০৩ মার্চ ২০২১
`

কষ্ট থেকে আমি একটা শিক্ষা পেয়েছিলাম : কেট উইন্সলেট

-

সম্ভবত বাংলাদেশে হলিউড নায়িকাদের মধ্যে সবচেয়ে পরিচিত নাম কেট উইন্সলেট। কারণটা হলো ‘টাইটানিক’ সিনেমা। দেশের দর্শকদের কাছে ওই সিনেমার মতো এতটা আলোচনায় আসতে পারেনি অন্য কোনো হলিউড সিনেমা। অনেকেরই ধারণা টাইটানিকের পর মনে হয় অন্যরকম উচ্চতায় উঠে গিয়েছিলেন ক্যাট। কিন্তু সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী বলেছেন টাইটানিক ছবি পরবর্তী বিড়ম্বনার কথা। তিনি বলেন, ‘আমার ব্যাপক সমালোচনা করা হয়েছিল। ব্রিটিশ গণমাধ্যম আমার প্রতি খুবই নিষ্ঠুর ছিল।’
১৯৯৭ সালে মুক্তি পেয়েছিল লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও ও কেট উইন্সলেট অভিনীত টাইটানিক। বলাই বহুল্য, বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছিল ছবিটি। ছবিটি ক্যাপ্রিও ও কেটকে তারকা খ্যাতি এনে দিয়েছিল। সাধারণভাবে ধারণা করা যায় যে কেট নিশ্চয়ই সে সময় খ্যাতিকে উপভোগ করছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি জানা গেলে বিষয়টা মোটেই সে রকম ছিল না। বরং বেশ কিছু দিন নেতিবাচক পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হয়েছে তাকে। মার্ক ম্যারোন পডকাস্টে কথা বলতে গিয়ে ৪৫ বছর বয়সী কেট সে সময়ের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে এ বিষয়ে কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন, যুক্তরাজ্যের মিডিয়া তাকে যথেষ্ট বিরক্ত করেছে। ‘দিন-রাত, দিনের পর দিন একই রকম পরিস্থিতি গিয়েছে। আমার ব্যক্তিগত বিষয়াদি নিয়ে নানা রকম খবর প্রকাশ করা হয়েছিল। আমার সমালোচনাও হয়েছিল খুব ব্রিটিশ গণমাধ্যম আমার প্রতি খুবই নির্দয় আচরণ করে।’
কেট বলে চলেন, ‘নিজেকে নিগ্রহের শিকার মনে হয়ছে। একসময় মনে হয়েছে এ বাজে সময় কেটে যাবে। সত্যিই সে সময় কেটে গিয়েছিল। কিন্তু আমি একটা শিক্ষা পেয়েছিলাম। এটা যদি বিখ্যাত হওয়ার বৈশিষ্ট্য হয় তাহলে আমি এ খ্যাতির জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। একেবারেই না।’
টাইটানিক যখন মুক্তি পায় কেট উইন্সলেটের বয়স তখন মাত্র ২২। কেট বলেছেন, তখনো তিনি অভিনয় শিখছেন। ১৭ বছর বয়স থেকে তিনি অভিনয় শেখায় মনোযোগ দিয়েছিলেন। নিজের সে সময়ের ক্যারিয়ার নিয়ে কেট বলেন, ‘আমি জানতাম যে হলিউডে বড় বড় কাজ করার মতো প্রস্তুতি তখনো আমার ছিল না। এটা অনেক বড় দায়িত্ব। আমি ভুল করতে চাচ্ছিলাম না। আমি হলিউডে দীর্ঘমেয়াদের কাজের প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। তাই আমি কৌশলী হয়ে ছোট ছোট চরিত্র খুঁজতাম। সেগুলোতে কাজ করে আমি যেন আমার অভিনয় দক্ষতাকে বুঝতে পারি। একই সাথে নিজের প্রাইভেসি ও মর্যাদা অক্ষুণœ রাখারও চেষ্টা করেছি।’ টাইটানিকের পর পেরিয়ে গেছে ২৩ বছর। এ সময়ে কেট ছোটবড় নানা রকমের ছবিতে কাজ করেছেন। অভিনয় করেছেন বিভিন্ন চরিত্রে। গত কয়েক বছরে তার কাজের মধ্যে আছে বার্ডস অব আ ফেদার, ব্ল্যাকবার্ড, অ্যামোনাইট ও ব্ল্যাক বিউটি।
কেট টাইটানিকের পরিচালক জেমস ক্যামেরনের সাথে যুক্ত হয়েছেন অ্যাভাটার ফ্র্যাঞ্চাইজিতে। সূত্র : পিপল



আরো সংবাদ