১২ আগস্ট ২০২০

মোট মৃত্যুর সংখ্যায় ইতালিকে টপকে চতুর্থ স্থানে মেক্সিকো

মোট মৃত্যুর সংখ্যায় ইতালিকে টপকে চতুর্থ স্থানে মেক্সিকো - ছবি : সংগৃহীত
24tkt

দৈনিক আক্রান্তের নিরিখে মার্কিন মুলুকে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে ফ্লোরিডা। স্বাস্থ্যদপ্তরের হিসেব অনুযায়ী, মার্কিন মুলুকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণের শিকার ফের ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। শুধু ফ্লোরিডায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ২৯৯ জন। মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে আমেরিকার আর কোনো প্রদেশে এক দিনে এত মানুষ করোনায় আক্রান্ত হননি। গত বুধবার দেশে এক দিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণের রেকর্ড করেছিল ক্যালিফোর্নিয়া। আক্রান্ত হয়েছিলেন ১১ হাজার ৬৯৪ জন। তার আগে গত ১৫ এপ্রিল একদিনে ১১ হাজার ৫৭১ জন সংক্রামিত হয়েছিল নিউ ইয়র্কে। এবার সেই সব প্রদেশকে টপকে গেল ফ্লোরিডা। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৬৯ হাজার ৮১১ জন। পাশাপাশি, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৪৫ জন। সামগ্রিকভাবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশে মোট সংক্রামিতের সংখ্যা ৩৪ লক্ষ ১৩ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৮২ জনের।

করোনা সংক্রমণের জেরে মৃত্যুমিছিল অব্যাহত গোটা বিশ্বেই। সোমবার রাত পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৫ লাখ ৭১ হাজারেরও বেশি মানুষ। মোট আক্রান্ত ১ কোটি ৩০ লাখ ৪১ হাজার ছাড়িয়েছে। তবে করোনাজয়ী মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে। বিশ্বব্যাপী এই মহামারীকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ৭৫ লাখ ৮২ হাজার ৩৫ জন। আক্রান্তের নিরিখে বিশ্ব তালিকায় আমেরিকার পর দ্বিতীয় স্থানে ব্রাজিল। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ লাখ ৬৬ হাজারের বেশি। মৃত্যু হয়েছে ৭০ হাজার ৫২৪ জনের। তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত।
এদিনই মৃত্যুর নিরিখে ইতালিকে টপকে বিশ্বে চতুর্থস্থানে উঠে এসেছে মেক্সিকো। সেখানে মোট মৃত্যু ৩৫ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। করোনায় মৃতের সংখ্যায় বিশ্বে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে যথাক্রমে আমেরিকা, ব্রাজিল ও ব্রিটেন।

অন্যদিকে, সংক্রমণ অব্যাহত দক্ষিণ আফ্রিকায়। যার জেরে দেশে ঘোষিত জাতীয় বিপর্যয়ের মেয়াদ আগামী ১৫ আগস্ট পর্যন্ত বাড়িয়ে সে দেশের সরকার। প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা ঘোষণা করেছেন, রাত ৯টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত কার্ফু জারি থাকবে। দক্ষিণ আফ্রিকায় এদিন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লাখ ৭৬ হাজার ২৪২। মৃত্যু হয়েছে মোট ৪ হাজার ৭৯ জনের। আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে পাকিস্তানেও। এদিন পর্যন্ত সেখানে করোনায় ৫ হাজার ২২৬ জন মারা গেছে।

সূত্র : বর্তমান


আরো সংবাদ