২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

পেঁয়াজ নিয়ে সুসংবাদ দিলেন পাইকাররা


কয়েক দিনের মধ্যে পেঁয়াজের দাম কমবে বলে সুসংবাদ দিয়েছেন রাজধানীর কাওরান বাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী ও আড়তদাররা। তারা বলছেন, আগের দিনের তুলনায় গতকাল পাবনাসহ কয়েকটি জায়গায় পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম প্রতি কেজিতে ১০ টাকা করে কমেছে।

আজ রোববার থেকে ঢাকাতেও ১০ টাকা করে কমবে বলে আশ্বস্ত করেন তারা। পাবনা থেকে কাওরান বাজারে পেঁয়াজ সরবরাহকারী পাইকারি ব্যবসায়ী নিতাই বলেন, পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম ২২০ থেকে ২৩০ টাকা চলছে। তবে আজ ঢাকায় পেঁয়াজের দাম কেজিতে ১০ টাকা কমতে পারে।

কারণ গতকাল পাবনায় প্রতি মণে ৩০০ থেকে ৪০০ কমে বিক্রি হয়েছে। পাবনার পেঁয়াজ রাতের মধ্যে ঢাকায় পৌঁছাবে, ভোরে এসব পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে।

পাইকাররা জানান, ইতোমধ্যে পাতা পেঁয়াজ বাজারে ওঠা শুরু করেছে। আর এ মাসের শেষের দিকেই পেঁয়াজ ওঠা শুরু করবে। তখন প্রতিদিন কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা কমতে শুরু করবে। দেশের বাইরে থেকে বেশি বেশি আমদানি করা সম্ভব হলে পেঁয়াজের বাজার এমনিতেই কমে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন তারা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল জানানো হয়, মিসর থেকে কার্গো বিমানযোগে আমদানিকৃত পেঁয়াজের প্রথম চালান ঢাকায় পৌঁছাবে আগামী মঙ্গলবার। এস আলম গ্রুপ বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ আমদানি করছে, এটি তার প্রথম চালান। পর্যায়ক্রমে অন্য আমদানিকারকদের আনা পেঁয়াজ কার্গো উড়োজাহাজযোগে ঢাকায় পৌঁছবে।

এর আগে শুক্রবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো অপর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছিল, দেশে পেঁয়াজের সরবরাহ ও মূল্য স্বাভাবিক রাখতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে টিসিবির মাধ্যমে সরাসরি তুরস্ক থেকে, এস আলম গ্রুপ মিসর থেকে, বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান আফগানিস্তান ও সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে জরুরিভিত্তিতে কার্গো উড়োজাহাজযোগে পেঁয়াজ আমদানি করবে।

এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। অতি অল্প সময়ের মধ্যে পর্যাপ্ত পেঁয়াজ বাজারে সরবরাহ করা সম্ভব হবে। এ ছাড়া সমুদ্রপথে আমদানিকৃত পেঁয়াজ বাংলাদেশের পথে রয়েছে, পেঁয়াজের সবচেয়ে বড় চালান শিগগিরই বাংলাদেশে পৌঁছবে।


আরো সংবাদ