০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

রা সূ ল সা. কে নি বে দি ত প ঙ ক্তি মা লা

-

জাহাঙ্গীর ফিরোজ
মুহাম্মদ সা: নাম শুনে খুলে যায় দ্বার

তোমার দয়ার গুণে লিখি আমি আল্লাহ-রসুল
আমার দরুদ পাঠ ইয়া রব করুন উসুল।

তোমার হাবিব সেই হাশরের দিনে
সাফায়ত করিবেন এই কথা জেনে
হৃদয় লাফিয়ে ওঠে আঁখি ছলছল
সেজদায় পড়ি আমি চোখে আসে জল।

তোমাকে ও তাঁকে স্মরি চাই যে দীদার
মুহাম্মদ নাম শুনে খুলে যায় দ্বার।
স্বপ্নে দেখেছি তাঁকে তোমাকে দেখিনি
তোমাকে দেখার লোভে শিরক করিনি।

দেখি না দেখি না এই পোড়া দুই চোখে
তবু বুঝি তুমি এসে দাঁড়াও সমুখে।
তোমার হাবিব সে যে আমার প্রেমিক
তাঁর রূপ তাঁর নূর জানি সমধিক।

প্রভু, তুমি খুশি হও যতবার স্মরি
আমার কাঙাল-মন দাও শুধু ভরি।
বহমান এ জগৎ কতটুকু জানি!
দ্বিধা দ্বন্দ্ব সংশয় ঘিরে রাখে মানি।

তবু সেই জঞ্জাল দুই হাতে ঠেলে
আমার হৃদয়খানি রাখিয়াছি মেলে।
দেখা দাও ধরা দাও প্রভু ও রসুল
আমার প্রার্থনা রব করুন কবুল।

 


ফেরদৌস সালাম
হে নবী

মৃত্যুর বাগান ডাকে। অনুভব করি হরিণী নয়না হুরদের
চোখের ঈশারা! কী দারুণ বেহেস্তি আতরে মৌ মৌ
অন্ধকার রহস্যের ঝাঁঝালো চমক
পৃথিবীর তাবৎ সুন্দর ম্লান হয়ে আসে। অনিশ্চিত
সকল গন্তব্য। তবুও মানুষ ছুটে যায়... তাকে যেতে হয়
প্রাণহীন কবরের দিকে- অন্ধকার কিংবা সে জলস্নাত ভরা পূর্ণিমায়।
ছায়া নড়লেও ভয় পাই। দূরে থাকি। বাজ পড়লেও
আতঙ্কিত দোয়া পড়ে ফুঁ দেই বুকের বোতামে,
প্রার্থনায় রাত জাগি।
তাহাজ্জুদে ভিজে যায় নয়ন
চোখে ভাসে মক্কার মিনার- ভাসে নবীজীর পবিত্র মাজার
উম্মতীয় পাপীদের পক্ষে তিনি চাইবেন পানাহ্
তবু ভয়ে হৃৎপিণ্ড কেঁপে কেঁপে ওঠে। হাশরের মাঠে,
হে নবী- তোমাকে কী খুঁজে পাবো পূণ্যবান মানুষের ভিড়ে!

 

আসলাম সানী
তাঁর নামে

ডালে ফুল দুলে ওঠে কার নামে জানি
বৃষ্টিরা পাঠায় যে শান্তির বাণী।
কার নামে-কার নামে তাঁর নামে সুর
হজরত মুহম্মদ সা: নাম সুমধুর।

পাখিরা যে গান গায় ঝরনারা ছোটে
বাতাসেরা ঝিরিঝিরি সুর হয়ে ওঠে।
তাঁর নামে- তাঁর নামে সকাল-দুপুর
নদীতে যে ঢেউয়ে ঢেউয়ে ছন্দ নূপুর।

সেই নাম মহিমায় সৃষ্টির সুখ
আল্লাহর বন্ধু সে আলোকিত মুখ।
তিনিই তো- তিনিই তো পেয়ারা নবী
জগতের সুন্দর, শ্রেষ্ঠ ছবি,

তিনিই তো মানবতা বিশ্ব নবী
বিশ্ব রবি তিনিই তো তিনিই তো
পেয়ারা নবী।

 

