২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

করোনার মতো বিপদ প্রতি দশকেই!

দৈনিক সংক্রমণের হিসাবে শীর্ষে ভারত; এক দিনে শনাক্ত তিন লাখ ছুঁই ছুঁই; যুক্তরাষ্ট্রে স্কুল খুলতেই আক্রান্ত শিক্ষার্থীরা; ইতালিতে ফের বাড়ছে রোগী
-

করোনার চেয়েও বড় সঙ্কট হয়তো সামনে আসছে। করোনা মহামারী ভয়ঙ্কর, তবে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব এর চেয়েও ভয়াবহ আকার নিতে পারে। আগামী ২০ বছরের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আর্থিক ক্ষতির বিষয়টি এতটাই খারাপ হবে যে, প্রতি দশকেই একবার করে কোভিড-১৯ মহামারীর মতো ঘটনার উদ্ভব হবে। সম্প্রতি বৈশ্বিক বিষয়গুলো নিয়ে নিজের ব্লগ গেটস নোটসে এমনই পূর্বাভাস দিয়েছেন মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। তিনি বলেন, করোনাভাইরাসে প্রতি লাখে মৃত্যুহার ১৪ জন; কিন্তু এই শতকের শেষে যদি বর্তমান সময়ে যে হারে কার্বন নির্গমন হচ্ছে সেই হারেই তা চলতে থাকে তবে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণেই প্রতি লাখে অতিরিক্ত আরো ৭৩ জনের মৃত্যু হতে পারে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব অবশ্যই কোভিড-১৯-এর চেয়ে আরো কঠিন ও ধ্বংসাত্মক হবে। তিনি আরো বলেন, এই মহামারীতে শুধু মানুষের প্রাণহানি ঘটছে তা নয়; বরং বিভিন্ন দেশে আর্থিক দুর্দশাও লক্ষ করা গেছে। কোভিড-১৯ থেকে এখনই যদি আমরা শিক্ষা নিতে না পারি, কার্বন নির্গমনের মাত্রা কমাতে না পারি তবে জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষেত্রে ব্যবস্থা না নেয়ার ফলে এই দুর্দশা আমাদের নিত্যসঙ্গী হয়ে উঠবে। গেটসের মতে, বিভিন্ন দেশের সরকার করোনাভাইরাসকে বেশ গুরুত্ব দিচ্ছে; কিন্তু তাদের উচিত করোনার মতোই জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টিকেও সমান গুরুত্ব দেয়া। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে কী ধরনের ক্ষতির মুখোমুখি হতে হবে, তা বুঝতে কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়া এবং দীর্ঘ সময় ধরে মানুষের ভোগার দিকটিতে দৃষ্টি দেয়া যেতে পারে। খবর এপি, আরআইএ, স্পুটনিক নিউজ, ব্লøুমবার্গ, স্কাই নিউজ, নিক্কেই এশিয়ান রিভিউ, এনডিটিভি, এই সময়, ওয়ার্ল্ডোমিটার, ওয়াশিংটন পোস্ট, জি নিউজ ও আনন্দবাজার পত্রিকার।
দৈনিক সংক্রমণের হিসাবে শীর্ষে ভারত : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুসারে, ৪-৭ আগস্ট সারা বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দৈনিক সংক্রমণ ঘটেছে ভারতে। ৪ আগস্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৪৭,১৮৩, ব্রাজিলের ২৫,৮০০ জনের শরীরে নতুন করে করোনা বাসা বেঁধেছে, ওই দিনে ভারতে নতুন ৫২,০৫০ জন করোনা রোগীর সন্ধান মিলেছে। ৫ আগস্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৪৯,১৫১, ব্রাজিলে ১৬,৬৪১ এবং ভারতে ৫২,৫০৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। ৬ আগস্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৪৯,৬২৯ জন, ব্রাজিলে আক্রান্ত হয়েছে ৫১,৬০৩ জন এবং ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৫৬,২৮২ জন। ৭ আগস্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৫৩,৩৭৩, ব্রাজিলে ৫৭,১৫২ এবং ভারতে ৬২,৫৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত হিসাবে ধরা পড়েছে। এক দিনের মধ্যে আরো ৬১,৫৩৭ জনের শরীরে ওই ভাইরাস সংক্রমণ করল। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৯৩৩ জন করোনা রোগীর।
