০১ জুন ২০২০

গ্রামফেরতদের নজরদারি প্রশাসনের

নতুন শনাক্ত নেই, আরো সুস্থ ৪ জন : শিবগঞ্জে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু
-

করোনাভাইরানের কারণে সরকার ঘোষিত ছুটিতে ঢাকা ও ঢাকার বাইরের বিভিন্ন শহর থেকে গ্রামে ফেরা মানুষদের ওপর নজরদারি বৃদ্ধি করেছে স্থানীয় প্রশাসন ও সেনাবাহিনী। গণপরিবহনে ভিড়ের মধ্যে বাড়ি যাওয়ায় তাদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ হতে পারে এমন আশঙ্কায় এই নজরদারি করা হচ্ছে। প্রশাসন ও সেনাবাহিনী এসব মানুষকে বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে। কারো শরীরে করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দিলে দ্রুত স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে যোগাযোগ করতে বলা হচ্ছে। এ ছাড়া শহর থেকে ব্যাপকসংখ্যক মানুষ গ্রামে যাওয়ায় আগে থেকে গ্রামে থাকা মানুষদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
এ দিকে বগুড়ার শিবগঞ্জে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া এক ব্যক্তির বাড়ির আশপাশের ১০টি বাড়িকে লকডাউন করা হয়েছে। রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে এক আনসার সদস্যের শরীরে উপসর্গ পাওয়ায় সেখানেও ১০টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এ ছাড়া মাদারীপুরের শিবচরে এক ইতালি প্রবাসীর পরিবারের পাঁচ সদস্যকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। খুলনা মেডিক্যালে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকা ১৬ নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী ৩০ ঘণ্টা পর বাড়ি ফিরেছেন। শরীরে কারোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ না থাকায় জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে থাকাদের ছাড়পত্র দেয়ার পরিমাণ গতকাল বেড়েছে।
নতুন রোগী শনাক্ত হয়নি, আরো সুস্থ হয়েছেন ৪ জন
নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসে আক্রান্ত কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। এ সময়ে ৪২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আরো সুখবর হলোÑ আক্রান্ত চারজন করোনা রোগীকে সুস্থ ঘোষণা করা হয়েছে। পর পর দু’বার নমুনা পরীক্ষায় তাদের শরীরে ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।
গতকাল শনিবার দুপুরে অনলাইন প্রেস বিফিংয়ে রোগতত্ত্ব রোগ নির্ণয় ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ডা: মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান।
তিনি আরো জানান, চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল ইনফেকশাস ডিজিজে (বিআইটিআইডি) গত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচটি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এই কেন্দ্রে মোট আটজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বাংলাদেশে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮। তাদের মধ্যে দুই বছরের এক শিশুসহ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৫ জন। আক্রান্তদের একজনের কিডনি সমস্যা ছিল। তাকে ডায়ালাইসিস দেয়া হয়েছে। এখন তিনি সুস্থ, আগের মতোই তিনি বাড়ি গিয়ে ডায়ালাইসিস করাবেন। আরেকজনের উচ্চ রক্তচাপ ছিল।
ব্রিফিংয়ের শুরুতে করোনাবিষয়ক তথ্য উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের এমআইএসর পরিচালক ডা: হাবিবুর রহমান।
ড. সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, হটলাইনের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়েও হটলাইন সম্প্রসারণ করা হয়েছে। স্থানীয়দের এগুলো ব্যবহারের পরামর্শ দেন তিনি।
