০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯, ১১ রজব ১৪৪৪
ads
`

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের আনোগোনা বেড়েছে

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের আনোগোনা বেড়েছে - ছবি : নয়া দিগন্ত

ঢাকা বিভাগীয় বিএনপির সমাবেশের স্থান নিয়ে ধোঁয়াশা এখনো কাটেনি। ডিএমপির পক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দিলে সেটি নাকচ করে দলটি। এখন পর্যন্ত নয়াপল্টন ছাড়তে চান না দলটির নেতারা। নয়াপল্টনে বিকল্প হিসেবে আরামবাগে সড়কে সমাবেশ করতে চায় তারা। তবে এ প্রস্তাবে রাজী হয়নি পুলিশ। এমন অবস্থায় দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আনোগোনা বেড়েছে নেতাকর্মীদের।

আগামী ১০ ডিসেম্বর রাজধানীতে বিভাগীয় সমাবেশ করবে বিএনপি। নয়াপল্টনে অনুমতি চাইলেও তাদের পুলিশ অনুমতি দিয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। কিন্তু বিএনপি সাফ জানিয়ে দিয়েছে উদ্যানে তারা যাবে না।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে প্রতি মুহূর্তে শ্লোগান দিযে যাচ্ছে নেতাকর্মীরা। অপরদিকে, আগত নেতাকর্মীদের জন্য কার্যালয়ের নিচে রান্না হচ্ছে। তাদের মাঝে পরিবেশন করা হচ্ছে।

জানা গেছে, রাতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের শীর্ষ নেতা গোলাম মাওলা শাহিনের পক্ষ থেকে খিচুড়ির আয়োজন করা হয়।

ঢাকা মহানগর যুবদলের এক নেতা বলেন, সমাবেশকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীরা কার্যালেয়ে আসতেছে। এখানে মহানগরে অনেক ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা অবস্থান করছে। তাদের খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

নয়াপল্টনের সমাবেশের অনুমতি পুলিশ না দিলে কী হবে সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেছেন, পুলিশ পুলিশের কাজ করবে আমরা আমাদের কাজ করবো। নয়াপল্টনের সমাবেশ করবো। তবে আমরা চাই পুলিশ যেন দলীয় ভূমিকা পালন না করে।

মির্জা আব্বাস বলেন, আওয়ামী লীগের গুলিস্তান অফিসের সামনে অফিস-সড়ক বন্ধ থাকে। লীগের সমাবেশের সময় পুলিশ রাস্তার ম্যাপ দিয়ে দেয় জনগণকে চলাচলের জন্য। আমাদের সমাবেশে পুলিশ ওরকম রাস্তার ম্যাপ দিয়ে দেবে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নয়াপল্টনে নেতাকর্মী ভীড় জমানো পুলিশ- সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সতর্ক অবস্থান দেখা গেছে।


আরো সংবাদ


premium cement