এক দিনে শনাক্ত তিন লাখ ছুঁই ছুঁই : বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা ফের তিন লাখ ছুঁই ছুঁই। গত ২৪ ঘণ্টায় দুই লাখ ৮৩ হাজার মানুষের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া মারা গেছেন ছয় হাজার ৪৪৮ জন। বিশ্বজুড়ে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা সাত লাখ ২৪ হাজার ৫০ জন। আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি ৯৫ লাখ ৪১ হাজার ২১৯ জন। এরই মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক কোটি ২৫ লাখ ৪৪ হাজার ৪৮০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ এক হাজার ২৯০ জনের মৃত্যু দেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। এক দিনেই এক হাজার ৫৮ জনের মৃত্যু দেখেছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল।
রুশ ভ্যাকসিন নিয়ে উদ্বিগ্ন পশ্চিমারা : রাশিয়ার পক্ষ থেকে এ মাসের ১২ তারিখেই করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিন নিবন্ধনের ঘোষণা দেয়া হলেও পশ্চিমা বিশ্ব এ নিয়ে উদ্বিগ্ন। বিজ্ঞানী ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা তাড়াহুড়ো করে ভ্যাকসিন বের করার বিপদের ব্যাপারে সতর্ক করেছেন। তাদের আশঙ্কা, নিরাপত্তা ও কার্যক্ষমতার ব্যাপারে নিশ্চিত না হয়ে ভ্যাকসিনটি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিলে তার পরিণাম ভয়াবহ হতে পারে। ১২ জুলাই জানা গেছে, গামালেই ইনস্টিটিউট অব এপিডেমোলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজির উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সফলভাবে শেষ করেছে রাশিয়া। ২২ জুলাই রুশ সেনাবাহিনী জানায়, তাদের ভ্যাকসিনটি প্রস্তুত। ১ আগস্ট স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানায়, অক্টোবর মাস থেকে জনগণকে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হবে। উপস্বাস্থ্যমন্ত্রী ওলেগ গ্রিডনেভ জানায়, ১২ আগস্ট বিশ্বের প্রথম ভ্যাকসিন হিসেবে নিজেদের তৈরি ভ্যাকসিন নিবন্ধন করবে ক্রেমলিন। ভ্যাকসিনটি এখন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তৃতীয় পর্যায়ে আছে। অথচ চার দিন পরই আসছে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন।
ইতালিতে ফের বাড়ছে করোনা রোগী : ইতালিতে হঠাৎ করেই বাড়ছে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। শুক্রবার দেশটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫২ জন, যা গত ৭০ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চসংখ্যক শনাক্ত। গত চব্বিশ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন তিনজন। শুক্রবার ভেনেতোতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮৩ জন। উত্তরাঞ্চল লোম্বারদিয়ায় শনাক্ত হয়েছে ৬৯ জন। আর সবচেয়ে কম আক্রান্ত হয়েছে উম্ব্রিয়াতে তিনজন। সর্বমোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন দুই লাখ এক হাজার ৬২৪ জন। বর্তমানে এ রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১২ হাজার ৯২৪ জন করোনা রোগী। দেশটিতে সর্বমোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৪৯ হাজার ৭৫৬ জন এবং প্রাণ হারিয়েছেন ৩৫ হাজার ১৯০ জন।
করোনা মোকাবেলায় আদর্শ তিনটি দেশ : করোনাভাইরাস মহামারী মোকাবেলায় আদর্শ প্রক্রিয়ার অনন্য উদাহারণ তৈরি করেছে নিউজিল্যান্ডে ব্যাপক পরিসরে কোভিড-১৯ পরীক্ষা পদ্ধতির নীতি, ডেনমার্কের স্কুলনীতি এবং উগান্ডার যোগাযোগ কৌশল। ভাইরাসটি দমনে তিন দেশের কৌশলকে আদর্শ বলছেন বিশেষজ্ঞরা। দক্ষিণ কোরিয়ার কন্টাক্ট ট্রেসিং এবং সিকিউরিটি ক্যামেরা ও ক্রেডিট কার্ডের অর্থ লেনদেনের তথ্যের মাধ্যমে মানুষের গতিবিধির ওপর নজরদারিকেও অনন্য বলছেন গবেষকরা। অত্যন্ত দুর্বল ইন্টারনেট ব্যবস্থার দেশ উগান্ডা করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে রেডিওতে কল-ইন শো’র মতো উদ্যোগ নিয়েছিল। করোনা মহামারীতে সফলভাবে স্কুল পুনরায় খুলেছে ডেনমার্ক। করোনা মোকাবেলায় ব্যক্তিগত গোপনীয় তথ্য ব্যবহৃত হলেও তার অপব্যবহার হবে না বলে জনগণকে আশ্বস্ত করতে একটি গোপনীয়তা আইন পাস হয়েছে অস্ট্রেলিয়ায়।
