০৯ ডিসেম্বর ২০২১
`

কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট ট্রেনিং একাডেমিতে ২৮ জন নিয়োগ

-

কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট ট্রেনিং একাডেমি, চট্টগ্রাম-এর অধীনে নি¤œবর্ণিত শূন্য পদে সরাসরি নিয়োগের জন্য বাংলাদেশের নাগরিকদের কাছ
থেকে দরখাস্ত আহ্বান করা হয়েছে। আবেদনপত্র পাঠানোর শেষ তারিখ : ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বিকেল ৫টা পর্যন্ত। লিখেছেন মাহমুদ কবীর

পদের নাম : কম্পিউটার অপারেটর।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : সরকার অনুমোদিত যেকোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক (সম্মান) বা সমমানের ডিগ্রি। কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরে প্রতি মিনিটে বাংলায় ২৫ শব্দ এবং ইংরেজিতে ৩০ শব্দের গতিসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ঝঃধহফধৎফ অঢ়ঃরঁফব ঞবংঃ-এ উত্তীর্ণ হতে হবে।
বেতন স্কেল : ১২৫০০-৩০২৩০/-
পদের নাম : লাইব্রেরিয়ান।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : সরকার অনুমোদিত যেকোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক পাসসহ লাইব্রেরি সায়েন্সে ডিপ্লোমা এবং ন্যূনতম ৩ বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
বেতন স্কেল : ১২৫০০-৩০২৩০/-
পদের নাম : স্টোর কিপার।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : সরকার অনুমোদিত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাণিজ্য বিভাগে স্নাতক/ সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। স্টোর কিপার হিসেবে বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
বেতন স্কেল : ১২৫০০-৩০২৩০/-
পদের নাম : সুবেদার।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনী, বিজিবি, আনসারের সুবেদার/সমমানের পদধারী হতে হবে। বয়স সর্বোচ্চ ৪০ বছর হতে হবে।
বেতন স্কেল : ১২৫০০-৩০২৩০/-
পদের নাম : উচ্চমান সহাকরী।
পদের সংখ্যা : ৫টি।
আবেদনের যোগ্যতা : সরকার অনুমোদিত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। কম্পিউটার ব্যবহারে দক্ষতা।
বেতন স্কেল : ১০২০০-২৪৬৮০/-
পদের নাম : ক্যাশিয়ার।
পদের সংখ্যা : ২টি।
আবেদনের যোগ্যতা : সরকার অনুমোদিত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাণিজ্য বিভাগে স্নাতক/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। কম্পিউটার চালনায় পারদর্শী হতে হবে।
বেতন স্কেল : ১০২০০-২৪৬৮০/-
পদের নাম : সাঁট মুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর।
পদের সংখ্যা : ২টি।
আবেদনের যোগ্যতা : কোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দ্বিতীয় শ্রেণী/ সমমানের সিজিপিএতে স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি। কম্পিউটারে দক্ষতা। ডড়ৎফ চৎড়পবংংরহম/ উধঃধ ঊহঃৎু ্ ঞুঢ়রহম -এর ক্ষেত্রে গতি যথাক্রমে ৩০ ও ২৫ শব্দ।
বেতন স্কেল : ১০২০০-২৪৫৮০/-
পদের নাম : ড্রাইভার।
পদের সংখ্যা : ২টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অষ্টম শ্রেণী/সমমান পাস। সরকার অনুমোদিত বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ থেকে হালনাগাদ ড্রাইভিং লাইসেন্সসহ গাড়ি চালনায় ৩ বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
বেতন স্কেল : ৯৩০০-২২৪৯০/-
পদের নাম : কম্পাউন্ডার।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণসহ প্যারা-মেডিক্যাল ইনস্টিটিউট থেকে ডিপ্লোমা পাস হতে হবে। অথবা ৮ম শ্রেণী পাস এবং সংশ্লিষ্ট পদে ৫ বছরের অভিজ্ঞতাসহ কম্পিউটার সার্টিফিকেটধারী।
বেতন স্কেল : ৯৩০০-২২৪৯০/-
পদের নাম : হাবিলদার।
পদের সংখ্যা : ৩টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনী, বিজিবি, আনসারের হাবিলদার সমমানের পদধারী হতে হবে। বয়স সর্বোচ্চ ৪০ বছরের মধ্যে হতে হবে।
বেতন স্কেল : ৯৩০০-২২৪৯০/-
পদের নাম : আরমারার।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনী, বিজিবি, আনসারের আরমারার পদধারী হতে হবে। বয়স সর্বোচ্চ ৪০ বছরের মধ্যে হতে হবে।
বেতন স্কেল : ৮৮০০-২১৩১০/-
উপরি উক্ত পদগুলোতে যেসব জেলার প্রার্থীরা আবেন করতে পারবেন না : মাদারীপুর ও রাঙ্গামাটি।
পদের নাম : দফতরি।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অষ্টম শ্রেণী/ সমমান পাস। বই বাঁধাইয়ের কাজে অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
বেতন স্কেল : ৮৫০০-২০৫৭০/-
পদের নাম : অফিস সহায়ক।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে এসএসসি/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ।