ডা: হাবিবুর রহমান বলেন, রংপুর ও রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনাভাইরাস পরীক্ষার পিসিআর মেশিন বসানোর কাজ চলছে। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পিসিআর মেশিন বসানোর জন্য অভিজ্ঞরা সেখানে গেছেন। আগামী সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যে অন্য বিভাগগুলোতেও পিসিআর মেশিন বসানো হবে। তিনি জানান, ইতোমধ্যে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে অতিরিক্ত ১৬টি ভেন্টিলেটর মেশিন বসানো হয়েছে। এ ছাড়া শেখ রাসেল ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ডাইজেস্টিভ ডিজিজেস হাসপাতালে আটটি ভেন্টিলেটর মেশিন বাসনো হচ্ছে। আজকের মধ্যে ভেন্টিলেটর বসানোর কাজ শেষ হবে। রাজধানীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালেও পিসিআর মেশিন স্থাপন করা হবে।
ডা: হাবিবুর রহমান বলেন, চিকিৎসক, নার্স ও অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষার জন্য পিপিই দেয়াটা আমাদের অগ্রাধিকারের মধ্যে রয়েছে। কোনো প্রতিষ্ঠানে পিপিই ঘাটতি হবে না। তবে কোথাও কোথাও কম পাঠানো হতে পারে। তিনি বলেন, যাদের ক্যান্সার, শ্বাসকষ্ট, ডায়াবেটিস রয়েছে তারা ঘরে থাকবেন। কারণ এই রোগগুলোতে আক্রান্তরা খুবই ঝুঁকিপুর্ণ।
ধুয়ে ব্যবহার করা যাবে পিপিই : পিপিই ব্যবহারের পর যখন কোনো ব্যবহারকারী বের হয়ে যাবেন সাথে সাথে ওই পিপিইটি সাবান পানির মধ্যে ভিজিয়ে রাখলে তা জীবাণুমুক্ত হয়ে যাবে। পরে এটা শুকিয়ে ব্যবহার করা যাবে। সঠিকভাবে পিপিই ব্যবহার করলে সংক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।
লাশের ব্যবস্থাপনা : রাস্তায় টহলদানকারীদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সেনাবাহিনীর সদস্যদের কাছে লাশ কিভাবে দাফন করা হবে এ ধরনের একটি গাইডলাইন দেয়া আছে। তারা সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবেন। আজকাল দেখা যাচ্ছে রাস্তায় মানুষ পরে মরে আছে কেউ ধরছেন না। ডা: হাবিবুর রহমান বলেন, এটা হতেই পারে। কারণ পড়ে থাকা লাশের মধ্যে কোভিড-১৯-এর জীবাণু থাকতে পারে বলে মানুষ ধরতে চাচ্ছে না।
লক্ষণ পেলে পরীক্ষা : হাবিবুর রহমান বলেন, যেখানে লক্ষণ পাচ্ছি সেখানেই আইইডিসিআরের সদস্যরা যাচ্ছেন এবং সেখানকার মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। টেকনিশিয়ানদের প্রশিক্ষিত করা হচ্ছে। লক্ষণ যেখানে পাওয়া যাবে সেখান থেকে তারা নমুনা সংগ্রহ করবেন।
পিটিয়ে কোয়ারেন্টিনে নিচ্ছে বলে মনে করে না স্বাস্থ্য অধিদফতর : ডা: হাবিবুর রহমান বলেন, পুলিশের কাছে কিছু ব্যবস্থাতো থাকেই। যেভাবে ঢালাওভাবে বলা হচ্ছে যে মানুষকে পিটিয়ে কোয়ারেন্টিনে নিচ্ছে এমন অভিযোগ ঠিক নয়। পুলিশ পিটিয়ে কোয়ারেন্টিনে নিচ্ছে বলে মনে করছি না।
হাসপাতালে ১৬ দিন থাকতে হয় : হাসপাতালে যারা ছিলেন তাদের মধ্যে লক্ষণ-উপসর্গ থাকলেও হাসপাতালে আসার দু’দিন পরই তাদের উপসর্গ শেষ হয়ে যায়। ভর্তি হওয়ার সময়ই তাদের মধ্যে মৃদু উপসর্গ ছিল। পরে হাসপাতালে তাদের আট থেকে ১৬ দিনের মধ্যে থাকতে হয় এবং এর মধ্যেই তারা সুস্থ হয়ে গেছেন। সুস্থ রোগীদের সর্বনি¤œ বয়স দুই বছর এবং সর্বোচ্চ ৫৪ বছর। অধ্যাপক সেব্রিনা ফ্লোরা কিছু ক্লাস্টারে সীমিত পরিসরে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়েছে বলে জানান। তবে সে জায়গায়টা চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।
শিবচরের ইতালি প্রবাসীর পরিবারের ৫ সদস্য রিলিজ
