০৩ এপ্রিল ২০২০

বেরোবি’র ভিসির অনুপস্থিতিতে অতিষ্ঠ হয়ে ‘হাজিরা বোর্ড’ স্থাপন

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর ক্যাম্পাসে অনুপস্থিতির প্রতিবাদে এবার হাজিরা বিবরণ লিখে একটি বোর্ড বসিয়েছে শিক্ষকদের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদ। বৃহস্পতিবার বিকেলে ক্যাম্পাসের একাডেমিক ভবনের সামনে শেখ রাসেল চত্বরে বোর্ডটি স্থাপন করা হয়।

স্থাপন করা বোর্ডটির ওপরে লেখা হয়েছে,‘বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর হাজিরা খাতা।’

বোর্ডে দেখানো হয়েছে, প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ ২০১৭ সালের ১৪ জুন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দেন। এরপর থেকে মোট ৯৭৯ দিন কর্মদিবসের মধ্যে ভিসি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন মাত্র ২২৭ দিন ও অনুপস্থিত ছিলেন ৭৫২ দিন।

বোর্ড স্থাপনের সময় অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মতিউর রহমান বলেন, ভিসির অনেকগুলো অনিয়ম দুর্নীতির মধ্যে প্রধান একটি হলো বিশ্ববিদ্যালয়ে তার অনুপস্থিতি। ভিসি কি পরিমাণ অনুপস্থিত থাকলে তাকে উপস্থিত রাখার জন্য একটি বোর্ড স্থাপন করা যায়! আমরা চাই ভিসি নিয়মিত ক্যাম্পাসে উপস্থিত থেকে ক্যাম্পাস পরিচালনা করুক।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, দিনের পর দিন ভিসি ক্যাম্পাসে অনুপস্থিত থাকবেন এটা মেনে নেয়া যায় না। সে কারণে আমরা এ উদ্যোগ নিয়েছি।

বোর্ডটি স্থাপনের সময় ১৫ জন শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে ছিলেন অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক মতিউর রহমান, সদস্যসচিব খায়রুল কবীর, শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি গাজী মাজহারুল আনোয়ার, তুহিন ওয়াদুদ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ক্যাম্পাসে ভিসির উপস্থিতি নিশ্চিতসহ নানা দাবিতে অধিকার সুরক্ষা পরিষদ গত ৫ ফেব্রুয়ারি সংবাদ সম্মেলন করে স্মারকলিপি দেয়। এরপরও ভিসি ক্যাম্পাসে উপস্থিত না হওয়ায় স্মারকলিপির ২১ দফা দাবি সংবলিত একটি ডিজিটাল ব্যানার গত ১১ ফেব্রুয়ারি ভিসির অফিসের দরজায় সেঁটে দেয়া হয়। তবে ভিসি দেশের বাইরে নেপালে অবস্থান করায় এ বিষয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।


আরো সংবাদ