১৪ আগস্ট ২০২২
`

ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের টোল নির্ধারণ, ১ জুলাই থেকে কার্যকর

ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে - ফাইল ছবি

ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা (ফরিদপুর) এক্সপ্রেসওয়ের (জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়ক) অন্তর্বর্তীকালীন টোল হার নির্ধারণ করেছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

রোববার (২৬ জুন) মন্ত্রণালয়ের টোল ও এক্সেল শাখার উপ-সচিব ফাহমিদা হক খান সই করা এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, আগামী ১ জুলাই থেকে এ টোল হার কার্যকর হবে।

এই এক্সপ্রেসওয়ের ঢাকা প্রান্ত (ধোলাইপাড়) থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত দূরত্ব ৫৫ কিলোমিটার। এর মধ্যে ঢাকা থেকে মাওয়ার দূরত্ব ৩৫ কিলোমিটার, আর সেখান থেকে ভাঙ্গার দূরত্ব ২০ কিলোমিটার।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘টোল নীতিমালা ২০১৪ অনুযায়ী চূড়ান্তভাবে টোল হার নির্ধারণের পূর্ব পর্যন্ত অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কের (এক্সপ্রেসওয়ে) টোল হার (মিডিয়াম ট্রাক) সমন্বিতভাবে ১০.০০ টাকা/কিলোমিটার নির্ধারণ করা হলো। এতে অর্থ বিভাগের সম্মতি রয়েছে। পরবর্তীতে টোল নীতিমালা ২০১৪ অনুসারে যথাসময়ে টোল হার চূড়ান্তভাবে নির্ধারণ করা হবে।’

উপ-সচিব ফাহমিদা হক জানান, ধোলাইপাড় থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত মোট ছয়টি টোল বুথ থাকবে। মাওয়া প্রান্তে আবদুল্লাহপুর, ধলেশ্বরী, শ্রীনগর পর্যন্ত তিনটি এবং পদ্মা সেতু পার হয়ে, কুলিয়াবাজার, মালিগ্রাম ও ভাঙ্গা পর্যন্ত আরো তিনটি টোল বুথ থাকবে। একটি বুথ দিয়ে ঢুকলে সেই গাড়িকে কমপক্ষে পরবর্তী টোল বুথ পর্যন্ত টাকা দিতে হবে।

উল্লেখ্য, ছয় লেনের এই মহাসড়ক নির্মাণে ব্যয় করা হয়েছে প্রায় ১১ হাজার কোটি টাকা। ৪৪টি কালভার্ট, ১৯টি আন্ডারপাস, চারটি বড় সেতু, ২৫টি ছোট সেতু, পাঁচটি ফ্লাইওভার ও চারটি রেলওয়ে ওভারপাসসহ এই মহাসড়কে রয়েছে সার্ভিস লেনও।


আরো সংবাদ


premium cement