ভ্যাকসিন ৯৮ ভাগ কার্যকর হওয়াটাও যথেষ্ট নয় : করোনাভাইরাসের টিকা ৫০ শতাংশ কার্যকর হতে পারে। অথচ করোনার টিকা ৯৮ শতাংশ পর্যন্ত কার্যকর হওয়াটা দুর্দান্ত ফল নয় বলে মন্তব্য করেছেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকটিয়াস ডিজিসের প্রধান ডা: অ্যান্থনি ফাউসি। তিনি বলেছেন, আমরা এখনো জানি না যে, কার্যকারিতা কেমন হবে। জানি না এটা ৫০ শতাংশ নাকি ৬০ শতাংশ কাজ করবে। ৭৫ শতাংশ বা তার বেশি কাজ করতে পারে। স্বাস্থ্যবিষয়ক নীতিমালা কখনো ভুলে গেলে চলবে না। সম্ভবত ৯৮ শতাংশের বেশি কার্যকর টিকা পাওয়া অসম্ভব। তার মানে করোনাভাইরাস সংক্রমণ থামাতে হলে মানুষে মানুষে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিষয়ক নীতিমালা মেনে চলার বিকল্প থাকছে না।
রেশম পোকা থেকে ভ্যাকসিন তৈরিতে গবেষণা : জাপানের কাইয়ুশু ইউনিভার্সিটির প্রফেসর তাকাহিরো কুসাকাবে এবং তার দল কোভিড-১৯-এর অনন্য এক ভ্যাকসিন আবিষ্কারে মন দিয়েছে। তারা এটি প্রস্তুত করবেন রেশম পোকা থেকে। তার এই প্রজেক্টে প্রতিটি রেশম পোকা যেন এমন এক-একটি কারখানা, যেখানে বিশেষ একধরনের প্রোটিন উৎপাদন হয়। আর এই বিশেষ প্রোটিনই হবে তাদের ভ্যাকসিন তৈরির মূল উপকরণ। কুসাকাবে বলেন, রেশম পোকা ব্যবহার করে মুখে গ্রহণ করতে হয় এমন একটি ভ্যাকসিন বানানো সম্ভব হবে এবং ২০২১ সালেই মানবদেহে এর পরীক্ষা চালানোর লক্ষ্য নেয়া হয়েছে। আমাদের সংগ্রহে ৫০০ প্রজাতির আড়াই লাখ রেশম পোকা রয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রে স্কুল খুলতেই আক্রান্ত শিক্ষার্থীরা : স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল খুলে দেয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপিতে আটজন শিক্ষার্থীর দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে। এই ঘটনার পর ওই স্কুলের ১১৬ জন শিক্ষার্থীকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। গত মাসে স্কুল খোলার অনুমোদন ও গাইডলাইন প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার অব ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন। চলতি সপ্তাহে তাই পুনরায় ক্লাসও শুরু করে দেয় কিছু স্কুল। যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপির করিন্থ শহরে এই মুহূর্তে দ্রুত হারে বেড়ে চলেছে করোনাভাইরাস। তার ওপর স্বাস্থ্যব্যবস্থাও যথেষ্ট চাপে। এমন পরিস্থিতিতে স্কুল চালু হয়ে গেলে পড়াশোনা, পরীক্ষা এগিয়ে যাবে, এই ভয়ে সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে বাধ্য হন অনেক অভিভাবক।
ভ্যাকসিন তৈরিতে গেটস ফাউন্ডেশনের তহবিল : করোনা ভ্যাকসিনের ডোজ তৈরি করে তা বাজারজাত করতে দ্য বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন ও আন্তর্জাতিক ভ্যাকসিন জোট গ্যাভির সঙ্গে সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার (এসআইআই) চুক্তি হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও নোভাভ্যাক্সের করোনা ভ্যাকসিন অনুমোদন পাওয়ার পর তার ১০০ মিলিয়ন ডোজ তৈরি করে বিভিন্ন দেশে সরবরাহ করবে সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া। এর জন্য প্রতিষ্ঠানটিকে ১৫০ মিলিয়ন ডলার তহবিল দেবে দ্য বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন। অক্সফোর্ডের এই ভ্যাকসিনের প্রতি ডোজের দাম হতে পারে তিন ডলার। অর্থাৎ যা বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ২৫৪ টাকা। ভারত ছাড়াও বিশ্বের আরো ৯২টি দেশে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেয়ার দায়িত্ব নিয়েছে সিরাম। সে জন্য ১০ কোটি ভ্যাকসিন তৈরির জন্য গ্যাভি এবং বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন ১৫ কোটি ডলার তুলে দিয়েছে ভারতের ওই সংস্থাটির হাতে। ২০২১ সালের শেষ নাগাদ ভারত ও অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের জন্য এই ১০ কোটি টিকা তৈরি হয়ে যাবে।

