০৬ জুন ২০২০

করোনায় নতুন অর্থবছরের বাজেট প্রণয়নে স্থবিরতা

-

করোনাভাইরাসজনিত পরিস্থিতির কারণে আগামী অর্থবছরের বাজেট প্রণয়ন প্রক্রিয়া স্থবির হয়ে পড়েছে। বছরের এ সময়টা বাজেট প্রণয়নের জন্য বিভিন্ন অংশীদারদের সাথে আলোচনা শুরু করার কথা থাকে। কিন্তু করোনার কারণে এখন সব কিছুই বন্ধ হয়ে গেছে।
যেমনÑ ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনা শুরু করার কথা ছিল আজ থেকে। প্রথম আলোচনাটি নির্ধারণ করা হয়েছিল বিভিন্ন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি এবং সরকারি প্রতিষ্ঠান কমিটির সভাপতিদের সাথে। কিন্তু সেটি আর করা যাচ্ছে না। এর পরপরই নির্ধারিত ছিল দেশের অর্থনীতিবিদদের সাথে আলোচনা করার। কিন্তু করোনার কারণে সব কিছু বাতিল করে দেয়া হয়েছে।
করোনার কারণে দেশে এখন লকডাউন চলছে, এ জন্য সব সরকারি-বেসরকারি অফিসসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গত বৃহস্পতিবার থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ কারণে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সব কর্মকাণ্ডও বন্ধ রয়েছে। বাজেট নিয়ে কোনো আলোচনাও করা সম্ভব হচ্ছে না।
অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সাথে টেলিফোনে আলাপ করে এসব তথ্য জানা গেছে। অর্থ বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, শুধু নতুন বাজেট প্রণয়ন প্রক্রিয়াই নয়, চলতি অর্থবছরের বাজেট সংশোধন প্রক্রিয়াও করোনার কারণে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এ সময়ে আমরা সংশোধিত বাজেট চূড়ান্ত করে ফেলি। কিন্তু অফিস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তা সম্ভব হয়ে উঠেনি। তিনি আরো বলেন, আগামী ৪ এপ্রিল বাজেট সম্পর্কিত কো-অর্ডিনেশন কাউন্সিলের সভা হওয়ার কথা রয়েছে। এই সভায় আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটের প্রাথমিক একটি আকার ঠিক করার কথা। কিন্তু অবস্থা যা দাঁড়াচ্ছে তাতে এ সভাটিও করা সম্ভব হবে না। এখন সবাই করোনা পরিস্থিতি কিভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায় আগের মতো আর প্রাক-বাজেট আলোচনা করা সম্ভব হবে না এবার। কারণ করোনাভাইরাসের কারণে বর্তমানে সব ধরনের জমায়েত, সভা করার ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তাই এ পরিস্থিতির কারণে সভা করাও সম্ভব হবে না। তবে পরিস্থিতি উন্নয়ন হলে আমরা চেষ্টা করব কিছু প্রাক-বাজেট আলোচনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে করার। এ ক্ষেত্রে আলোচনা অনেক কাটছাঁট করা হবে।
করোনার কারণে শুধু অর্থ বিভাগের প্রাক-বাজেট আলোচনাই নয়, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) মাসব্যাপী প্রাক-বাজেট আলোচনাও বন্ধ হয়ে গেছে।
গত ১৯ মার্চ বিকেল ৩টায় বাংলাদেশ সিরামিক ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন ও বারবিডা প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময়ের মধ্য দিয়ে এ আলোচনা শুরু হয়। এরপর আর মাত্র দু’টি সভা করা সম্ভব হয়েছে বলে জানা গেছে। তারপর সকল সভা স্থগিত করা হয়েছে। এ ধরনের প্রাক-বাজেট আলোচনা ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত চলার কথা রয়েছে।
মোট ২৮টি খাতের প্রতিনিধিদের সাথে ২০২০-২১ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটের শুল্ক, ভ্যাট এবং করসংক্রান্ত বিষয়ে মতবিনিময় করবে এনবিআর। বৈঠকগুলোতে সভাপতিত্ব করছেন অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান সিনিয়র সচিব আবু হেনা মো: রহমাতুল মুনিম।
এ বিষয়ে এনবিআরের এক সূত্র জানায়, করোনাভাইরাস জনিত পরিস্থিতির কারণে প্রাক-বাজেট আলোচনা আর করা সম্ভব নাও হতে পারে। এ ক্ষেত্রে আমরা দু’টি পন্থা অবলম্বন করতে পারি। একটি হচ্ছেÑ যেসব সংগঠনের সাথে প্রাক-বাজেট আলোচনার কথা ছিল তাদের আমরা বাজেট বিষয়ে লিখিত সুপারিশ বা প্রস্তাব দিতে বলব। অন্যটি হচ্ছেÑ কিছু বৈঠক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেও করা যেতে পারে। সব কিছুই নির্ভর করবে পরিবর্তিত পরিস্থিতির ওপর।


আরো সংবাদ

প্রতিষ্ঠান খুলে শিক্ষার্থীদের বিপদে ফেলতে চাই না : প্রধানমন্ত্রী (২৩৯৮২)নুতন মেসি লুকা রোমেরো (১৩০৬৪)ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর স্বাস্থ্যের অবনতি (১৩০৬২)গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত করোনা টেস্ট কিট অনুমোদনে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লিগ্যাল নোটিশ (১১০৭৩)শরীরে করোনা উপসর্গ, ভর্তি নিল না কেউ, স্ত্রীর কোলে ছটফট করে স্বামীর মৃত্যু (৭৪০৭)মোহাম্মদ নাসিমের অবস্থার অবনতি, জরুরি অস্ত্রোপচার চলছে (৭৩৪৫)সাবধান! ভুলেও এই ছবিটি স্মার্টফোনের ওয়ালপেপার করবেন না (৬৩৮৪)যে কারণে 'এ পজিটিভ' রক্তে করোনা আক্রান্তের ঝুঁকি বেশি (৬২৮৭)বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত ৬০ হাজার ছাড়ালো, নতুন মৃত্যু ৩০ (৬২১১)কেরালায় আনারস খেয়ে গর্ভবতী হাতির মৃত্যু নিয়ে সবশেষ যা জানা গেছে (৬০৬১)




justin tv