২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

শনাক্তে ইতালিকে ছাড়াচ্ছে বাংলাদেশ

-

পবিত্র ঈদুল আজহার কারণে করোনা পরীক্ষা কম হওয়ায় এ মাসের শুরু থেকে দেশে শনাক্ত সংখ্যা কমে গিয়েছিল; কিন্তু ঈদের ছুটি শেষে পরীক্ষা বাড়ার সাথে সাথে শনাক্তও বাড়ছে আশঙ্কাজনক হারে। গত রোববার দেশে করোনা শনাক্ত ছিল ৮৮৬ জন, সোমবার এক হাজার ৩৫৬ জন, মঙ্গলবার এক হাজার ৯১৮ জন এবং গতকাল বুধবার শনাক্ত হয় দুই হাজার ৬৫৪ জন। সব মিলিয়ে গতকাল পর্যন্ত সরকারিভাবে বাংলাদেশে দুই লাখ ৪৬ হাজার ৬৭৪ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে ওয়ার্ল্ডোমিটারে শনাক্তের দিক থেকে ১৫ নম্বর তালিকায় থাকা ইতালিতে করোনা আক্রান্তের পরিমাণ ছিল দুই লাখ ৪৮ হাজার ৪১৯ জন। ফলে ইতালির সাথে ১৬ নম্বর তালিকায় থাকা বাংলাদেশের সাথে শনাক্তের দিক থেকে পার্থক্য মাত্র এক হাজার ৭৪৫। এ অবস্থায় দেশে যে হারে শনাক্ত বাড়ছে, তাতে আজই বাংলাদেশ ইতালিকে পেছনে ফেলে ১৫ নম্বর স্থানে চলে যেতে পারে।
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো দুই হাজার ৬৫৪ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২৩ দশমিক ৭৮ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ২৫ জন পুরুষ এবং আটজন নারী। ফলে করোনায় এ পর্যন্ত তিন হাজার ২৬৭ জনের মৃত্যু হলো। গতকাল বুধবার কোভিড-১৯ সম্পর্কিত নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।
তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৮৯০ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ এক লাখ ৪১ হাজার ৭৫০ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৪৬ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৩২ শতাংশ।
বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৯ জন, খুলনা বিভাগে একজন, রাজশাহী বিভাগে একজন, রংপুর বিভাগে তিনজন এবং বরিশাল বিভাগে একজন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ৩১ জন এবং দুইজন বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেছেন।
চট্টগ্রামে দুইজনের মৃত্যু
চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৮০ নমুনায় আরো ১১৯ জনের দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে ১৪ হাজার ৬২৫ জনের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় উপজেলাপর্যায়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২৩৬ জন। একই সময়ে ১২০ জনসহ এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৭১৫ জন। গতকাল বুধবার চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন কার্যালয়ের নিয়মিত বুলেটিনে এসব তথ্য দেয়া হয়েছে।
সাতক্ষীরায় উপসর্গ নিয়ে এক নারীর মৃত্যু
সাতক্ষীরা সংবাদদাতা জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ (সামেক) হাসপাতালে গোলাপী রায় (৫০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে সামেক হাসপাতালের আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ নিয়ে জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে গতকাল পর্যন্ত মারা গেছেন ৫৩ জন।
সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা: রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে ৪ আগস্ট মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন গোলাপী রায়। বুধবার সকাল ৭টার দিকে তিনি মারা যান। ভর্তির পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হলেও এখন পর্যন্ত রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।
এ দিকে গত ২৪ ঘণ্টায় দুই র্যাব কর্মকর্তা, দুই স্বাস্থ্যকর্মী ও এক পুলিশ সদস্যসহ নতুন করে আরো ১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় ৫ অগস্ট পর্যন্ত মোট ৭৬০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন মোট ৫৪২ জন।
নোয়াখালীতে গৃহবধূর মৃত্যু
নোয়াখালী সংবাদদাতা জানান, নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন আরো ৭৮ জন। এ ছাড়া জেলার কবিরহাট উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোশারেফা আরা খাতুন (৭৫) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৬৬ জন। গতকাল বুধবার বিকেলে এ তথ্য নিশ্চিত করেন নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা: মাসুম ইফতেখার। জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩২৭৩ জন, যার মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২৩৮৯ জন।
মিরসরাইয়ে উপসর্গ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যু
মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মিরসরাই উপজেলার মিঠানালা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান খায়রুল আলম খায়ের (৬৫) মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মঙ্গলবার রাত ৮টায় চট্টগ্রাম শহরের ম্যাক্স হাসপাতালে তিনি মারা যান। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির সদস্য ছিলেন। গত ২৬ জুলাই আবুল খায়ের জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে চট্টগ্রামের ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি হার্টের সমস্যায়ও ভুগছিলেন।
চুয়াডাঙ্গায় মোট আক্রান্ত ৬৮৮
চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা জানান, চুয়াডাঙ্গায় নতুন করে ৩০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাত ৮টায় জেলা সিভিল সার্জন অফিসে এ রিপোর্ট এসে পৌঁছায়। এ নিয়ে শুধু ঈদের গত চার দিনে ৭০ জন করোনা আক্রান্ত হলেন। চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, জেলা থেকে এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ তিন হাজার ৫৬৯টি, প্রাপ্ত ফলাফল তিন হাজার ৩০৩টি, পজিটিভ ৬৮৮ জন, নেগেটিভ ২৬১৫ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৩৮ জন ও মৃত্যু ১১ জন।
বাজিতপুরে নতুন ২ জন আক্রান্ত
কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে নতুন করে দুইজনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে বাজিতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক ও রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা ডা: তাহলিল হোসেন শাওন নয়া দিগন্তকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বাজিতপুরে এ পর্যন্ত স্বাস্থ্যকর্মীসহ মোট ১৫৭ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।
ঝিনাইদহে নতুন ২৯ জন শনাক্ত
ঝিনাইদহ সংবাদদাতা জানান, ঝিনাইদহে নতুন করে আরো ২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১০১৪ জনে। ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন অফিসের করোনা সেলের মুখপাত্র ডা: প্রসেনজিত বিশ্বাস পার্থ এসব তথ্য জানিয়েছেন।
মাগুরায় নতুন ২৬ জন শনাক্ত
মাগুরা সংবাদদাতা জানান, মাগুরায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় ৪৯৩ জন আক্রান্ত হলো।
মাগুরার সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার ৪৪ জনের নমুনা পাঠানো হয়েছিল এর মধ্যে ২৬ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১০ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৩৬০ জন। জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০ জন।
রাজশাহী বিভাগে এক দিনে শনাক্ত ১০৪ জন
রাজশাহী ব্যুরো জানায়, করোনাভাইরাসে রাজশাহী বিভাগে এক দিনে ১০৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর সুস্থ হয়েছেন ৩৪১ জন। গত মঙ্গলবার নমুনা পরীক্ষায় নতুন এসব কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হন। একই দিন দ্বিতীয় দফা নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ রিপোর্ট আসায় ৩৪১ জনকে সুস্থ ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা: গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য এসব তথ্য জানিয়েছেন।
মঙ্গলবার বিভাগের রাজশাহী জেলায় করোনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। বিভাগে এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা এখন ১৮৪ জন। এর মধ্যে বগুড়ায় সর্বোচ্চ ১০৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া রাজশাহীতে ২৮ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে আটজন, নওগাঁয় ১৪ জন, নাটোরে একজন, জয়পুরহাটে চারজন, সিরাজগঞ্জে ১১ জন এবং পাবনায় ৯ জন মারা গেছেন। গোটা বিভাগে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ৪৬০ জন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ চার হাজার ৯৯৮ জন শনাক্ত হয়েছেন বগুড়ায়। এ ছাড়া রাজশাহীতে তিন হাজার ৩৩৬ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৪৯০, নওগাঁয় ৯৫৯, নাটোরে ৫৪৪, জয়পুরহাটে ৭৮০, সিরাজগঞ্জে এক হাজার ৫০১ জন এবং পাবনায় ৮৫২ জন শনাক্ত হয়েছেন।
কুমিল্লায় নতুন আক্রান্ত ৫৫
কুমিল্লা সংবাদদাতা জানান, কুমিল্লায় গতকাল বুধবার ৫৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে পাঁচ হাজার ৬৬৯ জনের। জেলায় বুধবার একজনসহ এ পর্যন্ত মোট মারা গেছেন ১৪৯ জন। এ দিন ১৩৪ জনসহ সর্বমোট সুস্থ হয়েছেন চার হাজার ২১৫ জন। বুধবার সিভিল সার্জন অফিস এই তথ্য জানায়।


