২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

স্বপ্নের বাড়ি মাত্র ৯৪ টাকায়!

স্বপ্নের বাড়ি মাত্র ৯৪ টাকায়! - ছবি : সংগৃহীত

ইতালির নেপলস শহর থেকে মাত্র দুই ঘণ্টার দূরত্বে অবস্থিত বিসাকিয়াতে মাত্র বাংলাদেশী মুদ্রায় ৯৪ টাকা দিলেই আস্ত একটি বাড়ি কিনতে পারবেন আপনি! ইতালির একটি গোষ্ঠী কেবলমাত্র এক ইউরো অর্থাৎ ৯৪ টাকা দিলেই এই ঘরগুলো বিক্রি করছেন। উদ্দেশ্য জনসংখ্যা বাড়ানো। আপনাদের জানিয়ে দিই এই গ্রামের জনসংখ্যা ভীষণই কম হয়ে গেছে। আর সেই কারণেই এই সংস্থা এক ইউরোতে বাড়ি বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ডেইলি মেইলের রিপোর্ট অনুযায়ী নীল, গোলাপি, সবুজ আর হলুদ রঙের এই বাড়িগুলো কেনার জন্য আপনাকে খুব একটা দৌড়োদৌড়ি করতে হবে না। কারণ এই বাড়িগুলো ওখানকার স্থানীয় মানুষই বিক্রি করছেন। এই বাড়ির পুরনো মালিকের সঙ্গেও দেখা করার কোনো দরকার নেই। সিএনএন-ট্রাভেল অনুসারে এখানে বসবাসকারী অনেকেই উন্নত ভবিষ্যতের জন্য এখানকার ঘরবাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছেন। আর সেই কারণেই এখানকার সমস্ত ঘরবাড়ির স্থানীয় লোকজনের কাছে রয়েছে।

এই শহরের ডেপুটি মেয়র ফ্রানসেস্কো টোর্টাগ্লিয়া জানিয়েছেন," আমরা এখানকার বিশেষ পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছি। এখানে যে বাড়িগুলো লোকজন ছেড়ে দিয়ে চলে গেছেন, সেগুলি সবই গ্রামের পুরনো অংশে অবস্থিত সেই ঘরগুলি প্রত্যেকটি একে অপরের সঙ্গে জুড়ে রয়েছে। বেশকিছু ঘরের দরজাও এক। আর এই কারণেই আমরা এখানে পরিবার, বন্ধু বান্ধবের গোষ্ঠী, আত্মীয়-স্বজন, এমন মানুষ যারা একে অপরকে জানেন তাদেরকেই স্বাগত জানাচ্ছি। যাতে এই ঘরগুলো বিক্রি হয় বা তারা ঘরগুলো কেনেন।"

এরপরে তিনি জানিয়েছেন, " আমরা তাদের উৎসাহ দেব, যাতে একের বেশি ঘর তারা কেনেন।" এখানে ওসকন ভাষীরা থাকতেন যারা ইম্পেরিয়াল রোমের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছিলেন। পরে তারা দক্ষিণ ইতালির বিভিন্ন অংশের দখল নেয় ।

বিসাকিয়াতে এক ইউরো দিয়ে বাড়ি বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয় সিসিলিকে দেখে ,আসলে ২০১৯ এ দক্ষিণ সিসিলির জনসংখ্যা ৩৮০০ হয়ে গিয়েছিল । আর তারপরেই সেখানকার মানুষজন জনসংখ্যা বাড়ানোর জন্য এক ইউরো দিয়ে বাড়ি বিক্রি শুরু করেন।
সূত্র : এনডিটিভি



আরো সংবাদ


আকাশপথে বাংলাদেশে ভ্রমণকারীদের কোয়ারেন্টিনের বিধিনিষেধ শিথিল পাকিস্তান-ভারত ক্রিকেটকে দেশের স্বার্থবিরোধী বললেন ভারতীয় যোগগুরু! অপরাধী যে দলেরই হোক তার বিচার হবে : আইনমন্ত্রী লিবিয়ার তারহুনাতে পাওয়া গেল নতুন গণকবর ১৩৫ দিন যাবত মেয়ের মুখ দেখেননি জয়াবর্ধনে আরিয়ানের বিরুদ্ধে স্বাক্ষ্য দিতে সাক্ষীকে টাকা দেয়ার অভিযোগ দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্তকারীদের সম্পর্কে সচেতন হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সংঘর্ষের মধ্যেই চলছে ইসলামাবাদ অভিমুখে টিএলপির পদযাত্রা প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে অবমাননাকর পোস্ট, কলেজ শিক্ষক কারাগারে সাম্প্রদায়িক হামলায় নেতৃত্ব দিচ্ছে আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগ : মির্জা ফখরুল ই-কমার্স নারী ক্ষমতায়নে ভূমিকা রাখছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সকল

বাংলাদেশ দখলের হুমকি দিয়ে লাভ কার (৫৬২৪৫)অভাবের তাড়নায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করলেন বিজিবি সদস্য! (১৭৫২২)ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন আন্তর্জাতিক তায়কোয়ান্দোর রেফারি ড. পেটেল (১৫৭৭০)গেইলের প্রয়োজন ৯৭ রান, সাকিবের ১ উইকেট (৯১৫৯)প্রতিরক্ষার মতোই যোগাযোগ অন্যের হাতে রাখতে পারি না : এরদোগান (৬৬৫৪)মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে ব্যাপক সৈন্য সমাবেশ, গণহত্যার আশঙ্কা জাতিসঙ্ঘের (৬৬০৪)ভারতের বিরুদ্ধে দলে যাদের রেখেছে পাকিস্তান (৬৩২১)সিরিয়ায় ইসরাইলি বিমান হামলায় বাধা দিবে না রাশিয়া (৬২২৬)আজ থেকে সুপার লিগ : সুপার টুয়েলভের কখন কোন দলের খেলা (৫৮৭২)পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহারের বিষয়ে চুক্তির দ্বারপ্রান্তে যুক্তরাষ্ট (৫৭৭৯)