানবাজার এলাকাটি ঝুঁকিতে রয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, ওই এলাকায় কয়েক মাস আগেও ভাঙন দেখা দেয়। পুরানবাজার পুলিশ ফাঁড়ি পরিদর্শক মো. মাসুদ বলেন, আমরা ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার লোকজনকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু করেছি। ভাঙনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ বাবুল আক্তার, এনএসআই এর চাঁদপুরের উপ-পরিচালক আজিজুল হক, পৌর পরিষদের প্যানেল মেয়র সিদ্দিক রহমান ঢালী, চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ নাসিম উদ্দিন, ওসি তদন্ত হারুনুর রশীদ, চাঁদপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সহসভাপতি তমাল কুমার ঘোষ, নদীভাঙন প্রতিরোধ সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মমতাজ উদ্দিন মন্টু গাজী প্রমুখ।
ভারতের পানিতে শার্শার ৫ ইউনিয়ন প্লাবিত
বেনাপোল (যশোর) সংবাদদাতা জানান, যশোর পানি উন্নয়ন বোর্ডের ত্রুটিপূর্ণ স্লুইসগেট নির্মাণের কারণে ভারতের ইছামতি নদীর পানিতে শার্শা উপজেলার পাঁচ ইউনিয়ন প্লাবিত হয়ে নষ্ট হচ্ছে বিপুল পরিমাণ জমির ফসল। ইছামতির জোয়ারের পানি শার্শার রুদ্রপুর ও পুটখালির খলশী খাল দিয়ে প্রবেশ করছে। উপজেলায় তিনটি স্লুইসগেট থাকলেও তার কোনো রক্ষণাবেক্ষণ নেই। নেই নজরদারিও। স্থানীয় চাষিদের অভিযোগ, পুটখালি, গোগা, উলাশী, বাগআঁচড়া ও কায়বা ইউনিয়নের প্রায় তিন হাজার হেক্টর জমির ফসল পানির নিচে তলিয়ে রয়েছে। ইছামতির সাথে সংযুক্ত রুদ্রপুর ও খলশী খালে ত্রুটিপূর্ণ স্লুইসগেট নির্মাণের ফলে নদীর ভারতীয় অংশের পানিতে এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। চাষি আমিনুর রহমান বলেন, ইছামতির পানি ঠেকাতে রুদ্রপুর খালে দুটি ও খলশী খালে একটি স্লুইসগেট নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু এগুলোতে ত্রুটি থাকায় তা কোনো কাজে আসছে না।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৌতম কুমার শীল জানান, পাঁচ ইউনিয়নে চলতি মৌসুমে ২০ হাজার ১৩১ হেক্টর জমিতে ফসল লাগানো হয়েছে। কিন্তু ভারতের উজানের পানিতে ২ হাজার ৯৭০ হেক্টর জমির ধান, পাট ও সবজি তলিয়ে গেছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে বেনাপোলের পুটখালী ইউনিয়নে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মণ্ডল বলেন, স্থানীয় চেয়ারম্যানদের মুখে শুনেছি ভারতের পানি রুদ্রপুর ও খলশী খাল দিয়ে ঢুকে ফসলের ক্ষতি করছে। ইছামতি নদীর পানির সমস্যাটা আন্তর্জাতিক ব্যাপার। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড ইচ্ছা করলে এর সমাধানের পথ খুঁজে বের করতে পারে।
কুড়িগ্রামে ১৪০ কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি
ইউএনবি জানায়, কুড়িগ্রামে উচ্চ সুদে ঋণ নিয়ে সবজি চাষ করে চরম ক্ষতির মুখে পড়েছেন বানভাসি কৃষকরা। চলতি মৌসুমে দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় ফসল নষ্ট হওয়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে তাদের। চরম হতাশা দেখা দিয়েছে তাদের মধ্যে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, বন্যায় জেলায় ১৭ হাজার ৫৫৬ হেক্টর আবাদি জমির ফসল সম্পূর্ণ নিমজ্জিত হয়। এর মধ্যে নষ্ট হয়ে যায় ১১ হাজার ৬৬২ হেক্টর জমির ফসল। এতে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮৫৮ জন কৃষকের লোকসানের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৪০ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে পাট, আউশ ধান, আমন বীজতলা ও শাকসবজির। এ পরিস্থিতিতে যেসব কৃষক ঋণ নিয়ে চাষাবাদ করেছেন তারা পড়েছেন চরম সঙ্কটে। আসল না ওঠায় কিস্তি দিতে না পেরে বিপাকে পড়েছেন তারা।
জানা গেছে, কৃষি বিভাগ থেকে ১০৫ একর কমিউনিটি বীজতলা, শতাধিক ভাসমান বীজতলা ও ১১২টি ট্রে বীজতলা করে ৭ হাজার ৬৭ জন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষককে সহযোগিতা দেয়া হবে। এ ছাড়া ১ হাজার ২০০ বিঘা জমিতে মাসকলাই কার্যক্রমের মাধ্যমে ১ হাজার ২০০ জন চাষি উপকৃত হবেন। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক ড. মোস্তাফিজুর রহমান প্রধান বলেন, সরকার ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। আমন বীজতলা ছাড়াও করোনাকালীন এবং বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ২৭ হাজার ৭৬১ জন সবজি চাষিকে পর্যায়ক্রমে প্রণোদনার আওতায় আনা হচ্ছে।

 


আরো সংবাদ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয়ের (১২৯৩৮)ড. কামাল ও আসিফ নজরুল ঢাবি এলাকায় অবা‌ঞ্ছিত : সন‌জিত (১১৭২৪)‘সনজিতকে ক্যাম্পাসে দেখতে চায় না ঢাবি শিক্ষার্থীরা’ (১০৩১৩)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৯০১২)আজারবাইজান ৬টি গ্রাম আর্মেনিয়ার দখল মুক্ত করেছে (৮৩৪১)নতুন বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সামনে আনলো ইরান (৫৭০৯)যে কারণে এই শীতেই ভারত-চীন মারাত্মক যুদ্ধের আশঙ্কা রয়েছে (৫৬৫০)অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত (৫২২৮)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার মধ্যে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৯ (৫১৬০)ছাত্রলীগের ঢাবি সভাপতি বক্তব্য স্পষ্টত সন্ত্রাসবাদের বহিঃপ্রকাশ (৫১৫০)