০৬ জুন ২০২০

সব পণ্যের দাম বেড়েছে ঈদের অজুহাতে

-

এক দিন পরই ঈদ। আর ঈদের পরে সাধারণত বাজার খোলে না কয়েক দিনেও। স্বাভাবিক কারণেই অধিকাংশ পণ্যই একটু বেশি পরিমাণে কিনছে ক্রেতারা। আর ধনী-গরিব নির্বিশেষে চলমান করোনার মাঝেও একটু ভালো খাবার কেনার চিন্তা করছে সকলেই। স্বাভাবিক কারণেই বাজারের ওপর পড়েছে বাড়তি চাপ। বিক্রেতারা সে চাপ চাপিয়ে দিয়েছে ক্রেতার ওপর। ঈদের অজুহাতে দাম বেড়েছে অধিকাংশ পণ্যেরই। বিশেষ করে ফার্মের মুরগির দাম বাড়তে বাড়তে ১৯০ টাকায় ঠেকেছে। বেড়েছে সবধরনের সবজির দামও। এক লাফে গাজরের কেজি ১০০ টাকায় উঠেছে। গতকাল শুক্রবার রাজধানী ঢাকার কাঁচাবাজারের চিত্র এটি।
বাজার ঘুরে দেখা যায়, কয়েক দিন ধরে বাড়তে থাকা পোলট্রি মুরগির দাম গতকাল আরও এক দফা বেড়েছে। এতে বাজার ভেদে পোলট্রি মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৮০ থেকে ১৯০ টাকা, যা এক দিন আগে ছিল ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা। এক সপ্তাহ আগে ছিল ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা এবং এক মাস আগে ছিল ১১০ টাকা। খামার থেকে সরবরাহ কম থাকায় লেয়ার মুরগির দাম বাড়ছে উল্লেখ করে বিক্রেতারা জানায়, পোলট্রি মুরগির দাম বাড়লেও লাল লেয়ার ও পাকিস্তানি কক মুরগির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লাল লেয়ার মুরগি আগের মতো ২১০ থেকে ২২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আর পাকিস্তানি কক মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৩০ থেকে ২৪০ টাকা।
এক দিনের মধ্যেই দাম বেড়ে গেছে শসা, পটোল, ঝিঙে, পাকা টমেটো, বরবটি, করলাসহ সব ধরনের সবজির। দুই দিন আগে ১৫ থেকে ২০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া শসার দাম এক লাফে বেড়ে ৪০ থেকে ৫০ টাকা হয়েছে। পাকা টমেটোর দাম বেড়ে হয়েছে ৪০ থেকে ৬০ টাকা। পটোল বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি। করলার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। বরবটির কেজি ৭০ টাকা ছুঁয়েছে, যা এক দিন আগে ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে। ঝিঙার কেজি বেড়ে হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা, যা এতদিন ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। এছাড়া চিচিঙ্গার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। কচুর লতির কেজি ৬০ থেকে ৭০ টাকা, বেগুনের কেজি ৬০ থেকে ৮০ টাকাবিক্রি হচ্ছে।
সবজি ব্যবসায়ীরা বলছে, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ফলে চাষিরা ঠিক মতো সবজি তুলতে পারছে না। এ ছাড়া দুই দিন পরেই ঈদ। এ কারণে আড়তে ঠিকমতো সবজির গাড়ি আসেনি। ফলে বাজারে সবজির সরবরাহ কম। তাই এক দিনেই আড়তে সব ধরনের সবজির দাম কেজিতে ১০ টাকার ওপরে বেড়েছে। তারপরও অনেক খুচরা ব্যবসায়ী আড়ত থেকে চাহিদা অনুযায়ী সবজি কিনতে পারেনি। তারা জানায়, আড়তে গতকাল সব সবজির দাম কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বেড়েছে। তারপরও অনেক সবজি আড়তে কিনতে পাওয়া যায়নি। ঈদের পর সবজির সরবরাহ বাড়বে, তখন আবার দাম কিছুটা কমতে পারে।
দেশী পেঁয়াজের দর কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে আকার ভেদে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা হয়েছে। ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। চীনা আদা কেজিতে ২০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকায়। আর ভারতীয় আদা বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকা। পাইকারি ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে ২০ শতাংশ দাম কমানোর ঘোষণা দেয়া হলেও খুচরা বাজারে গরম মসলার দামে নতুন করে কোনো হেরফের নেই। বাজারে সুগন্ধি চালের দাম আগে থেকেই চড়া। খোলা চিনিগুঁড়া চাল প্রতি কেজির দাম মানভেদে ১০০ থেকে ১১০ টাকা।
এদিকে মিনিকেট ও নাজিরশাল চাল বিক্রি হচ্ছে ৫২ থেকে ৫৬ টাকা কেজি, মাঝারিমানের পাইজাম ও লতা চালের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪২ থেকে ৪৬ টাকা, গরিবের মোটা চালের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৬ থেকে ৪০ টাকা। লুজ সয়াবিন তেল ৯০ থেকে ৯৫ টাকা, ভালোমানের পাম অয়েল ৭৫ থেকে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। বড় দানার মসুরের ডাল ৮০ থেকে ৯০ টাকা, ছোট দানার মসুরের ডাল ১২০ থেকে ১৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। প্যাকেট ১২০ টাকা। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সেমাইয়ের প্রতি ২০০ গ্রামের প্যাকেট ৩৫ টাকা, ৪০০ গ্রাম ঘিয়ের কৌটা ৫০০ থেকে ৫২০ টাকা, প্রতি লিটার তরল দুধ ৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
বাজার ঘুরে দেখা যায় রুই মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২২০ থেকে ৫০০ টাকা। নলা মাছ বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ২০০ টাকা কেজি। তেলাপিয়া ১৩০ থেকে ১৭০ টাকা, পাঙাশ ১৪০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি, শিং ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকা, শোল মাছ ৪০০ থেকে ৭৫০ টাকা, পাবদা ৪৫০ থেকে ৬০০ টাকা, বোয়াল ৫০০ থেকে ৮০০ টাকা, টেংরা ৪৫০ থেকে ৬০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। গরুর গোশত ৬০০ টাকা এবং খাসির গোশত ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়।


আরো সংবাদ

প্রতিষ্ঠান খুলে শিক্ষার্থীদের বিপদে ফেলতে চাই না : প্রধানমন্ত্রী (২৩৯৮২)নুতন মেসি লুকা রোমেরো (১৩০৬৪)ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর স্বাস্থ্যের অবনতি (১৩০৬২)গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত করোনা টেস্ট কিট অনুমোদনে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লিগ্যাল নোটিশ (১১০৭৩)শরীরে করোনা উপসর্গ, ভর্তি নিল না কেউ, স্ত্রীর কোলে ছটফট করে স্বামীর মৃত্যু (৭৪০৭)মোহাম্মদ নাসিমের অবস্থার অবনতি, জরুরি অস্ত্রোপচার চলছে (৭৩৪৫)সাবধান! ভুলেও এই ছবিটি স্মার্টফোনের ওয়ালপেপার করবেন না (৬৩৮৪)যে কারণে 'এ পজিটিভ' রক্তে করোনা আক্রান্তের ঝুঁকি বেশি (৬২৮৭)বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত ৬০ হাজার ছাড়ালো, নতুন মৃত্যু ৩০ (৬২১১)কেরালায় আনারস খেয়ে গর্ভবতী হাতির মৃত্যু নিয়ে সবশেষ যা জানা গেছে (৬০৬১)




justin tv