২১ মে ২০২২
`

প্রশ্নোত্তর

-

ইসমাইল হোসাইন : আমি একটি দোকানে চাকরি করি। অনেক কাস্টমার মালামাল কেনার পর নির্ধারিত মূল্য পরিষোধ করে তার চেয়ে বেশি টাকা ম্যামো করিয়ে নেন। এতে কি আমার গুনাহ হবে?
শায়খ আহমাদুল্লাহ : ভাউচারে বেশি লিখে প্রথমত, আপনি একটি মিথ্যা কথা লিখেছেন। আপনি কাউকে নিজেই বেশি করে লিখে দিলেন বা কাউকে খালি ভাউচার দিলেন আর আপনি জানেন যে ওই কাস্টমার এই খালি ম্যামো নিয়ে পণ্যের দাম বাড়িয়ে লিখে প্রতারণা করবে; তাহলে আপনিও গোনাহগার হবেন। রাসূল সা: বলেছেন, ‘যে আমাদের ধোঁকা দেয় সে আমার উম্মত নয়।’ রাসূল বলেন, ‘তোমাদের প্রত্যেকে দায়িত্বশীল, প্রত্যেককেই দায়িত্ব সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হবে।’ এখানে আপনার দায়িত্ব হলো আমানতদারিতার সাথে ভাউচার লেখা। কারণ যার কাছে এই ভাউচার দেয়া হবে সে দোকানদারের ওপর আস্থা রাখে বলেই ভাউচারকে বিশ্বাস করে। সুতরাং আপনি বেশি লিখে বা বেশি লেখার সুযোগ সৃষ্টি করে অন্যায় করেছেন। অবশ্যই গুনাহগার হবেন। আর যদি আপনার মালিক এটা করতে নির্দেশ করে তবে মালিকের নির্দেশেও এটা করতে পারেন না। এর মাধ্যমে যার কাছে ভাউচার যাবে সেই মালিকপক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এটা আপনি জানেন। একজন লোক চুরি করছে আপনি চোরকে সহায়তা করছেন। সূরা মায়েদার ২নং আয়াতে আল্লাহ বলেন, ‘পাপের ও সীমালঙ্ঘনের কাজে তোমরা একে অপরকে সাহযোগিতা করো না।’ সুতরাং ভাউচারে এভাবে বাড়িয়ে লেখা জায়েজ নয়। এটা ছাড়া যদি আপনার ব্যবসা কম হয় তা মেনে নিতে হবে। বিনিময়ে আল্লাহ প্রতিদান দেবেন। আর কর্মীকে যদি মালিক এই কাজ করতে বাধ্য করে তাহলে সেই চাকরি ছেড়ে দেয়ার জন্য কর্মীকে প্রস্তুত থাকতে হবে। কারণ হারাম কাজে আপনি সহায়তা করতে পারেন না।


আরো সংবাদ


premium cement