০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ১০ রজব ১৪৪৪
ads
`

জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী ৪০ কোম্পানি

জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী ৪০ কোম্পানি । - ছবি : সংগৃহীত

বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রস্তুত জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চল। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে অবস্থিত এক হাজার একর জায়গার ওপর প্রতিষ্ঠিত অর্থনৈতিক অঞ্চলটি মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন। পুরো অর্থনৈতিক অঞ্চল চালু হলে সেখানে ১৫০ কোটি ডলার বিনিয়োগ হবে। বাংলাদেশী টাকায় যার পরিমাণ ১৫ হাজার কোটি টাকা। সেখানে এক লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হবে বলেও জানান বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বেজার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় এসব তথ্য জানান নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন। ডেভেলপমেন্ট জার্নালিস্ট ফোরাম অব বাংলাদেশ ডিজেএফবির সাথে যৌথভাবে এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে বেজা।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারো কাউয়াচি, জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চলের প্রকল্প পরিচালক সালেহ আহমেদ, বেজার নির্বাহী সদস্য ইরফান শরীফ, আবদুল আজীম চৌধুরী, ডিজেএফবির সভাপতি হামিদ উজ জামান।

বেজা জানায়, পাঁচটি অর্থনৈতিক অঞ্চলে সরকারি ও বেসরকারিভাবে প্রস্তাবিত বিনিয়োগ মোট দুই হাজার ৬১৭ কোটি ৩১ লাখ ৭৭ হাজার ডলার। যার মধ্যে বেসরকারি বিনিয়োগ ৪০০ কোটি ডলার। আর সরকারি দুই হাজার ২১৭ কোটি ৩১ লাখ ৭৭ হাজার ডলার।

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান বলেন, অর্থনৈতিক অঞ্চলটিতে বিনিয়োগে এরই মধ্যে চুক্তি সই হয়েছে বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান সিঙ্গার ও জার্মানির কোম্পানি রুডলফের সাথে। আরো ৪০টি কোম্পানি সেখানে বিনিয়োগের আগ্রহ দেখিয়েছে। যার মধ্যে ৩০টি কোম্পানি জাপানের। বাকি দশটি অন্য দেশের। আগামী ৬ ডিসেম্বর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের দিন জাপানের দু’টি কোম্পানির সাথে চুক্তি সই হওয়ার কথা। তবে ওই দুটি কোম্পানির নাম প্রকাশ করতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

জানা যায়, জাপানের ওনদা করপোরেশন ও নিক্কা কেমিক্যালসের সাথে ৬ ডিসেম্বর সরকারের চুক্তি হওয়ার কথা রয়েছে। জাপানি অর্থনৈতিক অঞ্চলে ওনদা করপোরেশন ১০ একর, নিক্কা দশ একর জমি বরাদ্দ পাচ্ছে। ওনদা সেখানে গ্যাস মিটার প্রস্তুত করবে। আর নিক্কা কেমিক্যালস তৈরি করবে।

জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চলে সরকার ও জাপানের শেয়ার কত জানতে চাইলে শেখ ইউসুফ হারুন বলেন, বেজার শেয়ার থাকছে ২৪ শতাংশ, জাইকার ১৫ শতাংশ এবং সুমিতমো করপোরেশনের ৬১ শতাংশ।

তিনি বলেন, উদ্বোধনের পর কোম্পানিগুলো কারখানা নির্মাণ কাজ শুরু করতে পারবে। আগামী এক বছরের মধ্যে সেখানে কারখানা থেকে উৎপাদন শুরু হবে।

তিনি বলেন, আমরা ভারত ও চায়না সরকারের সাথে জিটুজি ভিত্তিতে অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনে কাজ শুরু করেছে। এছাড়া সৌদি আরব ও সিঙ্গাপুরের সাথে জিটুজি ভিত্তিতে অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের আলোচনা চলমান আছে।


আরো সংবাদ


premium cement