১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

ইতালিতে ভোট : ঐতিহাসিক জয়ের পথে কট্টর ডানপন্থী মোলোনি

ইতালিতে ভোট : ঐতিহাসিক জয়ের পথে কট্টর ডানপন্থী মোলোনি - ছবি : সংগৃহীত

ইতালিতে ভোটে ঐতিহাসিক জয়ের পথে কট্টর ডানপন্থী জর্জিয়া মোলোনি। ইউরোপের সঙ্কটময় সময়ে ইতালির ডানপন্থী রাজনীতিকে তীব্রভাবে এগিয়ে নিতে রোববার ভোট দিয়েছে দেশটির নাগরিকরা। যা ইউক্রেন যুদ্ধের সময় রাশিয়ার আকাশচুম্বী জ্বালানি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ায় পশ্চিমাদের সংকল্পের অনুসরণ করে।

দেশটিতে স্থানীয় সময় রোববার সকাল ৭টায় ভোট শুরু হয় এবং দুপুর নাগাদ শেষ হবে। যা ২০১৮ সালে ইতালির শেষ সাধারণ নির্বাচনের একই সময়ের তুলনায় ভোটের পরিমাণ ছিল সমান বা সামান্য কম। ভোট গ্রহন বন্ধ হওয়ার পরপরই স্থানীয় সময় রাত ১১টায় কাগজের ব্যালট গণনা শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সোমবার সকালে আংশিক ফলাফল প্রকাশ হতে পারে।

দেশটিতে নির্বাচনের আগে দু’সপ্তাহের মধ্যে জনমত জরিপ ও প্রকাশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কিন্তু তার আগে জরিপগুলো দেখিয়েছে নব্য-ফ্যাসিস্ট কট্টর-ডানপন্থী নেতা জর্জিয়া মেলোনি এবং তার ব্রাদার্স অব ইতালি পার্টি সবচেয়ে জনপ্রিয়। ইতালীয়রা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর প্রথমবার ডানপন্থী সরকারকে ক্ষমতায় আনতে ভোট দেয়ার জন্য প্রস্তুত ছিল। পিছনে ছিলেন সেন্ট্রাল লেফট ডেমোক্রেটিক পার্টির সাবেক প্রধানমন্ত্রী এনরিকো লেটা।

রোববার সকালে এক টুইট বার্তায় মেলোনি বলেন, ‘আজ আপনারা ইতিহাস লিখতে সাহায্য করতে পারেন।’

তিনি ব্যালটবক্সের সাথে নিজের ছবি জুড়ে দিয়ে একটি পোস্ট করেন। আর লিখেন ‘ভালো, ভোট দিন’

মেলোনি অভিবাসী বিরোধী লীগ নেতা মাত্তেও সালভিনি এবং সিলভিও বারলুসকোনির সাথে একটি ডানপন্থী জোটে রয়েছেন। বারলুসকোনি ইতালির তিনবারের প্রধানমন্ত্রী এবং তিন দশক আগে ফোরজা ইতালিয়া দলের প্রধান ছিলেন। ইতালির জটিল নির্বাচনী আইন ডেমোক্র্যাটদের সুবিধাবঞ্চিত করে। কারণ তারা জনপ্রিয় বামপন্থী এবং সেন্ট্রাল লেফট ডেমোক্রেটদের সাথে একইভাবে বড় জোট নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে।

মেলোনি প্রধানমন্ত্রী হলে তিনিই হবেন ইতালির প্রথম নারী যিনি এই পদে অধিষ্ঠিত হবেন। তবে একটি কার্যকর ক্ষমতাসীন জোট হতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে।

প্রায় পাঁচ কোটি এক লাখ ভোটার ছিল। যদিও জরিপকারীরা ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন যে ২০১৮ সালের সাধারণ নির্বাচনে রেকর্ড-সেটিং সর্বনিম্ন ৭৩ শতাংশের চেয়েও কম ভোটার হতে পারে। তারা বলে যে, ইউরোপের অনেক সঙ্কট সত্ত্বেও, অনেক ভোটার রাজনীতি থেকে বিচ্ছিন্ন বোধ করেন। যেহেতু ইতালিতে তিনটি জোট সরকার ছিল, তাই গত নির্বাচনে প্রত্যেকটি জোট এমন একজনের নেতৃত্বে ছিল, যিনি প্রধানমন্ত্রীর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি।

সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ


premium cement