৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

মসজিদের মাইকে আজান প্রচারের অনুমতি দিলো কোলন

-

জার্মানিতে আজান সাধারণত মাইকে প্রচার করা যায় না৷ এক্ষেত্রে কোলন এক ব্যতিক্রম হতে চলেছে৷ শহরের মেয়র জানিয়েছেন যে মুসলমানদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের নিদর্শন হিসেবে শহরটির মসজিদে প্রতি শুক্রবার দুপুরে জুমার নামাজের আজান মাইকে প্রচারের অনুমতি দেয়া হয়েছে৷ আপাতত দুই বছরের জন্য এই অনুমতি দেয়া হয়েছে, তবে তা নবায়নযোগ্য৷

বহুসংস্কৃতির শহর কোলনে জার্মানির সবচেয়ে বড় মসজিদটির অবস্থান৷ স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শহরটির কেন্দ্রীয় এই মসজিদসহ সবমিলিয়ে ৩৫টি মসজিদে শুক্রবার দুপুর থেকে বিকেল তিনটার মধ্যে সর্বোচ্চ পাঁচ মিনিট মাইকে আজান প্রচার করা যাবে৷

কোলনে বসবাসরত মুসলিমদের সাথে শহর কর্তৃপক্ষের এক আলোচনার ভিত্তিতে আজানের সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়েছে৷ মুয়াজ্জিন আজান দেয়ার সময় লাইড স্পিকারে শব্দের একটি নির্দিষ্ট মাত্রা অনুসরণ করতে হবে এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের আগে থেকে বিষয়টি জানাতে হবে৷

কোলনের কেন্দ্রীয় মসজিদ নিয়ে মাঝেমাঝেই মুসলিমবিরোধী চেতনা সৃষ্টির চেষ্টা করে উগ্র ডানপন্থী দলগুলো৷ জার্মানিতে তুর্কি সরকারের ধর্মবিষয়ক কর্তৃপক্ষ ডিটিবের আংশিক আর্থিক সহায়তায় মসজিদটি তৈরির সময় থেকেই এটি নিয়ে নানা বিতর্ক রয়েছে৷ ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যিপ এরদোগান নিজেই মসজিদটি উদ্বোধন করেছিলেন৷

আজানের সিদ্ধান্তের পক্ষে যুক্ত দিলেন মেয়র

যদিও কোলনের মুসলমানেরা আজানের অনুমতি দেয়ায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে, তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তের সমালোচনাও হচ্ছে৷ শহরের মেয়র হেনরিয়াটে রেকার এই বিষয়ে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেছেন৷

টুইটারে সপ্তাহান্তে তিনি লিখেছেন, ‘আজান প্রকল্প নিয়ে অনেক আলোচনা হচ্ছে৷ কোলন ধর্মীয় স্বাধীনতার শহর৷'

রেকার লিখেছেন, ‘কোলনের মূল ট্রেন স্টেশনে আসলে শুরুতেই ক্যাথিড্রাল চোখে পড়ে এবং এরপর গির্জার ঘণ্টার শব্দ শোনা যায়৷ কোলন শহরের অনেক বাসিন্দা মুসলমান৷ আমার কাছে আজানের বিষয়টি সম্মান প্রদর্শনের বহিঃপ্রকাশ৷'

জার্মানিতে ৪৫ লাখের মতো মুসলমান বসবাস করে৷ ইউরোপের খ্রিস্টান প্রধান এ দেশটির সবচেয়ে বড় সংখ্যালঘু সম্প্রদায় এটি৷
সূত্র : ডয়চে ভেলে



আরো সংবাদ