০৭ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯, ১০ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

কলিং ভিসা আবেদনের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার মালয়েশিয়ার

কলিং ভিসা আবেদনের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার মালয়েশিয়ার - ছবি : নয়া দিগন্ত

নতুন করে বিদেশী কর্মী নিয়োগের জন্য অনলাইন পোর্টাল সিস্টেমের ওপর সাময়িক স্থগিত করেছে মালয়েশিয়া। এক সপ্তাহ আগে এই স্থগিতাদেশ দেয়ার পর দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে সাময়িক স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এর আগে গত ৫ আগস্ট মন্ত্রী বলেছিলেন, শ্রমিক নিয়োগের পুরনো পদ্ধতি সংস্কার করে একটি যথাযথ পদ্ধতি অনুসরণ করার জন্য ১৪ থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত কলিং ভিসার নতুন আবেদন স্থগিত করা হয়েছে।

এশিয়ার ইউরোপখ্যাত মালয়েশিয়া তাদের শ্রম চাহিদা পূরণের জন্য স্থানীয়দের পাশাপাশি বাংলাদেশসহ অন্য ১৪টি দেশের কর্মীদের ওপর নির্ভর করে থাকে। কিন্তু গত তিন বছর মহামারীর কারণে নতুন করে বিদেশী কর্মী নিয়োগ স্থগিত থাকায় দেশটিতে মারাত্মক শ্রমিক সঙ্কট তৈরি হয়।

দেশটিতে একদিকে তীব্র শ্রমিক সঙ্কট, অন্য দিকে দীর্ঘ সময় নিয়ে কলিং ভিসায় দরকষাকষি, করোনা মহামারীর ক্ষতিসহ সব মিলিয়ে বিপাকে রয়েছে উৎপাদন সেক্টরগুলো। শিল্প কারখানা মালিকেরা বলছেন, তাদের চাহিদা মতো শ্রমিক যথাসময়ে সরবরাহ করতে না পারায় তাদের উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এতে করে তারা মোটা অঙ্কের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

বিবৃতিতে মানব সম্পদবিষয়ক মন্ত্রী এম সারাভানান বলেন, বিদেশী কর্মী নিয়োগের জন্য পোর্টালের মাধ্যমে আবেদনের ওপর সাময়িক যে স্থগিতাদেশ ছিল, তা আগামী শুক্রবার (১৯ আগস্ট) থেকে তুলে নেয়া হবে। বিদেশী শ্রমিক নিয়োগের বিষয়টি আরো ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করার জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে ১৫ জন ও মানবসম্পদ
মন্ত্রণালয় থেকে আরো পাঁচজন প্রতিনিধির একটি বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া শিল্প মালিকদের অনুরোধে কর্মসংস্থান আইন ১৯৫৫-এর সংশোধনীর বাস্তবায়ন সাপ্তাহিক ৪৮ ঘণ্টা কাজের কর্মঘণ্টা কমিয়ে ৪৫ ঘণ্টায় নামিয়ে আনার বিষয়টি স্থগিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও অন্য মন্ত্রীদের সাথে আলোচনা চলছে বলেও জানান।

সারাভানান বলেন, দেশটির বিভিন্ন শিল্প-কারখানার স্থবিরতা কাটিয়ে উঠার লক্ষ্যে তাদের অনুরোধের ভিত্তিতে মূলত এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তিনি জানান, চলতি মাসের মধ্যেই আরো অন্তত চার লাখ বিদেশী কর্মীর আবেদনপ্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।


আরো সংবাদ


premium cement