২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

এবার টঙ্গীতে এইচএসসি পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে উত্তরপত্র গায়েব!


গাজীপুর মহানগরের টঙ্গীতে এইচএসসি পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে উত্তরপত্র খোয়া যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার টঙ্গী পাইলট স্কুল অ্যান্ড গার্লস কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার কেমিস্ট্রি দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষা শেষে উত্তরপত্র গণনায় একটি কম পাওয়া যায়। পরে সেটি খুঁজে কোথাও না পেয়ে ওই উত্তরপত্রের পরীক্ষার্থীকে বাসা থেকে ডেকে কেন্দ্রে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সে উত্তরপত্র পরীক্ষা হলে জমা দিয়েছে বলে জানায়। কিন্তু এরপরও সন্দেহজনকভাবে তাকে কেন্দ্রে ছয় ঘণ্টা আটকে রাখা হয়। পরে তার কলেজের শিক্ষকরা কেন্দ্রে গিয়ে তাকে ছাড়িয়ে আনেন। ওই পরীক্ষার্থীর নাম ইমন, রোল নম্বর ১৫৯৩৭৭। সে টঙ্গী সাহাজ উদ্দিন সরকার স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে পরীক্ষায় অংশ নেয়।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পাইলট স্কুল অ্যান্ড গার্লস কলেজের অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব মো: আলাউদ্দিন মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। তিনি বলেন, তার কেন্দ্রে মোট পরক্ষার্থীর সংখ্যা ৭৮০ জন। বৃহস্পতিবার পরীক্ষা শেষে লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র গণনায় মোট ৭৭৯টি পাওয়া যায়। পরে খোয়া যাওয়া উত্তরপত্রের পরীক্ষার্থী ও তার অভিভাবককে ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সে উত্তপত্র বাহিরে নিয়েছে কিনা জিজ্ঞাসা করা হলে অস্বীকার করে এবং পরীক্ষা শেষে যথানিয়মে উত্তরপত্র জমা দিয়েই কেন্দ্র ত্যাগ করেছে বলে জানায়। ঘটনাটি শিক্ষাবোর্ডকে অবহিত করা হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে টঙ্গী সাহাজ উদ্দিন সরকার স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো: দেলোয়ার হোসাইনের সাথে কথা হয়। তিনি বলেন, আমাদের পরীক্ষার্থী যথানিয়মে পরীক্ষা দিয়ে উত্তরপত্র হলে জমা দিয়েই কেন্দ্র ত্যাগ করেছে। তার উত্তরপত্র খোয়া যাওয়ার দায়-দায়িত্ব সম্পূর্ণ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের। অথচ আমাদের পরীক্ষার্থীকে অন্যায়ভাবে দীর্ঘ ছয় ঘণ্টা কেন্দ্রে নিয়ে আটকে রাখা হয়েছিল। পরে আমরা গিয়ে তাকে ছাড়িয়ে আনি।

গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) হাসিনা আক্তার ও জেলা শিক্ষা অফিসার রেবেকা সুলতানা জানান, উত্তরপত্র খোয়া যাওয়ার বিষয়টি তাদেরকে জানানো হয়নি।


আরো সংবাদ


premium cement