 


আরো সংবাদ

আটকে থাকা উন্নয়নের চাকাকে সচল করেছেন শেখ হাসিনা : মতিয়া চৌধুরী এমসি কলেজে গণধর্ষণ : জড়িতদের শাস্তির দাবিতে ছাত্রশিবিরের বিক্ষোভ মিছিল প্র শ্নো ত্ত র সিরাজদিখানে অটোরিকশাসহ ছিনতাইকারী চক্রের ২ সদস্য আটক  প্রধানমন্ত্রী স্বপ্ন দেখেন এবং তা বাস্তবায়ন করেন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দিনে-দুপুরে ককটেল ফাটিয়ে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই অনলাইন ব্যবসার নামে প্রতারণা, ২ প্রতারক গ্রেফতার মাফ করে দেন আর আ’লীগের সেবা চাই না : মান্না এমসি কলেজে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ : বিচারিক অনুসন্ধানের নির্দেশ ইবির নতুন ভিসি অধ্যাপক আব্দুস সালাম আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজান দ্বন্দ্ব: কোন দেশের সামরিক শক্তি কেমন?

সকল

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয়ের (১২৯৪২)ড. কামাল ও আসিফ নজরুল ঢাবি এলাকায় অবা‌ঞ্ছিত : সন‌জিত (১১৭২৪)‘সনজিতকে ক্যাম্পাসে দেখতে চায় না ঢাবি শিক্ষার্থীরা’ (১০৩২০)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৯০২০)আজারবাইজান ৬টি গ্রাম আর্মেনিয়ার দখল মুক্ত করেছে (৮৩৪১)নতুন বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সামনে আনলো ইরান (৫৭১১)যে কারণে এই শীতেই ভারত-চীন মারাত্মক যুদ্ধের আশঙ্কা রয়েছে (৫৬৫০)অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত (৫২২৯)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার মধ্যে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৯ (৫১৬৭)ছাত্রলীগের ঢাবি সভাপতি বক্তব্য স্পষ্টত সন্ত্রাসবাদের বহিঃপ্রকাশ (৫১৫০)