২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩
`

টপ পারফরমার নোবেল

টপ পারফরমার নোবেল -

আদিল হোসেন নোবেল, বাংলাদেশের সর্বজনস্বীকৃত দেশের নাম্বার ওয়ান পারফরমার। স্টেজে, টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে এবং অভিনয়ে তিনি তার নান্দনিক পারফরম্যান্সে এ দেশের কোটি কোটি দর্শককে মুগ্ধতা ছড়িয়ে যাচ্ছেন বিগত প্রায় তিন দশক ধরে। বিভিন্ন মাধ্যমে তিনি যখন পারফরম করা শুরু করেন তখন থেকেই তিনি দর্শকের কাছে প্রিয় একজন পারফরমারে নিজেকে রূপান্তর করেন। নোবেল জানান, নব্বই দশকের শুরুতে তাজিন হালিমের (আফজাল হোসেনের স্ত্রী) কোরিওগ্রাফিতে সেই সময় তিনি রাজধানীর প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে তৎকালীন সময়ের সবচেয়ে আলোচিত ফাশন শোতে একজন র্যাম্প মডেল হিসেবে প্রথম পারফরম করেন। সে সময় তার সাথে ছিলেন সাদিয়া ইসলাম মৌ ও এক ঝাঁক তরুণ-তরুণী। সেই ফ্যাশন শোটিতে একজন পারফরমার হিসেবে আলোচনায় চলে আসেন নোবেল। আর এর পরপরই বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে প্রথম পারফরম করেন আফজাল হোসেনের পরিচালনায় আজাদ বলপেনের বিজ্ঞাপনে। এতে তার সহশিল্পী ছিলেন তানিয়া আহমেদ। পরবর্তীতে আরো বহু বিজ্ঞাপনে একজন মডেল হিসেবে পারফরম করেছেন তিনি। বাংলাদেশের বিজ্ঞাপন জগতে এরপর আরো অনেকেই মডেলিংয়ে পারফরমার হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন। কিন্তু কেউই নোবেলের জনপ্রিয়তাকে ছাপিয়ে যেতে পারেননি। কারণ একজন পারফরমার হিসেবে নিজেকে যতটা স্টাইলিস্ট, পারসোনালিটি সম্পন্ন হিসেবে উপস্থাপন করা যায়, নোবেল তা আজো করছেন বেশ সচেতনভাবেই। শুরু থেকে তার যে অধ্যবসায় ছিল, তা এখনো আছে। তাই এখনো এ দেশের কোটি কোটি দর্শকের কাছে বিশেষত মডেলিংয়ে প্রিয় পারফরমার নোবেল। আজকের এই অবস্থানে আসার নেপথ্যের কথা এবং নিজের অবস্থান প্রসঙ্গে নোবেল বলেন, ‘তুলি আপা এবং তার স্বামী-আমার মামাতো ভাই নাসেরের অনুপ্রেরণাতেই মিডিয়াতে আমার আসা, ফ্যাশন শোতে অংশ নেয়া। পরবর্তীতে আফজাল ভাইয়ের বিজ্ঞাপনে একজন মডেল হিসেবে পারফরম করা এবং তারই নির্দেশনায় বহু বিজ্ঞাপনে কাজ করেছি। আজকের নোবেল হয়ে উঠার নেপথ্যে আফজাল ভাইয়ের নির্দেশনার কাজগুলোই আমাকে একজন পারফরমার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। শুকরিয়া আদায় করি মহান আল্লাহর কাছে।


আরো সংবাদ


premium cement