১০ আগস্ট ২০২০

করোনার ক্ষতি মোকাবেলায় তহবিল গঠনের পরিকল্পনা

24tkt

করোনার ক্ষতি মোকাবেলায় উচ্চপর্যায়ে একটি অনুদান তহবিল গঠন করা হতে পারে। এই তহবিলে মূলত বেসরকারি খাত থেকে অর্থ সহায়তা নেয়া হবে। শুধু তাই নয়, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিপর্যায়ে যে কেউ এই তহবিলে অনুদান প্রদান করতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, করোনাভাইরাসজনিত পরিস্থিতি মোকাবেলা করা সরকারের একার পক্ষে সম্ভব হবে না। এ ক্ষেত্রে বেসরকারিখাতের অংশগ্রহণ জরুরি। বেসরকারিখাতে অনেক প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি রয়েছে তারা নির্দ্বিধায় পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারকে সহায়তা করতে পারেন। শুধু আর্থিক সহায়তাই নয়, তারা বিভিন্ন ধরনের লজিস্টিক সহায়তাও নেয়া হবে।

এই সহায়তা যথাযথ ব্যবহারের জন্য এই ধরনের তহবিল গঠনের চিন্তা করা হচ্ছে। এই তহবিলে অর্থ প্রদানের ক্ষেত্রে অনলাইনের বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হবে। ক্ষুদ্র সহায়তাকারীরা মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ, রকেট, নগদ-এর মাধ্যমেও অর্থ সহায়তা প্রদান করতে পারবেন। অনুদানের অর্থ আয়করমুক্ত হিসেবে বিবেচিত হবে। অর্থ সহায়তার পাশাপাশি কেউ যদি চিকিৎসা সরঞ্জাম দিতে চায় তাও গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট এক সূত্র জানায়, করোনার কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবে দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠী। বিশেষ করে শহর এলাকায় বসবাসরত দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কোনো কাজ থাকবে না। এই প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে রক্ষা করাই সরকারের মূল দায়িত্ব।

ইতোমধ্যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে খাদ্য সহায়তা দেয়া হবে। চালু করা হবে ব্যাপকহারে ওএমএস কার্যক্রম। দেয়া হবে ১০ টাকা কেজি দরে চাল। এ জন্য সরকারকে বিপুল পরিমাণ অর্থ ভর্তুকি দিতে হবে। কিন্তু ব্যাপকহারে যদি করোনা ছড়িয়ে পড়ে তখন এই ক্ষতি মোকাবেলায় বেসরকারিখাতে সহায়তার প্রয়োজন হয়ে পড়বে।

এ জন্য সরকারের পক্ষ থেকে বেসরকারিখাতের সহায়তা কামনা করা হবে। তাদের বলা হবে অনুদান তহবিলে তারা যেন অর্থ দান করে। এ ক্ষেত্রে নতুন এক তহবিল গঠন করা হতে পারে। অথবা বিদ্যমান প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে এই অনুদানের অর্থ নেয়া হতে পারে। রাষ্ট্রের উচ্চপর্যায়ে থেকে খুব শিগরিই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে।


আরো সংবাদ