বেতন স্কেল : ৮২৫০-২০০১০/-
পদের নাম : নৈশপ্রহরী।
পদের সংখ্যা : ২টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অষ্টম শ্রেণী/সমমান পাস। সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে।
বেতন স্কেল : ৮২৫০-২০০১০/-
পদের নাম : বাবুর্চি।
পদের সংখ্যা : ১টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অষ্টম শ্রেণী/সমমান পাস। বাবুর্চি কাজে বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে।
বেতন স্কেল : ৮২৫০-২০০১০/-
পদের নাম : ঝাড়–দার/ক্লিনার/সুইপার।
পদের সংখ্যা : ৩টি।
আবেদনের যোগ্যতা : অষ্টম শ্রেণী ও বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
বেতন স্কেল : ৮২৫০-২০০১০/-
উপরি উক্ত পদগুলোতে যেসব জেলার প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন না : গোপালগঞ্জ, চট্টগ্রাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, রংপুর, ঝালকাঠি ও বরগুনা।
বয়সসীমা : সাধারণ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে ১৮ থেকে ৩০ বছর হতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যার ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৩২ বছর পর্যন্ত শিথিলযোগ্য। বিভাগীয় প্রার্থীদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে ৪০ বছর হতে হবে। বয়স প্রমাণের জন্য কোনো এফিডেভিট গ্রহণযোগ্য নয়।
জরুরি তথ্য : দরখাস্ত পাঠানোর সময় খামের ওপর পদের নাম ও নিজ জেলার নাম লিখতে হবে। এ ছাড়া আবেদনপত্রের সাথে প্রার্থীর নাম ও ঠিকানা সংবলিত ১০ টাকার অব্যবহৃত ডাকটিকিট যুক্ত একটি ৯ ইঞ্চি ´ ৪ ইঞ্চি সাইজের ফেরত খাম সংযুক্ত করতে হবে।
আবেদনপত্র পাঠানোর শেষ তারিখ : ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বিকেল ৫টা পর্যন্ত।
আবেদনপত্র পাঠনোর ঠিকানা : আবেদনপত্র ডাকযোগে মহাপরিচালক, কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট ট্রেনিং একাডেমি, সাগরিকা রোড, চট্টগ্রাম-৪২১৯-এ ঠিকানায় পাঠাতে হবে।
জেনে রাখুন : সরকারি/আধা সরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে কর্মরত প্রার্থীদের যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে আবেদনের কোনো অগ্রিম কপি গৃহীত হবে না। আবেদনপত্রের সাথে সদ্য তোলা ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি আঠা দিয়ে লাগিয়ে দিতে হবে এবং ২ কপি রঙিন সত্যায়িত ছবি স্ট্যাপল করে দিতে হবে। অর্থাৎ ৩ কপি ছবি পাঠাতে হবে। ছবির পেছনে আবেদনকারীর নাম ও জেলার নাম লিখতে হবে। পুরনো ছবি গ্রহণযোগ্য হবে না।
পরীক্ষার ফি জমা দেয়া : মহাপরিচালক, কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট ট্রেনিং একাডেমি, সাগরিকা রোড, চট্টগ্রামের অনুকূলে ১-১১ নম্বর পদের ক্ষেত্রে ১০০ টাকার এবং ১২-১৬ নম্বর পদের ক্ষেত্রে ৫০ টাকার ট্রেজারি চালান (কোড : ১-১১৩৯-০০০১-২৬৮১তে জমাকৃত)-এর কপি আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্ত করতে হবে। কোনো বিশেষ কোটার বিপরীতে আবেদন করলে তা আবেদনপত্রের খামের ওপর উল্লেখ করতে হবে। নিয়োগের ক্ষেত্রে কোটাসংক্রান্ত বিদ্যমান সরকারি নীতিমালা অনুসরণ করা হবে।
যেসব কাগজপত্র জমা দিতে হবে : মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত সব প্রার্থীকে সাক্ষাৎকার/ মৌখিক পরীক্ষার সময় সব সনদপত্রের মূলকপি উপস্থাপন করতে হবে এবং নি¤œলিখিত সনদপত্রসমূহের ২ সেট সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে। যথাÑ ক. সব শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি;
খ. ইউনিয়ন পরিষদ বা পৌরসভার চেয়ারম্যান বা সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কাছ থেকে নাগরিকত্ব সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি;
গ. জাতীয় পরিচয়পত্র/ জন্মনিবন্ধন সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি;
ঘ. প্রথম শ্রেণির গেজেটেড অফিসার কর্তৃক প্রদত্ত চারিত্রিক সনদপত্র;
ঙ. কোনো বিশেষ কোটার বিপরীতে আবেদন করলে সংশ্লিষ্ট কোটার সপক্ষে কোটাসংক্রান্ত উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের প্রদত্ত সনদপত্রের অনুলিপি প্রথম শ্রেণীর গেজেটেড অফিসার কর্তৃক সত্যায়িত করে সংযুক্ত করতে হবে।
চ. প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা/ শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা/পুত্র-কন্যার পুত্র কন্যা হলে সেক্ষেত্রে যথাক্রমে পিতা/ মাতা/ পিতামহী/ মাতামহী মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে প্রমাণের জন্য অনুমোদিত/ বৈধ সনদপত্রের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে।

 

 


আরো সংবাদ