২৪ নভেম্বর ২০২০

ছোটকাকু সিরিজের : কক্সবাজারে কাকাতুয়া

-

জনপ্রিয় শিশুসাহিত্যিক ও টিভি ব্যক্তিত্ব ফরিদুর রেজা সাগরের ছোট কাকু সিরিজের গল্প অবলম্বনে নির্মিত মার্চ মাসজুড়ে পাঁচটি চলচ্চিত্র হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ২৪ মার্চ বেলা ৩.০৫ মিনিটে দেখানো হবে কক্সবাজারে কাকাতুয়া। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের এ ছবিগুলো নিবেদন করেছে গ্রামীণফোন। আফজাল হোসেন এই চলচ্চিত্রগুলো পরিচালনার পাশাপাশি ছোট কাকু চরিত্রে অভিনয়ও করেছেন। ছবিগুলোতে আরো অভিনয় করেছেন অর্ষা, সীমান্ত, তানভীর হোসেন প্রবাল, জহিরউদ্দিন পিয়ার, শামস সুমন প্রমুখ।
গল্পÑ ছোট কাকু মানে রহস্য। ছোট কাকু মানেই বিপদসঙ্কুল পথে পা বাড়িয়ে রহস্যের কিনারায় পৌঁছানো... কক্সবাজার শহর থেকে মাইল দশেক দূরে রামুতে... এমন সময় ছোট কাকুর মোবাইল বেজে উঠল। অপরিচিতি নাম্বার, ছোট কাকু কিছুক্ষণ কথা বলে ফোন কেটে ড্রাইভারকে বললেন, ঘুমধুম কতদূর... টেকনাফের পথে... গাড়ি ঘোরাও...। হঠাৎ করে এক ভদ্রলোককে আমার চোখে পড়ল। বেশ চিন্তিত ভঙ্গি, উশকো খুশকো একমাথা চুল, দু‘চোখে শাণিত দৃষ্টি... অদ্ভুত লোকটা পকেট থেকে সোনালি রঙের একটি মুদ্রা বের করে আমাকে দিলেন। মুদ্রার একপিঠে একপায়ে ভর করে দাঁড়িয়ে আছে একটা বাঘ, অন্যপাশে খোলা তরবারি হাতে একজন গাইড... বুঝতে বাকি রইল না, এটা রবার্ট ক্লাইভের আমলের মুদ্রা। ধন্যবাদ দেয়ার জন্য তাকাতেই দেখি লোকটি অদৃশ্য... পাশের পাহাড়ের দিকে তাকাতেই বুঝলাম এই পাহাড়েই অদৃশ্য হয়ে গেছে লোকটা।
উত্তেজনায় ছোট কাকুর দু‘চোখ চক চক করছে... সকালে যার সাথে দেখা হয়েছিল তিনি রকিব স্যার... বহু বছর আগে এই প্রাচীন মুদ্রাটি রকিব স্যারকে ছোট কাকু দিয়েছিলেন...। হনহন করে ছোট কাকু লতাপাতা সরিয়ে প্রবেশ করলেন পাহাড়ের ফাটলে। পেছনে আমি...আফতাব মির্জাও আমাদের অনুসরণ করলেন। চারিদিকে মোটা থরে প্রাচীর। যত ভেতরে যাচ্ছি, অন্ধকার গাঢ় হচ্ছে...গা ছম ছম পরিবেশ...পায়ের নিচে পানির ছোয়া পাচ্ছি... ঠাণ্ডা পানি... দেয়ালগুলো সব প্রবাল..., সুঁচের মতো সাদা ফলাগুলো বেরিয়ে থাকা সরু পাাথরগুলো জ্বলজ্বল করছে... এমন অসংখ্য রহস্য, রোমাঞ্চের সব গল্প দেখা যাবে ছোট কাকু ধারাবাহিকে।

 

 


আরো সংবাদ