৩১ মার্চ ২০২০

করোনা ইস্যুতে ভিডিও কনফারেন্সে সার্ক নেতারা

ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা - সংগৃহীত

নভেল করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সম্মিলিত কর্মপন্থা ঠিক করতে ভিডিও কনফারেন্সে মিলিত হয়েছেন সার্কভুক্ত আট দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানরা। করোনাভাইরাস বা কভিড-১৯ রোগ বৈশ্বিক মহামারী আকার ধারণ করার প্রেক্ষাপটে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আহ্বানে রোববার বিকাল সাড়ে ৫টায় শুরু হয় এই ভিডিও কনফারেন্স। ভিডিও কনফারেন্সে মোদির সাথে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং তোবগে, মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহ, শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোটাবায়া রাজাপাকসে, আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের স্বাস্থ্য উপদেষ্টা জাফর মির্জা।

এরআগে শুক্রবার সকালে এক টুইট বার্তায় করোনাভাইরাস মোকাবিলায় একসাথে কাজ করতে সার্কভুক্ত দেশগুলোর নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে তিনি বলেন,‘আমাদের নাগরিকদের কীভাবে সুস্থ রাখা যায়, সে বিষয়ে আমরা ভিডিও কনফারেন্সে আলোচনা করতে পারি। একসঙ্গে আমরা বিশ্বের সামনে একটি উদাহরণ তৈরি করতে এবং একটি স্বাস্থ্যকর পৃথিবী গড়ে তুলতে অবদান রাখতে পারি।’

এরপর বাংলাদেশসহ সার্কের অন্য সাতটি সদস্য দেশ তার সেই আহ্বানে সাড়া দিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেয়ার কথা জানায়। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনে এই ভিডিও কনফারেন্স সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সার্কের নেতারা এ ভাইরাস রোধে করণীয় নিয়ে মতামত তুলে ধরছেন। পাশাপাশি নিজেদের গৃহীত পদক্ষেপও তুলে ধরছেন।

বাংলাদেশ সরকারের নেয়া নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের দেশে পাঁচজন করোনা সংক্রমিত ব্যক্তি এসেছেন। স্থানীয়ভাবে কোনো সংক্রণের ঘটনা পাওয়া যায়নি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা মোকাবেলায় কৌশলগত বিষয় নিয়ে আমাদের স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্বাস্থ্যসচিবরাও এ ধরনের সম্মেলনে আলোচনা করতে পারেন। তিনি বলেন, এই সঙ্কট মোকাবিলায় সার্ক দেশগুলোর পারস্পরিক সহযোগিতা এবং ঘনিষ্ঠ সমন্বয় দরকার। আমাদের বিশেষজ্ঞ অভিজ্ঞতা শেয়ার করা দরকার।


আরো সংবাদ