শিবচর (মাদারীপুর) সংবাদদাতা জানান, মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার ইতালি প্রবাসীর পরিবারের আট সদস্যের মধ্যে পাঁচজনকে আইসোলেশন ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন শেষে জেলা সদর হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়া হয়েছে। তাদের দুইজন আইসোলেশনে ও তিনজন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। তিনজন এখনো হাসপাতালে রয়েছেন। মাদারীপুর সিভিল সার্জন শফিকুল ইসলাম বলেন, নতুন কোনো সংক্রমণের ঘটনা না ঘটলেও মূল চিন্তা এখন গাদাগাদি করে ঢাকাসহ বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ফেরত আসাদের নিয়ে। তিনি ফেরত আসাদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দেন। এ দিকে দেশের প্রথম লকডাউন ঘোষণার নবম দিনে শিবচরে দোকানপাট বন্ধসহ অচলাবস্থা বিরাজ করছে। গত শুক্রবার শিবচরের একটি হাটে অভিযান চালিয়ে বন্ধ করে দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাড়তি দাম রাখায় ওই হাটের এক দোকানিকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর পক্ষ থেকে খাবার ও ওষুধ সহায়তা অব্যাহত রয়েছে।
বাঘাইছড়ির ১০ পরিবার লকডাউন
রাঙ্গামাটি সংবাদদাতা জানান, রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার পশ্চিম মুসলিমপাড়া ব্লøক এলাকায় স্থানীয় ১০ পরিবারকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবিব জিতু এই লকডাউন ঘোষণা দেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঢাকা থেকে ট্রেনিং করে আসা এক আনসার সদস্য অসুস্থ হয়ে পড়েন। তার শরীরে করোনাভাইরাসের প্রাথমিক লক্ষণ পাওয়া যায়। পরে উপজেলা প্রশাসন লকডাউনের এ সিদ্ধান্ত নেয়। অসুস্থ আনসার সদস্যকে চট্টগ্রামে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।
ঠাকুরগাঁওয়ে একই পরিবারের পাঁচজনের শরীরে প্রাথমিক লক্ষণ
ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা জানান, ঠাকুরগাঁওয়ে একই পরিবারের পাঁচজন সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। তাদের শরীরে আক্রান্ত হওয়ার প্রাথমিক লক্ষণ পাওয়া গেছে। একজনের অবস্থা গুরুতর। তাদের সবাইকে রংপুর মেডিক্যালে স্থানান্তর করা হয়েছে। অসুস্থরা হলেনÑ সদর উপজেলার চিলারং ইউনিয়নের ভেলাজান নদীপাড়ার বাসিন্দা (৩০), তার স্ত্রী, আড়াই বছরের কন্যা সন্তান এবং ছোট ভাই ও তার স্ত্রী। এর মধ্যে একজন ঢাকায় রেস্তোরাঁ ব্যবসা করতেন। গত ১৩ মার্চ ঢাকা থেকে মাদারীপুরে পিকনিকে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পরই জ্বর শুরু হয়। জ্বর নিয়ে তিনি ট্রেনে ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁওয়ে আসেন। বাড়িতে আসার পর তার জ্বর বাড়তে থাকে, সাথে শ্বাসকষ্ট ও পাতলা পায়খানা শুরু হয়। একই সমস্যা দেখা দেয় তার স্ত্রী ও শিশু বাচ্চার।
ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল কর্মকর্তা ডা: রকিবুল আলম জানান, সংবাদ পেয়ে গতকাল বিকেলে তাদের বাড়ি থেকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। রোগীদের বর্ণনা ও লক্ষণ দেখে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন। পরে আইইডিসিআর-এর পরামর্শে সন্ধ্যায় তাদের রংপুর মেডিক্যালে স্থানান্তর করা হয়েছে।
শিবগঞ্জে এক ব্যক্তির মৃত্যুর পর ১০ বাড়ি লকডাউন
বগুড়া অফিস জানায়, বগুড়ার শিবগঞ্জেজ মাসুদ রানা (৫০) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যুর পর এলাকায় করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। উপজেলা প্রশাসন মৃত ব্যক্তির বাড়ির আশপাশের ১০টি বাড়ি লকডাউন করেছে এবং মৃত ব্যক্তির নাকের ছোয়াব সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠিয়েছে। এ দিকে মৃতের স্ত্রী গত শুক্রবার সারারাত হাসপাতাল, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশের কাছে ফোন করে এমনকি প্রতিবেশীদেরও কোনো সহায়তা পাননি বলে অভিযোগ করেছেন। মাসুদ রানা গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় একটি মুদি দোকানে কাজ করতেন। শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবির জানান, মাসুদ জ্বর, সর্দি-কাশি ও গলাব্যথা নিয়ে কর্মস্থল থেকে গত ২৪ মার্চ বাড়ি আসেন। পরে তার স্ত্রীর ভাড়াবাড়ি দাড়িদহ গ্রামে যান। সেখানে শুক্রবার রাতে তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় এলাকায় করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে ওই বাড়ির আশপাশের ১০টি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করে সবাইকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়। বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাক্তার মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন বলেন, এ বিষয়ে আইইডিসিআরের পরামর্শ অনুযায়ী মৃত ব্যক্তির নাকের ছোয়াব সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।
