০৪ এপ্রিল ২০২০

কাজ কমলেও বাড়ে খরচ

দেশের উন্নয়ন প্রকল্পগুলোতে বাস্তবে নিয়ন্ত্রণ বলতেই নেই। যার ফলে প্রতি বছর বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) উচ্চাভিলাসী আকার ধারণ করে। প্রকল্পগুলো যে ব্যয়ে অনুমোদন পায় একনেকে সে ব্যয়ের মধ্যে রাখতে পারে না বাস্তবায়নকারী সংস্থা। দেখা যায় প্রকল্পের কিছু কিছু অঙ্গের পরিমাণ কমানো হয়েছে। কিন্তু প্রকল্পের ব্যয় আরো বেশি বেড়েছে। এমনই একটি প্রকল্প সোনাপুর (নেয়াখালী)-সোনাগাজী (ফেনী)-জোয়ারগঞ্জ (চট্টগ্রাম) সড়ক উন্নয়ন। ভূমি অধিগ্রহণের পরিমাণ ০.৮৩ হেক্টর কমানো হলেও ব্যয় বেড়েছে এই খাতেই প্রায় ১০৮ কোটি টাকা বলে সড়ক পরিবহণ ও মহাসড়ক বিভাগের সংশোধনী প্রস্তাবনা থেকে জানা গেছে।

সংশোধিত প্রস্তাবনা থেকে জানা গেছে, সোনাপুর-সোনাগাজী-জোয়ারগঞ্জ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পটি ২০১৫ সালের নভেম্বরে ১৭২ কোটি ৬৫ লাখ ৪৪ হাজার টাকায় অনুমোদন দেয়া হয়। মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৮ সালের জুনে। কিন্তু ফেব্রুয়ারিতে এসেই মন্ত্রীর ক্ষমতায় ১০ কোটি টাকার বেশি বাড়িয়ে তা ১৮৫ কোটি ৯৬ লাখ ৪৪ হাজার টাকায় অনুমোদন দেয়া হয়। মেয়াদ বাড়ানো হয় আরো এক বছর। গত ২০১৯ সালের জুনে প্রকল্পটি শেষ করার কথা থাকলেও তা হয়নি। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রকল্পের ব্যয় হয়েছে প্রায় ৯২ কোটি ৪১ লাখ টাকা। যার বিপরীতে বাস্তবায়ন হয়েছে মাত্র ৫৮ দশমিক ০৭ শতাংশ। বাস্তব অগ্রগতি আর্থিক অগ্রগতির তুলনায় কম অনেক। এরপর আবার মেয়াদ ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়। এখন এই ব্যয় আবার ১০৯ কোটি ৯৮ লাখ ৭৪ হাজার টাকা বাড়িয়ে ২৯৫ কোটি ৯৫ লাখ ১৮ হাজার টাকায় প্রস্তাব করা হয়েছে।

ব্যয় পর্যালোচনায় দেখা যায়, প্রকল্পের আওতায় ভূমি অধিগ্রহণের পরিমাণ ছিল ২১.০৩ হেক্টর জমি। আর এই জমি অধিগ্রহণের পরিমাণ দ্বিতীয় সংশোধনীতে এসে ০.৮৩ হেক্টর কমানো হয়। কিন্তু ব্যয় কমানোর পরিবর্তে ০.৮৩ হেক্টর জমির ব্যয় ১০৭ কোটি ৮৩ লাখ ৮ হাজার টাকা বাড়ানো হয়েছে। যেখানে প্রথমে এই ব্যয় ধরা হয় প্রায় ৪৭ কোটি টাকা। এখন এটা বেড়ে হয়েছে প্রায় ১৫৫ কোটি টাকা।

পরিকল্পনা কমিশনের সংশ্লিষ্টদের অভিমত হলো, সড়কের বেশির ভাগ প্রকল্পের ব্যয় মাঝপথে এসে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যখন প্রকল্প প্রণয়ন করা হয় তখন এক ধরনের রেট শিডিউল ধরে ব্যয় প্রাক্কলন করা হয়। অনুমোদন পাওয়ার পর নতুন রেট শিডিউলের কথা তুলে আবার ব্যয় বৃদ্ধি করা হয়। আবার কখনো ইন হাউজ স্ট্যাডি দিয়ে প্রাক্কলন করার কারণে কাজ শুরু করতে গিয়ে সঠিক ব্যয়ের মুখোমুখি হয়। তখন নতুন করে ব্যয় বৃদ্ধি পায়।


আরো সংবাদ

জ্বর-মাথা ব্যাথা নিয়ে রোগীর মৃত্যু, লাশ নিয়ে পালালো স্বজনরা নিখোঁজের ৯ দিন পর ভূট্টা ক্ষেতে মিললো লাশ চাঁদপুরের করোনা উপসর্গ নিয়ে নারীর মৃত্যু, ৫ বাড়ি লকডাউন করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কার মার্কিন গবেষকদের, পাওয়া গেছে সাফল্য আরো এক পুলিশ সদস্যসহ দুই রোগী বাগেরহাটে আইসোলেশনে ভর্তি বাগেরহাটে পাচার কালে ১৮ বস্তা চালসহ আটক-১ জেলেদের সাড়ে ২৭ টন চাল আত্মসাৎ করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান! যশোরে প্রতিবন্ধী কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা, অভিযুক্ত আটক গার্মেন্টস খুলে দিয়ে নতুন বিপর্যয় ডেকে আনা হচ্ছে : জামায়াত পাবনা-সিরাজগঞ্জের দেড় লাখ গোখামারি ব্যাপক লোকসানে কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে রাশিয়ায় উচ্চ প্রযুক্তির নজরদারি ব্যবস্থা

সকল

আত্মহত্যার আগে মায়ের কাছে স্কুলছাত্রীর আবেগঘন চিঠি (১৩৫৩০)সিসিকের খাদ্য ফান্ডে খালেদা জিয়ার অনুদান (১২৬০৬)করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন খালেদা জিয়া, শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল (৯৩১৫)ভারতে তাবলিগিদের 'মানবতার শত্রু ' অভিহিত করে জাতীয় নিরাপত্তা আইন প্রয়োগ (৮৪৯০)করোনায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গেল ইতালির একটি পরিবার (৭৮৬৪)করোনার মধ্যেও ইরান-যুক্তরাষ্ট্র আরেক যুদ্ধ (৭১৪০)করোনায় আটকে গেছে সাড়ে চার লাখ শিক্ষকের বেতন (৬৯৩১)ইসরাইলে গোঁড়া ইহুদির শহরে সবচেয়ে বেশি করোনার সংক্রমণ (৬৮৯০)ঢাকায় টিভি সাংবাদিক আক্রান্ত, একই চ্যানেলের ৪৭ জন কোয়ারান্টাইনে (৬৭৬১)করোনাভাইরাস ভয় : ইতালিতে প্রেমিকাকে হত্যা করল প্রেমিক (৬২৯৬)