আরো সংবাদ

সীমান্তে মাইন, মুংডুতে ৩৪ ট্যাংক (৯৭২২)কেন বন্ধু প্রতিবেশীরা ভারতকে ছেড়ে যাচ্ছে? (৭৫৯৮)সৌদি রাজতন্ত্রকে চ্যালেঞ্জ করে সৌদি আরবে বিরোধী দল গঠন (৭১১২)৫৪,০০০ রোহিঙ্গাকে পাসপোর্ট দিতে সৌদি চাপ : কী করবে বাংলাদেশ (৪৮৪৪)কাশ্মিরিরা নিজেদের ভারতীয় বলে মনে করে না : ফারুক আবদুল্লাহ (৪২২০)শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া ১৫ দিন পর এইচএসসি পরীক্ষা (৩৭৩৭)দেশের জন্য আমি জীবন উৎসর্গ করলেও আমার বাবার আরো দুটি ছেলে থাকবে : ভিপি নূর (৩৪৭৬)বিরাট-অনুস্কাকে নিয়ে কুৎসিত মন্তব্য গাভাস্কারের, ভারত জুড়ে তোলপাড় (৩৩৭২)আ’লীগ দলীয় প্রার্থী যোগ দিলেন স্বতন্ত্র এমপির সাথে (৩৩৩১)কক্সবাজারের প্রায় ১৪০০ পুলিশ সদস্যকে একযোগে বদলি (৩২৫৫)