খুমেকের ১৬ নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী ৩০ ঘণ্টা পর বাড়ি ফিরেছেন
খুলনা ব্যুরো জানায়, খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকা ১৬ জন নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীকে বাড়ি ফিরতে অনুমতি দেয়া হয়েছে। প্রায় ৩০ ঘণ্টা পর গত শুক্রবার রাতে তারা ঘরে ফিরে যান। জ্বর ও শ্বাসকষ্টে মারা যাওয়া রোগী মোস্তাহিদুর রহমান (৪৫) করোনা আক্রান্ত হতে পারেন আশঙ্কায় গত বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে তাদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) ওই রোগীর করোনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসায় তারা মুক্তি পান। এই ১৬ স্বাস্থ্যকর্মী মোস্তাহিদের চিকিৎসাসেবায় নিয়োজিত ছিলেন। খুমেক হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ও করোনা ম্যানেজমেন্টের ফোকাল পারসন ডা: শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বলেন, এসব নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা এখন থেকে তাদের বাড়িতে দুই সপ্তাহ সতর্কতামূলক হোম কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। এ ছাড়া একই হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি পুলিশ সদস্য ও শিক্ষিকাসহ চারজনকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। পরীক্ষায় তাদের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি।
ঝালকাঠিতে ৭৪ জনকে ছাড়পত্র
ঝালকাঠি সংবাদদাতা জানান, ঝালকাঠিতে বিদেশফেরত ১৮৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রেখেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তাদের মধ্যে ১৪ জনের ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিন শেষ হওয়ায় তাদের ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। তারা প্রত্যেকেই সুস্থ আছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কাউকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়নি বলেও জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা: শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার।
ধামইরহাটে ঢাকা ফেরতদের তালিকা হচ্ছে
ধামইরহাট (নওগাঁ) সংবাদদাতা জানান, নওগাঁর ধামইরহাটে ঢাকা থেকে আগত ব্যক্তিদের তালিকা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গণপতি রায় ঢাকা থেকে আগতদের বাড়িতে থাকর পরামর্শ দিয়েছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন, গতকাল পর্যন্ত বিদেশফেরত ৫০ ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।
চাঁদপুর সংবাদদাতা জানান, চাঁদপুরে ফার্মেসি ও কিছু মুদিদোকান ছাড়া গোটা জেলার সব দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। নিত্যপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে সততা স্টোর চালু করেছে জেলা প্রশাসন। এ ছাড়া জেলায় যাত্রীবাহী পরিবহন লঞ্চ, ট্রেন ও বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। রাস্তাঘাটে লোকজনের চলাচল তেমন নেই। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে মাঠে কাজ করছে সেনাবাহিনী। চাঁদপুরে বর্তমানে ২৪২ জন প্রবাসফেরত ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন।
