২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

মানারাতের অবৈধ নতুন ট্রাস্টি বোর্ড ভেঙে দেয়ার দাবিতে সাবেক শিক্ষার্থীদের সংবাদ সম্মেলন

মানারাত, নর্থ সাউথ, আইআইইউসি, শান্ত-মারিয়াম ট্রাস্টি বোর্ড দখলের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের সংবাদ সম্মেলন - ছবি : সংগৃহীত

মানারাতের অবৈধ নতুন ট্রাস্টি বোর্ড ভেঙে দেয়ার দাবিতে সাবেক শিক্ষার্থীদের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক

মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বর্তমান ট্রাস্টিবোর্ড ভেঙে দিয়ে অবৈধভাবে নতুন ট্রাস্টি বোর্ড গঠন করা হয়েছে অভিযোগ করে অবিলম্বে অবৈধ এ ট্রাস্টি বোর্ড ভেঙে দিয়ে পূর্বের মূল বোর্ডকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়েছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীরা।

রাজধানীর একটি মিলনায়তনে রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ দাবি জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাবেক শিক্ষার্থী রবিউল ইসলাম।

তারা বলেন, ‘জাতি গঠন ও উচ্চিশিক্ষারমত মৌলিক চাহিদা পুরনে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। তার মধ্যে মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি শিক্ষাবান্ধব, গুণগত ও মানসম্পন্ন অন্যতম বিশ্ববিদ্যালয়। আমরা অবাক বিস্ময়ে লক্ষ্য করলাম, গত ৮ সেপ্টেম্বর ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ট্রাস্টিবোর্ড ভেঙে দিয়ে অবৈধভাবে নতুন ট্রাস্টি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ নিয়ম বহির্ভূত, বেআইনি ও অবৈধ। চর দখলের মতো একটি সম্ভাবনাময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণ নেয়া দেশের শিক্ষাব্যবস্থার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন।’

তারা আরো বলেন, ‘এ দেশের সচেতন সমাজ মনে করে নৈতিক মূল্যবোধের ওপর প্রতিষ্ঠিত মানারাত বিশ্ববিদ্যালয় সুনাগরিক তৈরির মাধ্যমে জাতি গঠনে অগ্রনায়ক। শিক্ষার মূল অধিকার নিশ্চিত করার ধারাবাহিক সাফল্যের পরেও অবৈধভাবে ট্রাস্টিবোর্ড দখল করা, এটি দেশের শিক্ষাব্যবস্থা ধ্বংসের নামান্তর। যা এরই মধ্যে ন্যাক্কারজনক দৃষ্টান্ত হিসেবে সুশীল সমাজে ধিকৃত হচ্ছে।’

তারা বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে আমরা সবিনয়ে বলতে চাই, দেশের শিক্ষাব্যবস্থা এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে বাধা প্রদানের অংশ হিসেবেই এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষাব্যবস্থার ওপর হস্তক্ষেপ বলে আমরা মনে করছি। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করে সমাজের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠা লাভকরা সাবেক শিক্ষার্থীদের কাছে এমন অবৈধ কর্মকাণ্ড গ্রহণযোগ্য নয়। আমরা এই দখলবাজ ট্রাস্টি বোর্ডকে প্রত্যাখ্যান করছি এবং পূর্বতন ট্রাস্টি বোর্ডের কাছে দায়িত্ব ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানাচ্ছি। এখানে জোর করে গঠিত ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে বসানো হয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জনাব আতিকুল ইসলামকে। তার প্রতিও আমাদের উদাত্ত আহ্বান, অনতিবিলম্বে অবৈধ ট্রাস্ট ভেঙে দিয়ে পূর্বতন মূল বোর্ডকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিন। আপনি একজন জনপ্রতিনিধি, সংগঠক ও সফল ব্যবসায়ী আপনি স্ব-অবস্থানে সম্মানিত এবং আপনার কাজ জনগণের সেবা করা। প্রতিষ্ঠান দখল করা আপনার কাজ নয়। তাই আপনি আপনার সম্মানের জায়গায় ফিরে যান, প্রতিষ্ঠানকে বৈধ ট্রাস্টি বোর্ডের কাছে ফিরিয়ে দিন। মনে রাখবেন ক্ষমতার অপব্যবহার ও জোর করে দখল করা যায় কিন্তু সম্মান অর্জন করা যায় না।’

শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে হঠকারী সিদ্ধান্ত থেকে সরে না এলে, আমাদের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে এবং আগামীতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সাবেক ও বর্তমান ছাত্রদের সাথে নিয়ে কঠোর কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামতে বাধ্য হবো।’

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 


আরো সংবাদ


premium cement