০১ মার্চ ২০২১
`

পর্তুগালে অভিবাসী প্রত্যাশীদের জন্য সুসংবাদ

পর্তুগাল, নৈসর্গিক সৌন্দর্যের এক লীলাভূমি -

পর্তুগাল, নৈসর্গিক সৌন্দর্যের এক লীলাভূমি। আটলান্টিক মহাসাগরের তীর ঘেষে অবস্থিত বলে একে সাগর কন্যার দেশ বলা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ভ্রমণ পিপাসুদের প্রধান গন্তব্য এই পর্তুগাল। প্রতি বছরই লাখ লাখ পর্যটক ঘুরতে আসেন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এই দেশে। পর্তুগালের আরেকটি পরিচয় হলো অভিবাসী বান্ধব দেশ হিসাবে। এখানে অতি সহজেই বৈধতা পাওয়া যায় বলে প্রতি বছর লাখ লাখ অভিবাসী ভিড় জমান ইউরোপের সর্ব পশ্চিমের এই দেশে। আর পর্তুগালও তাদেরকে দু’হাত ভরে উষ্ণ স্বাগতম জানায়।

কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে অনেক অভিবাসীদের কাগজ পেতে জটিলতায় পড়তে হচ্ছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় যে সমস্যা দেখা দিয়েছে তা হলো এপোয়েন্টমেন্ট না পাওয়া। ইদানিং আবার লকডাউনের কারণে পূর্ব নির্ধারিত কিছু এপোয়েন্টমেন্ট বাতিল করা হয়েছে। তাই অভিবাসী প্রত্যাশী অনেক বাংলাদেশীদের মধ্যে হতাশা পরিলক্ষিত হচ্ছে। তারা মনে করছেন পর্তুগাল হয়তো তাদেরকে আর বৈধতা দিবে না । তাদের উদ্দেশেই আমার এই লেখা।

পর্তুগাল শুধু অভিবাসন বান্ধব দেশ নয়। এখানে হামাগুড়ি দিয়েও যদি কেউ প্রবেশ করে তবুও তার কাগজ হয়ে যায়। আজ পর্যন্ত কেউ শুনিনি যে পর্তুগালে প্রবেশ করেছে এবং তার কাগজ হয়নি। তবে ক্রিমিনাল অফেন্স ছাড়া।

পর্তুগালের বর্তমান প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী অভিবাসীদের প্রতি অত্যন্ত সহানুভূতিশীল। ভিন্ন দলের প্রধানমন্ত্রী এবং প্রেসিডেন্ট হলেও অভিবাসীদের জন্য তাদের মধ্যে একটি ভালো কেমেস্ট্রি কাজ করে। এটা অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক দিক। আশা করা যায় আগামী কয়েক বছর এই ধারা অব্যাহত থাকবে।

এই মহামারীর মধ্যেও পর্তুগালে অভিবাসীর হার বেড়েছে শতকরা ১২ ভাগ। ২০১৯ সালে যেখানে ৫ লাখ ৮৮ হাজার লোক বিদেশী নাগরিক বৈধভাবে পর্তুগালে বসবাস করতো সেখানে ২০২০ সালে এসে দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৬০ হাজার। বুজতেই পারছেন তারা অভিবাসীদের প্রতি কতটা আন্তরিক? গতকাল পার্লামেন্টে মন্ত্রী এডোয়ার্ডো ক্যাব্রিতা এই তথ্য জানান।

এখনো কয়েক লাখ লোককে বৈধতা দেয়ার কাজ প্রক্রিয়াধীন। যদিও এই মহামারীর কারণে বেশিরভাগ লোককেই বৈধদের মতো সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে। যা ইউরোপীয় ইউনিয়ন তথা বিশ্বে প্রশংসা কুড়িয়েছে।

অভিশ্বাস্য হলেও সত্যি ২০১৯ সালে শুধু অভিবাসীরাই সামাজিক সুরক্ষাতে পে করেছে ৮৮৪ মিলিয়ন ইউরো। যদি এক বছরে শুধু অভিবাসীরাই এতো টাকা পে করে থাকে, তাহলে কেনো তারা অভিবাসীদের কাগজ দেয়া বন্ধ করবে? তাছাড়া সত্যিকার অর্থেই পর্তুগালে অভিবাসীদের প্রয়োজন।

সর্বশেষ, আমাদের হাতে তো অন্য কোনো অপশন নেই। যদি থাকতো তাহলে বলতাম এই দেশে যান গিয়ে তাড়াতাড়ি বৈধ হতে পারবেন। পর্তুগাল ছাড়া অন্য কোনো দেশে এতো সহজেই বৈধতা দেয় তা আমার জানা নেই। তাই নতুন যারা কাগজের জন্য অপেক্ষমান তারা একটু ধৈর্য ধরেন, এই মহামারী শেষ হলেই আপনাদের সবাই নিয়মিত হবেন।



আরো সংবাদ