রংপুর অফিস জানায়, রংপুর বিভাগের আট জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টিনে গেছেন বিদেশফেরত আরো ৪০ জন। এ নিয়ে এই বিভাগে মোট হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন এক হাজার ৫৩১ জন। রংপুর স্বাস্থ্য বিভাগের সহকারী পরিচালক ও করোনাবিষয়ক ফোকাল পারসন জেড এম সিদ্দিকী জানিয়েছেন, এ বিভাগে এক হাজার ৩৩৬ জন ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ না থাকায় হোম কোয়ারেন্টিন থেকে তাদের ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।
টাঙ্গাইল সংবাদদাতা জানান, টাঙ্গাইলে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৭ জন প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। এ নিয়ে শনিবার বেলা ১১টা পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টিনের আওতায় আনা হলো এক হাজার ৫৩৮ জন প্রবাসীকে। তাদের মধ্যে ৭৯৩ জনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ৭৪৫ জন প্রবাসী।
কুড়িগ্রাম সংবাদদাতা জানান, কুড়িগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় তিনজনসহ ১০৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। এ ছাড়া ২০৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জেলার ৯ উপজেলায় মোট ৫৪০ জন বিদেশফেরত রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩১৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা সম্ভব হয়েছে। এ দিকে কুড়িগ্রাম সিভিল সার্জন ডা: হাবিবুর রহমান জানান, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষায় কুড়িগ্রাম জেলার জন্য ৬৫০ পিপিই পেয়েছি, যা জেনারেল হাসপাতালসহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে বিতরণ করা হয়েছে।
মুন্সীগঞ্জ সংবাদদাতা জানান, মুন্সীগঞ্জে নতুন ছয়জনসহ হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন ৩৬৮ জন। ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ৩০৯ জনকে। কোয়ারেন্টিনে নতুন যুক্তরা হলেন টঙ্গীবাড়িতে তিনজন, সিরাজদিখানে একজন ও শ্রীনগরে দুইজন।
বরিশালে ছাড়পত্র পেয়েছেন ১,২০৪ জন
বরিশাল ব্যুরো জানায়, বরিশাল বিভাগের ছয় জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে অবস্থান করছেন দুই হাজার ৭৫৫ জন। এর মধ্যে এক হাজার ২০৪ জনকে মেয়াদ শেষে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ দেখা যায়নি। বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক ডা: বাসুদেব কুমার দাস জানান, হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডগুলোতে রোগী ভর্তি করা হলেও কারো শরীরে এখনো পর্যন্ত করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়নি। এ দিকে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের সমন্বয়ে বরিশালের বিভিন্ন উপজেলায় নির্দিষ্ট কিছু বিদ্যালয়ে বিশেষ কোয়ারেন্টিন ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে এখানে সন্দেহভাজন রোগীদের পর্যবেক্ষণ ও চিকিৎসা করা হবে।
দিনাজপুরে আইসোলেশনে থাকা দু’জনের অবস্থার উন্নতি
দিনাজপুর সংবাদদাতা জানান, দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আট বছরের এক শিশু ও ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্টকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। তাদের দু’জনের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে তাদের শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: সোলায়মান হোসেন মেহেদী। গত সোমবার দুপুরে আট বছরের এক শিশুকে এবং মঙ্গলবার দুপুরে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্টকে আইসোলেশনে রাখা হয়। এ সময় তাদের পরিবারকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়।
