০৬ এপ্রিল ২০২০

করোনা নিয়ে গুজব ও জবরদস্তি না করার আহ্বান আইইডিসিআরের

-

করোনাবিষয়ক গুজব ও প্রশাসনের জবরদস্তি পরিহারের আহ্বান জানিয়েছেন আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা: মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। তিনি বলেন, আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ করছি যে, দেশ-বিদেশের বরাত দিয়ে নানা গুজবের সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে সামাজিক গণমাধ্যমে গুজবের উদ্বেগজনক প্রসার ঘটছে। এ ধরনের গুজবে সাতক্ষীরায় একজন সন্দেহজনক রোগীর মায়ের দুঃখজনক মৃত্যু ঘটেছে। কোনো কোনো স্থানে স্থানীয় জনসাধারণের মধ্যে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। গুজবের কারণে চীন ও সিঙ্গাপুর ফেরত কোনো কোনো বিমানযাত্রীর ব্যক্তিগত ও সামাজিক নিরাপত্তা ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছে। এতে প্রভাবিত হয়ে কোনো কোনো স্থানে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী চীন ও সিঙ্গাপুর ফেরত যাত্রীদের প্রতি জবরদস্তি আচরণ করছে।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মহাখালীর আইইডিসিআরের সম্মেলন কক্ষে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক সেব্রিনা ফ্লোরা আরো বলেন, গুজব ও জবরদস্তি দু’টোই সম্ভাব্য রোগী শনাক্তে বাধার সৃষ্টি করবে এবং সন্দেহজনক রোগীরা তথ্য ও অবস্থান গোপন করবে। এটা রোগী শনাক্তে জনস্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের চেষ্টাকে হুমকির মুখে ফেলবে বলে তিনি সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি বলেন, আমরা সংশ্লিষ্ট সবাইকে সর্বপ্রথম আইইডিসিআরের সাথে যোগাযোগ করার আহ্বান জানাচ্ছি এবং এখানকার পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। (আইইডিসিআরর হটলাইন : ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯৩৭১১০০১১)
অধ্যাপক সেব্রিনা ফ্লোরা গত ২৪ ঘণ্টায় আইইডিসিআরের ভাইরোলজি ল্যাবরেটরিতে সন্দেহজনক করোনা আক্রান্ত দুই ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষা করে তাদের মধ্যে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি বলে জানান।
উহান ফেরত ৩১২ জন সবাই সুস্থ : সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ৩১২ জন উহান ফেরত বাংলাদেশী নাগরিকদের সবাই সুস্থ আছেন। কোয়ারেন্টাইন পরবর্তী আরো ১০ দিন ৩১২ জনকে সীমিত চলাচল ও স্বাস্থ্য পরিস্থিতি অবহিত করতে আইইডিসিআরের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। তাদের নির্দিষ্ট নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। তাদের কেউ কেউ হটলাইনে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সাথে যোগাযোগ করেছেন। নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকেও তাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে।
সিঙ্গাপুর পরিস্থিতি : সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে প্রেরিত সর্বশেষ খবর জানিয়ে আইইডিসিআর পরিচালক জানান, সেখানে পাঁচজন বাংলাদেশের নাগরিক করোনা সংক্রমিত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের মধ্যে একজন আইসিইউতে আছেন। কোয়ারেন্টাইনে আছেন বাংলাদেশের পাঁচ নাগরিক। সিঙ্গাপুরে সর্বমোট ৭৭ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন। পরীক্ষায় করোনা সংক্রমণ পাওয়া যায়নি ৯৩৭ জনের। পরীক্ষার ফলাফলের অপেক্ষায় আছেন ১০৩ জন রোগী এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরত গেছেন ২৪ জন।

 


আরো সংবাদ