মহিবুর রহিম
অবারিত করে দিলেন ক্ষমা

দশদিকে যাত্রা তার সহৃদয় মানবিক কাহিনী বিস্তার
মুঠোতে আছেন ধরে অব্যাহত রহমতের ধারা
কে জানতো, সুনাম সুখ্যাতি তাঁর সর্বদিকে প্রসারিত হবে
আর অবারিত মেঘের মতন জমে উঠবে মানুষের আশা

তাঁর সহৃদয় উচ্চারণ থেকে ছড়িয়ে পড়লো কথার সৌরভ
তাঁর প্রতিটি পদক্ষেপ হয়ে উঠলো শান্তির সুদৃঢ় সোপান
বিশ্বাসের স্নিগ্ধমেঘ নেমে এলো উষর উপত্যকায়
চারদিকে পুনরুজ্জীবিত হলো বরাভয় সত্যের আবাদ

কে জানতো, এভাবে বিধ্বস্ত হবে বিভেদের কায়েমি প্রাচীর
হিংসার পিলারগুলো একে একে খসে পড়বে আর
বিতাড়িত অমঙ্গল গুটিয়ে ফেলবে তার ধুয়ার কুণ্ডলী
আইয়ামের খাজ থেকে খসে পড়বে জাহেলি বিবাদ

তাঁর সাহসের পতাকায় লেখা হলো অনন্ত বিজয়
বিশ^াসের সবুজ ছায়ায় মুক্তি পেলো শাদা কবুতর
বিপন্ন আশাবাদের হাতে তিনি তুলে দিলেন নির্ভরতা
আর মানুষের মনে অবারিত করে দিলেন ক্ষমা।

 

শাহীন আরা আনওয়ারী
ওগো প্রিয় রাসূল

ওগো প্রিয় রাসূল,
শতকোটি দরুদ ও সালাম।
তোমার মধুর বাণী
জাগায় জীবন অবিরাম।
কি অসীম প্রেমের আধার
তোমার বাণীর প্রতিটা অক্ষর
সীমাহীন ভালোবাসায় হৃদয় ছোঁয়া-
প্রতিবেশী যদি থাকে অনাহারে
ইবাদত হয় না কবুল।

দেখিয়েছো সরল পথ আজীবন
ক্ষুধার জ্বালায় পাথর বেঁধে
লড়েছো তুমি আল্লাহর পথে।

প্রমাণ করেছো সত্য এ কুরআন
তোমাকে ভুললে ব্যর্থ এ জীবন
শুধু বিপর্যয় গিলবে তখন।
ভালোবাসা মেলবে না পাখা
শুধু হাহাকার ব্যর্থতা গ্লানি
সীমাহীন অন্ধকারে ঢাকা।



আরো সংবাদ


ইসরাইলকে ইরানে গোয়েন্দা অভিযান চালাতে নিষেধ করল যুক্তরাষ্ট্র (১৪২৯২)‘ওমিক্রন’ থেকে বাঁচাতে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যা করলেন চিকিৎসক (১১০২৯)ইরান ইস্যুতে আমেরিকা একঘরে হয়ে পড়েছে : ব্লিঙ্কেনের স্বীকারোক্তি (১০২১৩)এরদোগানকে হত্যার চেষ্টা! (৮০৯০)রুশ অস্ত্র কিনলে নিষেধাজ্ঞা, ভারতকে বার্তা যুক্তরাষ্ট্রের (৭৯১৫)বাংলাদেশ ভারতের পক্ষে যাবে না (৭৮৩৪)পাকিস্তানের বিরুদ্ধে হেরেও খুশি পাপন (৭২৬৯)যুক্তরাষ্ট্রকে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি : প্রতিবেশীর ঘরে অস্ত্র ঢোকালে যুদ্ধ বাধবে (৬৫০৭)‘বুথে নয়, নৌকার ভোট হবে টেবিলের উপরে, পুলিশ প্রশাসনকে সেভাবেই দেখবো’ (৬০০১)জ্বর নেই, স্বাদ-গন্ধও ঠিক আছে! ওমিক্রন চেনার সহজ উপায় (৫৮২৬)