কুষ্টিয়া সংবাদদাতা জানান, কুষ্টিয়ায় জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশনে রাখা সাত মাসের শিশু এখন সম্পূর্ণ সুস্থ। কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডা: এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম জানান, শহরের কালিশংকরপুর এলাকার বাসিন্দা সিঙ্গাপুরফেরত তৌহিদুল ইসলাম হোম কোয়ারেন্টিন মেনে চলছিলেন। এরই মধ্যে তার সাত মাসের শিশুটি গত ২৩ মার্চ জ্বর, ঠাণ্ডা ও কাশিতে আক্রান্ত হয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়। তাকে নিউমোনিয়ার চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। যেহেতু শিশুটির বাবা প্রবাসে ছিলেন তাই গত বৃহস্পতিবার তাকে হাসপাতালের আইসোলেশনে রাখি। পরে শিশুটি করোনা পজেটিভ কি না এটা পরীক্ষার জন্য আইইডিসিআরকে জানানো হয়। সেখান থেকে পজেটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেলে ছাড়পত্র দেয়া হবে। এ দিকে জেলায় বর্তমানে বিদেশফেরত ২৮০ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া গতকাল সকালে জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন স্থানীয় সাংবাদিক এবং কালেক্টরেট অফিসে দায়িত্ব পালনরতদের স্যানিটেশন সরঞ্জাম প্রদান করেন। তিনি বিভিন্ন উপজেলায় ফেরিওয়ালা, দিনমজুরসহ দরিদ্রদের জন্য শুকনা খাবার বিতরণ করেন। জেলায় করোনাসংক্রান্ত তথ্য ও অভিযোগ কেন্দ্র খোলা হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু রাসেলকে কেন্দ্রের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, চট্টগ্রামে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ৯৪৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কাউকে এর আওতায় আনা হয়নি। এ ছাড়া গতকাল ১১ জনের হোম কোয়ারেন্টিন শেষ হওয়ায় তাদের ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।
রাজশাহী ব্যুরো জানায়, রাজশাহী জেলায় গতকাল পর্যন্ত ৫৪২ জন বিদেশফেরত ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। তবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কোনো রোগী এ জেলায় এখনো শনাক্ত হয়নি। সর্বশেষ গত শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে গতকাল শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৭ জন বিদেশফেরত ব্যক্তিকে চিহ্নিত করে হোম কোয়ারেন্টিনের আওতায় আনা হয়েছে। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগের আটটি জেলায় নতুন করে মোট ৭৩৫ জনকে চিহ্নিত করে হোম কোয়ারেন্টিনের আওতায় আনা হয়েছে। এ দিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগের আটটি জেলায় নতুন করে ৭৩৫ জনকে চিহ্নিত করে হোম কোয়ারেন্টিনের আওতায় আনা হয়েছে।
ফরিদপুর সংবাদদাতা জানান, ফরিদপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় বিদেশফেরত আরো ৩৩ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে ফরিদপুরে শনিবার পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে এক হাজার ৬০০ জনকে। এ দিকে হোম কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় গতকাল আরো ২৪ জনকে মুক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে মোট মুক্ত করা হলো ৫৫৮ জনকে।
সাতক্ষীরা সংবাদদাতা জানান, সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘণ্টায় বিদেশফেরত আরো ১০৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। এ নিয়ে মোট দুই হাজার ১৫৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ৭৩ জনকে। এ দিকে, সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরসহ সীমান্ত এলাকায় সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। কেউ যাতে অবৈধভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে সে জন্য বিজিবির টহল জোরদার করা হয়েছে। অপর দিকে, ভারতে আটকে পড়া বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রীরা নিজ দেশে ফিরতে পারলেও লকডাউনের কারণে এ দেশে থাকা ভারতীয়রা তাদের দেশে ফিরতে পারছেন না বলে জানিয়েছেন ইমিগ্রেশন ওসি বিশ্বজিত সরকার।
