০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ৬ জিলহজ ১৪৪৩
`

ফিনল্যান্ড-সুইডেনে সামরিক শক্তি বাড়ালে ন্যাটোকে জবাব : পুতিন

ফিনল্যান্ড-সুইডেনে সামরিক শক্তি বাড়ালে ন্যাটোকে জবাব : পুতিন - ছবি : সংগৃহীত

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের ন্যাটোতে যোগ দেয়া নিয়ে তাদের কোনো সমস্যা নেই। তবে দেশটিতে ন্যাটো সামরিক অবকাঠামো গড়ে তুললে তার জবাব দিবে রাশিয়া।

ইউক্রেনে হামলার প্রেক্ষিতে ন্যাটোর সদস্যপদের জন্য আবেদন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাশিয়ার প্রতিবেশী ফিনল্যান্ড। দীর্ঘদিন আলোচনার পর রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে ওই ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। একই পথে হাঁটছে আরেক দেশ সুইডেনও।

সোমবার এ নিয়ে প্রথমবারের মতো প্রতিক্রিয়া জানান, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। মস্কোতে কালেক্টিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অরগানাইজেশনের সম্মেলনে দেয়া বক্তৃতায় তিনি বলেন, সুইডেন ও ফিনল্যান্ডে ন্যাটোর বিস্তার রাশিয়ার জন্য সরাসরি হুমকি নয়। তবে এই অঞ্চলে সামরিক স্থাপনার বিস্তার ঘটালে তা অবশ্যই আমাদের প্রতিক্রিয়া উস্কে দিবে।

রাশিয়া নেতৃত্বাধীন এই জোটে রয়েছে বেলারুস, আর্মেনিয়া, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান ও তাজিকিস্তান।

জোটের নেতাদের উদ্দেশে পুতিন বলেন, প্রতিক্রিয়া কী হবে সেটি নির্ভর করবে তারা কী ধরনের হুমকি তৈরি করে তার উপর। পশ্চিমা দেশগুলো বিনাকারণে সমস্যা তৈরি করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা সে অনুযায়ী প্রতিক্রিয়া জানাব।

নর্ডিক দেশগুলোতে ন্যাটোর সামরিক শক্তি বিস্তারে রুশ প্রতিক্রিয়া কী হতে পারে সে বিষয়ে এখনো ক্রেমলিনের কাছ থেকে কোনো ইঙ্গিত মেলেনি।

পুতিনের ঘনিষ্ঠদের একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ গত মাসে জানিয়েছেন, এক্ষেত্রে ইউরোপের ভেতরে ছিটমহল কালিনিনগ্রাদে পরমাণু অস্ত্র ও হাইপরাসনিক ক্ষেপণাস্ত্র স্থাপন করতে পারে রাশিয়া।

তুরস্কে কূটনীতিক পাঠাচ্ছে সুইডেন

বর্তমানে ন্যাটোর সদস্য সংখ্যা ৩০টি। ফিনল্যান্ড ও সুইডেন সদস্য হতে আবেদন করলে তা গৃহীত হওয়ার জন্য এই দেশগুলোকে একমত হতে হবে। এরই মধ্যে তুরস্ক দেশ দুটিকে সন্ত্রাসীদের আশ্রয়দাতা হিসেবে উল্লেখ করেছে।

গত সপ্তাহে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান জানান, ফিনল্যান্ড, সুইডেনের ন্যাটোতে যোগদানের বিষয়ে তাদের মতামত নেতিবাচক।

তবে রোববার বার্লিনে ন্যাটো পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাথে বৈঠক শেষে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওলু সুইডেন ও ফিনল্যান্ডকে সন্ত্রাসীদের সহায়তা দেয়া বন্ধ করা, নিরাপত্তার স্পষ্ট নিশ্চয়তা প্রদান এবং তুরস্কের উপর থেকে রফতানি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার শর্ত দেন।

এমন অবস্থায় তুরস্কের সাথে আলোচনার জন্য কূটনীতিক প্রতিনিধি পাঠাবে বলে সোমবার জানিয়েছেন সুইডেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী পিটার হুল্টকভিস্ট। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, কূটনীতিকরা দেশটির ন্যাটোতে যোগদানের ব্যাপারে আঙ্কারার অভিযোগগুলো নিয়ে আলোচনা করবেন।

সূত্র : ডয়চে ভেলে


আরো সংবাদ


premium cement