৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাস সরানোর দাবিতে মানারাতে মানববন্ধন

বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাস সরানোর দাবিতে মানারাতে মানববন্ধন - ছবি : সংগৃহীত

দ্রুততম সময়ের মধ্যে মানারাত স্কুল ভবন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাস সরানোর দাবিতে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা মানববন্ধন করেছে। একই সাথে স্কুলের মাঠ দখলের ষড়যন্ত্র রুখে দিতে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজধানীর গুলশানের মানারাত ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা মানববন্ধন করে এ দাবি জানায়।

নারী অভিভাবক খাদিজা ইসলাম মানববন্ধনে বলেন, ‘আমরা আমাদের শিশুদের অধিকার রক্ষা করতে চাই। আমরা কোনো সহিংসতা চাই না। আমরা কোনো রাজনীতি করতে চাচ্ছি না। আমরা শিশুদের অধিকার বাস্তবায়নের জন্য মাঠে নেমেছি। মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের জন্য আশুলিয়ায় জায়গা কিনে ক্যাম্পাস করেছে। তারা কেন চলে যাচ্ছে না। কেন তারা হাতগুটিয়ে আছে? বাচ্চাদের মনোবল ভেঙে যাচ্ছে। বাচ্চাদের সামনে ফাইনাল পরীক্ষা, তারা পড়াশোনায় মন দিতে পারছে না।’

মানববন্ধনে অংশ নিয়ে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের পরিচালক আব্দুল্লাহ্ আল জহির স্বপন সরকারকে সুনজর দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘এই মাঠ যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে বাচ্চারা কোথায় যাবে? তাদের বাড়িতে না আছে খেলার মাঠ না আছে অন্য কোনো জায়গা।’ একইসাথে মাঠ রক্ষার জন্য শিক্ষার্থীদের সাথে থাকার আশ্বাস দেন তিনি।

এছাড়া দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী রাইসা, নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী শাহরিয়ারসহ অনেকে মাঠ দখল ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য দেন।

অভিভাবকরা মানববন্ধন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাস সরানোর দাবি জানিয়ে বলেন, ‘আমরা মানারাত স্কুল অ্যান্ড কলেজে অধ্যয়নরত প্রায় চার হাজার ছাত্র-ছাত্রী এবং তাদের অভিভাবকরা সবাই এ মহানগরীর স্থায়ী বাসিন্দা ও ভোটার। ইউনিভার্সিটির তেমন কেউই ওই এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা বা ভোটার নয়। আমরা মেয়র আতিকুল ইসলাম ও প্রধানমন্ত্রীর নিকট নিবেদন করছি, বর্তমানে স্কুল ও কলেজ -এর জমিতে মানারাত ইউনিভার্সিটির যে অস্থায়ী ক্যাম্পাস আছে তা ইউজিসির নির্দেশনা অনুযায়ী আশুলিয়াতে ১০ বিঘার ওপর যে স্থায়ী ক্যাম্পাস আছে সেখানে নিয়ে যেতে হবে। সম্প্রতি কেউ কেউ স্কুল ধংস করে ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠার অশুভ স্বপ্ন দেখছেন। ছোট ছোট বাচ্চাদের হাসি কেড়ে নেয়ার এই স্বপ্ন কোনো মানবিক স্বপ্ন নয়, এগুলো দানবীয় স্বপ্ন। গুলশান মডেল টাউনের অধিবাসীদের শান্তি বিনষ্টের ষড়যন্ত্র। আমাদের ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম অবশ্যই তার মহানগরীর শিশুদের এবং অনাগত শিশুদের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবেন।’

উল্লেখ্য, মানারাত ইউনিভার্সিটি ২০০২ সাল থেকে মানারাত ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ ভবনের একাংশে অস্থায়ীভাবে তাদের শিক্ষাকার্যক্রম চালাচ্ছিল। ইতোমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন স্থায়ী ক্যাম্পাসে যাওয়ার জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে এবং ২০১৬ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে স্থায়ী ক্যাম্পাসে শিক্ষা কার্যক্রম চালুর জন্য নির্দেশনা দিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সকল নথিতেই স্থায়ী ক্যাম্পাস হিসেবে আশুলিয়া ক্যাম্পাসকে দেখানো হয়েছে। এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই গুলশান ক্যাম্পাস স্থানান্তরসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কার্যক্রম আশুলিয়ার স্থায়ী ক্যাম্পাসে চালু করার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন ছিল।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি 

 


আরো সংবাদ


premium cement