রানীনগরে তিন হাসপাতাল ঘুরেও চিকিৎসা পাননি যুবক
রানীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা জানান, নওগাঁর রানীনগরে ঢাকা থেকে আসা আল আমিন (২২) নামে এক যুবক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে বাড়িতে উঠতে দেয়নি গ্রামবাসী। এ দিকে ওই যুবককে তিনটি হাসপাতালে নিয়ে গেলেও কেউ চিকিৎসা করেনি বলে অভিযোগ করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। আল আমিন রানীনগর উপজেলার কালীগ্রাম ইউনিয়নের অলঙ্কার দীঘি গ্রামের মকলেছুর রহমানের ছেলে। মকলেছুর রহমান জানান, শুক্রবার রাতে আল আমিন গায়ে জ্বর আর কাশি নিয়ে ঢাকা থেকে নওগাঁয় এসে পৌঁছেন। গতকাল সকালে বাড়িতে আসার সময় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে স্থানীয় মেম্বার ও গ্রামের কিছু লোক গ্রামে উঠতে দেয়নি। ফলে বাধ্য হয়ে সকালেই এলাকার ভেটি স্ট্যান্ড থেকে চিকিৎসার জন্য আদমদীঘি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ব্যর্থ হয়ে ভেটি কমিউনিটি ক্লিনিকের বারান্দায় মুমূর্ষু অবস্থায় রাখা হয়। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান রানীনগর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে। সেখানেও ডাক্তাররা দেখেই হাতে কাগজ ধরিয়ে নওগাঁ হাসপাতালে পাঠায়। নওগাঁ হাসপাতালে পৌঁছার পর সেখানেও কোনো চিকিৎসা না দিয়ে রাজশাহী নিয়ে যান বলে হাতে একটি কাগজ ধরিয়ে দেয়। অ্যাম্বুলেন্সে থাকা মকলেছুর রহমান কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, তার ছেলেকে কেউ চিকিৎসা দিচ্ছে না। কেউ কাছেও আসছে না। বর্তমানে অবস্থা খুবই সঙ্কটাপন্ন।
খাগড়াছড়িতে আইসোলেশনে মারা যাওয়া যুবক করোনা আক্রান্ত ছিলেন না
খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা জানান, খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় মারা যাওয়া যুবকের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি। খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন ডা: নুপুর কান্তি দাশ জানান, গত বুধবার রাতে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় মারা যাওয়া যুবকের শরীর থেকে সংগ্রহ করা নমুনা পরীক্ষার জন্য আইইডিসিআরের কাছে পাঠানো হয়। শনিবার রিপোর্ট আসে এবং তাতে তার শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়নি। এ কারণে সেই রোগীর চিকিৎসায় নিয়োজিত হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্সসহ সংশ্লিষ্টদেরকে হাসপাতালের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। গত বুধবার রাতে ওই যুবক মারা যান। জ্বর ও শ্বাস কষ্ট নিয়ে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।
সিলেটে হাসপাতালের কোয়ারেন্টিনে ঢাবি শিক্ষার্থী
ইউএনবি জানায়, সিলেটে জ্বর এবং সর্দি-কাশি নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শুক্রবার রাত থেকে তাকে শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের কোয়ারেন্টিন বিভাগে রেখে পর্যবেক্ষণ করছেন চিকিৎসকরা। জানা যায়, শুক্রবার রাতে ঢাকা থেকে ফেরার পথে তার শরীরে জ্বর দেখা দেয়। সাথে সর্দি-কাশিও ছিল। তাই বাড়িতে না গিয়ে রাতেই ওই শিক্ষার্থী শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে যান এবং চিকিৎসকদের জানান, গত কয়েকদিন তিনি ঢাকায় কয়েকজন ইউরোপ প্রবাসীর সংস্পর্শে ছিলেন। স্বাস্থ্য অধিদফতর সিলেটের বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা: আনিসুর রহমান জানান, শিক্ষার্থীর শরীরের নমুনা ঢাকায় পাঠানো হবে।


আরো সংবাদ





justin tv maltepe evden eve nakliyat knight online indir hatay web tasarım ko cuce Friv buy Instagram likes www.catunited.com buy Instagram likes cheap Adiyaman tutunu