০৭ জুন ২০২০
আমরা আজো যথেষ্ট সচেতন নই

মানবতা প্রদর্শন খুব জরুরি

-

মানবিক আচরণ, তথা মানবতা প্রদর্শনের সর্বোত্তম সময় এখন। একজন দুস্থ মানুষকে সামান্য একটু সহযোগিতা পরিস্থিতি অনেক সহজ করে দেয়। একইভাবে একটু অসহযোগিতা, বৈরিতা বা বিদ্বেষ পরিস্থিতিকে অনেক কঠিন ও জটিল করে তোলে। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানবতা প্রদর্শনের অসংখ্য ঘটনা জানা যাচ্ছে। ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ডাক্তার নার্স ও সরকারি প্রশাসনের সাথে হাজার হাজার নাগরিক স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে মাঠে নেমেছেন। কঠিন পরিস্থিতিতে ঘরে আটকা পড়া মানুষের খাবার পানীয় ও জরুরি পণ্য পৌঁছে দিচ্ছেন তারা। স্বেচ্ছাসেবকরা ঘরে এসে জেনে যাচ্ছেন, তাদের কোনো সহযোগিতা লাগবে কি না। আমরাও একটি উন্নত জাতি, অন্ততপক্ষে আমরা সেভাবে দাবি করি। কিন্তু এই কঠিন দুর্যোগের মুহূর্তে এমন সব খবর পাওয়া যাচ্ছে, যাতে নিষ্ঠুরতা ও অমানবিকতার নজির সৃষ্টি হয়েছে এ দেশে।
জানা গেল কিশোরগঞ্জের এক অ্যাম্বুলেন্সের চালকের ওপর নিষ্ঠুরতার কথা। তিনি জেলার একটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চাকরি করেন। জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার পর ছুটি নিয়ে রোববার তাড়াইল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোয়ারেন্টিনে গিয়েছিলেন। পরদিন গুজব রটিয়ে দেয়া হয়, তিনি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এরপর স্থানীয় মানুষরা একের পর এক উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা কর্মকর্তার ওপর চাপ সৃষ্টি করেন। তারা দাবি জানাতে থাকেন, অ্যাম্বুলেন্স চালককে তাড়াইলে রাখা যাবে না। ডাক্তাররা তাদের বোঝাতে চেষ্টা করেছেন যে, তিনি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে তারা নিশ্চিত নন। কিন্তু প্রভাবশালী ও সমাজপতিদের পক্ষ থেকে আরো চাপ আসতে থাকে। একপর্যায়ে ওই চালককে পিটিয়ে এলাকা ছাড়া করার হুমকি দেয়া হয়। প্রাণ বাঁচাতে তিনি শেষ পর্যন্ত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছেড়ে পালিয়েছেন। একজন অসুস্থ মানুষের সাথে কেমন আচরণ করতে হবে, আমরা তাও শিখিনি। মারাত্মক কোনো রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে যেখানে সমাদর করে তার পাশে সবাই দাঁড়ানোর কথা সেখানে আমরা তাকে পিটিয়ে মেরে ফেলতে চাচ্ছি। অথচ এটি নিশ্চিত ছিল না যে, তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।
চীন করোনাভাইরাস মোকাবেলা করার জন্য অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে হাসপাতাল নির্মাণ করে ফেলেছে। আমাদের দেশে করোনা মোকাবেলার প্রস্তুতি যথেষ্ট নয়। অনেক সময় পাওয়ার পরও আমাদের ডাক্তার নার্স হাসপাতাল প্রস্তুত করা হয়নি। নেই পর্যাপ্ত সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক। এ অবস্থায় একটি ব্যবসায়িক গোষ্ঠী ঢাকায় ৩০১ শয্যার একটি হাসপাতাল তৈরি করছিল। ঢাকার তেজগাঁওয়ে নিজস্ব দুই বিঘা জমির ওপর হাসপাতালটি তৈরি করা হলে বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা হতো। কিন্তু সরকারি দলের স্থানীয় একজন প্রভাবশালী নেতার বাধার মুখে হাসপাতাল প্রস্তুতির জরুরি কাজটি স্থগিত হয়ে গেছে। এ দুর্যোগ ক্ষমতাসীনদের মানসিকতার কোনো পরিবর্তন আনতে পারেনি। যেকোনো মূল্যে তারা নিজেদের স্বার্থ উদ্ধার করতে চান। আমাদের প্রশাসনের লোকেরাও সীমা ছাড়ানো কর্মকাণ্ড করছেন। দুর্যোগে মানুষের সমব্যথী হওয়ার পরিবর্তে অনেকে বাহাদুরি দেখাতে গিয়ে নিষ্ঠুরতা করছেন। যশোরের মনিরামপুরে এক সহকারী কমিশনার তিন বৃদ্ধকে কান ধরে ওঠবস করান মাস্ক না পরায়। লজ্জাকর সে চিত্র আবার তারা ধারণও করেছেন। অভাবী বৃদ্ধ লোকদের এভাবে শাস্তি দেয়ার মধ্যে কী কৃতিত্ব থাকতে পারে, আমরা বুঝতে পারছি না।
সারা পৃথিবীতে নতুন এক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এখন মানুষের মনুষ্যত্বের পরীক্ষার পালা। মানবিকতার প্রকৃতস্বরূপ এখন প্রকাশিত হবে। সামর্থ্যবানদেরই পরীক্ষার সময় এটি। আমরা দেখতে পাচ্ছি, বাংলাদেশের সরকারি প্রশাসন থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের একটা অংশও মানবিক দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ হচ্ছে। তারা আত্মকেন্দ্রিক, তাই নিজের ষোলোআনা পাওয়ার মানসিকতাই ধরে রেখেছেন। করোনার মতো ভয়াবহ বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে আমাদের মানসিকতার ব্যাপক পরিবর্তন আনতে হবে। যারা এখনো অমানবিক আচরণ করছেন তাদের চিহ্নিত করা এবং তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করাই সময়ের দাবি।


আরো সংবাদ

প্রতিষ্ঠান খুলে শিক্ষার্থীদের বিপদে ফেলতে চাই না : প্রধানমন্ত্রী (২৩৯৮২)নুতন মেসি লুকা রোমেরো (১৩০৬৪)ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর স্বাস্থ্যের অবনতি (১৩০৬২)গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত করোনা টেস্ট কিট অনুমোদনে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লিগ্যাল নোটিশ (১১০৭৩)শরীরে করোনা উপসর্গ, ভর্তি নিল না কেউ, স্ত্রীর কোলে ছটফট করে স্বামীর মৃত্যু (৭৪০৭)মোহাম্মদ নাসিমের অবস্থার অবনতি, জরুরি অস্ত্রোপচার চলছে (৭৩৪৫)সাবধান! ভুলেও এই ছবিটি স্মার্টফোনের ওয়ালপেপার করবেন না (৬৩৮৪)যে কারণে 'এ পজিটিভ' রক্তে করোনা আক্রান্তের ঝুঁকি বেশি (৬২৮৭)বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত ৬০ হাজার ছাড়ালো, নতুন মৃত্যু ৩০ (৬২১১)কেরালায় আনারস খেয়ে গর্ভবতী হাতির মৃত্যু নিয়ে সবশেষ যা জানা গেছে (৬০৬১)




justin tv